‘ব্রহ্মাস্ত্র’ই বরদান, অভিশাপ কাটিয়ে বলিউডের লক্ষ্মীলাভ, দারুণ খুশি করণ জোহার

‘ব্রহ্মাস্ত্র’-র বক্স অফিস কালেকশন কত, সগর্বে জানালেন করণ জোহার

বলিউডের (Bollywood) নিন্দুকরা যতই বয়কটের ট্রেন্ড তুলুন না কেন, ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ (Brahmastra) কিন্তু অবশেষে সত্যিই বলিউডের তুরুপের তাস হয়ে দাঁড়ালো। ৪০০ কোটি টাকা বাজেটের ছবিটিকে ব্যর্থ করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছিলেন ট্রোলাররা। ছবির ট্রেলার মুক্তির পর দর্শকদের একাংশের মধ্যে উন্মাদনা দেখা দিলেও সোশ্যাল মিডিয়াতে ‘বয়কট ব্রহ্মাস্ত্র’র ট্রেন্ড চলছিল ঝড়ের গতিতে। এমনকি রণবীর কাপুর, আলিয়া ভাটদের কিছু বিতর্কিত মন্তব্যকে হাতিয়ার করেও লাভ হল না কিছুই।

বলিউড ছবির মন্দার বাজারে অয়ন মুখার্জির ছবিটি সত্যিই নিজের নামের মান রেখেছে। একজন বাঙালি পরিচালকের হাত ধরে ঘুরে দাঁড়ানোর সাহস পেল হিন্দি ছবি দুনিয়া। প্রথম দিনেই রণবীর কাপুর ও আলিয়া ভাটের ছবিটি বিশ্বব্যাপী কোটি কোটি টাকা ঘরে তুলে ফেলল। এই জয় নিঃসন্দেহে বলিউডের পক্ষে বড় জয়। ক্রমাগত অপমান এবং ভরাডুবি থেকে রক্ষা পেতে বলিউডের হাতে ঠিক যেন ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ তুলে দিয়েছেন পরিচালক।

BRAMHASTRA TRAILER

যদিও এই ছবির গল্পের আলগা বুনন নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে চরম সমালোচনা হচ্ছে। দুর্দান্ত ভিএফএক্সের চমক, মাল্টিস্টারার কাস্টিং, সর্বোপরি রণবীর-আলিয়ার দারুণ কেমিস্ট্রি নজর কাড়ছে। তবে মূল কনটেন্টেই কোথাও যেন খামতি থেকে গিয়েছে। এমনটাই লিখছেন ছবি বিশ্লেষকরা। তাও এই ছবিটি উদ্বোধনের দিনেই যে পরিমাণ টাকা ঘরে তুলে ফেলেছে তাতে ভরসা আবার ফিরে পাচ্ছে বলিউড।

করণ জোহার সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে খুশি ব্যক্ত করে লিখেছেন গোটা দুনিয়াব্যাপী ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ প্রথম দিনেই ৭৫ কোটি টাকা ঘরে তুলেছে। ছবিমুক্তির এক মাস আগে থেকেই যেভাবে ‌ঝড়ের গতিতে টিকিট বিক্রি হচ্ছিল তাতে এমন ফলাফলই আশা করছিলেন বলিউডের বাণিজ্য বিশেষজ্ঞরা। ছবির বাণিজ্য বিশ্লেষক তরণ আদর্শ দুই সপ্তাহ আগেই ভবিষ্যৎবাণী করে বলেছিলেন ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ ছবি প্রথম দিনেই বাজিমাত করবে।

RANBIR AND ALIA AT BRAMHASTR

দিনের শেষে তার ভবিষ্যৎবাণী হুবহু মিলে গিয়েছে। যদিও ছবি দেখে প্রথমেই নিজের হতাশার কথা জানিয়ে দিয়েছেন তরণ। টুইটারে এই ছবির রিভিউ দিতে গিয়ে তিনি গোটা গোটা অক্ষরে লেখেন, ‘DISAPPOINTING’। তিনি পাঁচটি তারার মধ্যে কেবল দুটি তারা দিয়ে ছবিটির রিভিউ দিয়েছেন। তবে ছবির ভিএফএক্স যে দুর্দান্ত ছিল সে কথা তিনি নিজেও স্বীকার করেছেন। হিন্দি ছবিতে এমন উন্নত মানের ভিএফএক্স এই প্রথমবার ব্যবহার হয়েছে।

ছবির ভিএফএক্সের দায়িত্ব ছিলেন নমিত মালহোত্রা। উল্লেখ্য, হলিউডের ‘ইনসেপশন’, ‘ইন্টারস্টেলার’ এর মত‌ জনপ্রিয় ছবিতে তার সংস্থার গ্রাফিক্স এবং অ্যানিমেশনের কারসাজি ছিল। ছবির চিত্রনাট্যের দুর্বলতাকে ঢেকে দিয়েছে এই অসাধারণ কারুকার্য। এদিকে বলিউড কুইন কঙ্গনা রানাওয়াত ছবিটি দেখে বলিউডের বড়সড়ো ‘বিপর্যয়’ বলে কটাক্ষ করেছেন। সেই সঙ্গে করণকে তার কটাক্ষ, অন্যের যৌন জীবন নিয়েই বেশি আগ্রহ প্রযোজকের। নিজের চিত্রনাট্যে মন নেই!