ফুটন্ত কড়াইতে পুড়িয়ে মারা হচ্ছে নায়িকাকে! জি বাংলার সিরিয়াল বন্ধের ডাক দিলেন দর্শকরা

সিরিয়ালের নামে কুসংস্কার ছড়াচ্ছে গৌরী এলো, সোশ্যাল মিডিয়াতে উঠলো সিরিয়াল বন্ধের ডাক

Audience wants to stop Zee Bangla Gouri Elo serial as it spreading superstition to the society

জি বাংলার (Zee Bangla) গৌরী এলো (Gouri Elo) ধারাবাহিকটিকে নিয়ে ফের একবার তোলপাড় হল সোশ্যাল মিডিয়া। বারবার এই ধারাবাহিকের বিরুদ্ধে কুসংস্কার ছড়ানোর অভিযোগ উঠছে। ঠাকুর দেবতার নামে নিয়ে অলৌকিক এমন এমন কিছু বিষয়বস্তু দেখানো হচ্ছে যা আধুনিক সমাজের দৃষ্টিতে যথেষ্ট উদ্ভট। এবার তো সমস্ত মাত্রাই ছাড়িয়ে গেল এই সিরিয়ালটি।

এমনিতে টেলিভিশনের পর্দায় ধর্মীয় বিষয়বস্তু কেন্দ্রিক ধারাবাহিকের বেশ চাহিদা থাকে। ঠাকুর-দেবতাদের নিয়ে সিরিয়াল দেখতে পছন্দ করেন দর্শকরা। তবে সেই জায়গায় জি বাংলার গৌরী এলোতে যা দেখানো হচ্ছে বাস্তবে তা অবান্তর বলেই মনে করছেন দর্শকরা। এখানে গৌরীর উপর মা কালীর আশীর্বাদ আছে দেখাতে গিয়ে গৌরীর হাত দিয়েই কার্যত অলৌকিক কান্ড ঘটানো হচ্ছে।

এখন দেখানো হচ্ছে ছোট দাদু গৌরীকে ব্যবহার করে নতুন ব্যবসা শুরু করে ফেলেছেন। তিনি তার মেয়ে শৈল-মাকেই এখন দূরে ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছেন। বদলে গৌরীর অলৌকিক ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে ভক্তদের থেকে অর্থ উপার্জন করছেন। এদিকে ডাক্তারবাবুর কথা অমান্য করে গৌরীও সারাদিন ভক্তদের মনবাঞ্ছা পূরণ করে যাচ্ছে।

এতদিন এইসব আলটপকা বিষয়বস্তু দেখিয়ে গৌরী এলোতে ধর্মের নাম নিয়ে অসাধু ব্যবসা চলেছে রমরমিয়ে। এদিকে ঈশান এসব দেখে গৌরীর উপর বিরক্ত হয়ে বাড়ি ছেড়ে গ্রামে গিয়ে চিকিৎসা শুরু করে। ঠিক এই সুযোগকেই কাজে লাগিয়ে গৌরীকে সরিয়ে দেওয়ার নতুন ষড়যন্ত্র করে শৈল মা। এবার তিনি গৌরীকে একেবারে নিজের হাতেই প্রাণে মেরে ফেলতে চান।

এতদিন পরিস্থিতির চাপে চুপ করে থাকলেও গৌরীকে একা পেয়ে তাকে রাস্তা থেকে সরিয়ে নিজের পুরনো সিংহাসন আবার ফিরে পেতে চায় শৈল মা। ধারাবাহিকের তরফ থেকে সম্প্রতি নতুন একটি প্রোমো শেয়ার করা হয়েছে। এখানে দেখা যাচ্ছে শৈল মা গৌরীকে এবং গৌরীর ছবি টান মেরে ফেলে দিচ্ছেন এবং নিজের ছবি ও নিজেকে সেখানে প্রতিষ্ঠিত করছেন। শুধু তাই নয় গৌরীকে আবার শাস্তিও দিচ্ছেন তিনি।

এরপরের দৃশ্যে দেখা যায় গৌরীকে শাস্তি দেওয়ার জন্য ফুটন্ত জলের কড়াইতে তাকে ঠেলে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। ঠাকুর-দেবতার নাম নিয়ে আজব আজব কান্ড কারখানা দেখে তিতিবিরক্ত হয়ে পড়ছেন দর্শকরা। সোশ্যাল মিডিয়াতে তারা এই নিয়ে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন। যদি গল্প আর না থাকে তাহলে শুধু এমন ৫০০বছরের পুরনো গল্প না তুলে এনে গৌরী এলো বন্ধ করে দেওয়া হোক, এমনটাই দাবি করছেন দর্শকরা।