অবাঙালি হয়েও বাংলা সিরিয়ালে সুপারস্টার, বাংলাকে বিশেষ প্রতিদান দিলেন ভরত কল

Riya Chatterjee

Published on:

গত ৩০ বছর ধরে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন অভিনেতা ভরত কল (Bharat Kaul)। টলিউডের (Tollywood) এক সময়ের দাপুটে এখনও বিভিন্ন ধারাবাহিকে (Bengali Mega Serial) অভিনয় করে যাচ্ছেন সমানতালে। ইন্ডাস্ট্রিতে তার বেশ নামডাক রয়েছে। অভিনয়ের পাশাপাশি এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার হিসেবেও তিনি কাজ করছেন বিভিন্ন সিরিয়ালে। এবার তিনি এক নতুন পেশা বেছে নিলেন।

‘লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার’ ধারাবাহিকে এখন অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে ভরত কলকে। সেই সঙ্গে তিনি জি বাংলার ‘লালকুঠি’ এবং ‘বোধিসত্ত্বের বোধ বুদ্ধি’ ধারাবাহিকেরও এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার। একইসঙ্গে তিনি এবার নতুন দায়িত্ব তুলে নিলেন কাঁধে। তরুণ প্রজন্মের অভিনেতা এবং অভিনেত্রীদের সঠিক পথ দেখাতে খুলে ফেললেন ভরত কল ইনস্টিটিউশন অফ পারফর্মিং আর্টস।

Bharat Kaul

সম্প্রতি টিভি নাইন বাংলার কাছে এই ইনস্টিটিউট সম্পর্কে খোলামেলা আলোচনা করেছেন তিনি। অভিনেতা জানিয়েছেন তিনি এখনও নিয়মিত কাস্টিং করেন। তিনি মনে করেন সিনিয়র চরিত্রে বাবা, মা, কাকা জেঠার চরিত্র পাওয়া কঠিন নয়। তবে নতুন ছেলেমেয়েদের কাস্ট করার কাজটা খুব কঠিন। ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি যখন নতুন এসেছিলেন তখন তাকে গাইড করার মতো কেউ ছিলেন না। সিনিয়রদের সান্নিধ্যে থেকে তিনি নিজেকে তৈরি করেন। তিনি নতুনদের জন্য এমন প্ল্যাটফর্ম গড়ে দিতে চান যাতে তারাও সেই সুযোগটা পায়।

অভিনেতা জানিয়েছেন তার এই ইনস্টিটিউট গুরুকুলের মত হবে। সেখানে ছাত্রছাত্রীরা বারবার ফিরে আসতে পারবে। মন খারাপে, ডিপ্রেশনে এই ইনস্টিটিউট তাদের পাশে দাঁড়াবে। এখানে মেন্টর হিসেবে ভরত কলের সঙ্গে থাকছেন সপ্তর্ষি রায়, অনিন্দিতা সর্বাধিকারী, সোহাগ সেন, সোহিনী সেনগুপ্ত, তপস্যা দাশগুপ্ত, প্রশান্ত এবং অন্যান্যরা। এরা প্রত্যেকেই ফ্যাকাল্টি হিসেবে থাকবেন এবং নতুন প্রজন্মকে অভিনয় শেখাবেন।

দূর্গাপুজোর ঠিক পর ১০ই অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে তার এই ইনস্টিটিউট। অডিশনের মাধ্যমে সেখানে অ্যাডমিশন নেওয়া হবে। প্রশিক্ষণের জন্য ৪৮ টা করে ক্লাসের ব্যবস্থা থাকবে। ভরত কল জানিয়েছেন সোম থেকে বৃহস্পতিবার, প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে ৩.৩০ টা পর্যন্ত ক্লাস করানো হবে। এই ইনস্টিটিউটের ঠিকানা হল যোধপুর পার্কের ৯৫ পল্লীর পুজোর লাগোয়া বিল্ডিং।

তিনি আরও জানিয়েছেন শুরুতে প্রত্যেকটি ক্লাসে ৪০ জন করে অংশ নিতে পারবেন। অভিনেতা-অভিনেত্রীদের সার্বিক গ্রুমিং থেকে অভিনয় সবই শেখানো হবে। ভরত কলের কথায়, “অভিনয় বিষয়টা একটা কম্বাইন্ড আর্ট। এখন তো একটা সিনে এমনিতেই ১০ জন দাঁড়িয়ে থাকেন। আমার একটা রিঅ্যাকশনে বাকি ১০ জন কিভাবে রিয়্যাক্ট করছে সেটাও তো জানা গুরুত্বপূর্ণ। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হল অভিনেতার গ্রুমিং”।

ভরত কল হলেন কাশ্মীরি পন্ডিত। কাশ্মীর থেকে বাংলাতে এসে তিনি নিজের সুনাম গড়েছেন। আগে তিনি বাংলা জানতেন না। এখন বাংলা বলতে পারলেও এই ভাষা পড়তে কিংবা লিখতে পারেন না। তার মতে এই ধরনের বিষয় নিয়ে অনেকেই হীনমন্যতায় ভোগেন। নিজের দুর্বলতাকেই শক্তি করে তুলতে হবে। সেই আত্মবিশ্বাসের শিক্ষা দেওয়ার জন্য ‘ফাইটিং দ্য অডস’ ক্লাসটি তিনি নিজেই করাবেন।