কপাল পুড়লো রচনার, দেব-রুক্মিণীর কাছে দিদির এত কম টিআরপি দেখে মাথায় হাত ভক্তদের

Riya Chatterjee

Published on:

বাংলা টেলিভিশনের (Bengali Telivision) অন্যতম জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো হল দিদি নাম্বার ওয়ান (Didi Number One)। গত ১০ বছর ধরে দিদি নাম্বার ওয়ান টেলিভিশনে একছত্র সাম্রাজ্য বিস্তার করে এসেছে। সোম থেকে রবিবার প্রতিদিন দিদি নাম্বার ওয়ানের এক ঘন্টার পর্ব না হলে যেন মন ভরে না দর্শকদের। তবে দিদি নাম্বার ওয়ান এখন ক্রমশ কোণঠাসা হয়ে পড়ছে অন্যান্য রিয়েলিটি শোয়ের কাছে।

বর্তমানে স্টার জলসা এবং জি বাংলাতে দিদি নাম্বার ওয়ান, ডান্স ডান্স জুনিয়র (Dance Dance Junior Season 3), সারেগামাপা (Sa Re Ga Ma Pa) এবং রান্নাঘর (Rannaghor), এই চারটি রিয়েলিটি শো চলছে। এই সপ্তাহের টিআরপি (TRP) তালিকা থেকে দেখা যাচ্ছে দিদি নাম্বার ওয়ান অন্যান্য রিয়েলিটি শোয়ের তুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে। গত কয়েক সপ্তাহ থেকেই দেব ও রুক্মিণীর ম্যাজিকের কাছে দিদি নাম্বার ওয়ানের ম্যাজিক যেন কোথাও ফিকে পড়ে যাচ্ছে।

এই সপ্তাহে দিদি নাম্বার ওয়ানকে টেক্কা দিয়ে এগিয়ে গিয়েছে ডান্স ডান্স জুনিয়র। ডান্স ডান্স জুনিয়র সিজন ৩ ৫.০ নম্বর পেয়েছে। রচনা ব্যানার্জীর দিদি নাম্বার ওয়ান পেয়েছে ৪.৭ নম্বর। তবে এই দুই রিয়েলিটি শো কিন্তু টপারের আসন নিতে পারেনি। কারণ টপারের আসন দখল করেছে জি বাংলার সারেগামাপা। সারেগামাপার প্রাপ্ত নম্বর ৫.১।

এই সপ্তাহের টিআরপি তালিকা অনুসারে সারেগামাপা রিয়েলিটি শোয়ের মধ্যে সবার সেরা। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ডান্স ডান্স জুনিয়র। দিদি নাম্বার ওয়ান তৃতীয় স্থানে রয়েছে। আর সুদীপার রান্নাঘর ১.১ নম্বর নিয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে। এই সপ্তাহে ডান্স ডান্স জুনিয়রের অন্যতম আকর্ষণ ছিল মধুমিতা সরকার এবং বিক্রম চ্যাটার্জীর পারফরমেন্স।

খুব তাড়াতাড়িই জি বাংলাতে শুরু হচ্ছে আরও একটি নতুন রিয়েলিটি শো। ইন্দ্রানী হালদারের সঞ্চালনায় আসছে ঘরে ঘরে জি বাংলা। এই রিয়েলিটি শো কবে কোন স্লটে আসবে সেটা এখনও জানা যায়নি। তবে অনুমান করা হচ্ছে সম্ভবত বিকেলের দিকের স্লট পেতে পারে নতুন রিয়েলিটি শো ঘরে ঘরে জি বাংলা। পুজোর আগে এই শো আসার খবর জানানো হয়েছিল। তবে বছর শেষ হতে চললো, এখনও নতুন শোয়ের স্লট জানানো হল না।

বর্তমানে জি বাংলাতে রান্নাঘরের যা টিআরপি তাতে অনুমান করা হচ্ছে রান্নাঘরকে সরিয়েই আসবে এই নতুন রিয়েলিটি শো। তবে রান্নাঘর একেবারে বন্ধ হয়ে যাবে না বলেই জানা যাচ্ছে। সম্ভবত জি বাংলার একমাত্র কুকিং শো দুপুরের দিকের স্লটে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। কেউ কেউ আবার আশঙ্কা করছিলেন দিদি নাম্বার ওয়ানকে সরিয়েও আসতে পারে ঘরে ঘরে জি বাংলা। সবটাই নির্ভর করছে চ্যানেলের সিদ্ধান্তের উপর।