গল্পের কোনও মাথামুণ্ডু নেই, রোজ উর্মির একঘেয়ে নাটক দেখে তিতিবিরক্ত দর্শকরা

প্রতিদিন একঘেয়ে নাটক, এই পথ যদি না শেষ হয় ধারাবাহিক দেখে তিতিবিরক্ত দর্শকরা

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিকগুলোর মধ্যে ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’ (Ei Poth Jodi Na Sesh Hoi) অন্যতম। আর পাঁচটা সাধারণ কুটকাচালী ধারাবাহিকের তুলনায় এখানে প্রাধান্য পেয়েছে যৌথ পরিবারের ঐক্য। উর্মি এবং সাত্যকির কেমিস্ট্রিটাও দেখার মত। আবার সহজ-সরল ভালো মানুষ উর্মিও দর্শকদের থেকে দারুণ ভালবাসা পেয়েছে। শেষমেষ কিনা এই উর্মির উপরই বিরক্ত হয়ে পড়লেন দর্শকরা। কিন্তু কেন?

এমনিতে বাংলা ধারাবাহিকে কোনও এক ট্র্যাক বেশিদিন চালানো সম্ভব হয় না। ধারাবাহিককে আকর্ষণীয় করে তুলতে এবং টানটান উত্তেজনা বজায় রাখতে কমবেশি কিছু না কিছু গল্পে পরিবর্তন আনতেই হয়। এই ধারাবাহিকটিও তার বিপক্ষে নয়। কিন্তু এখন এই ধারাবাহিকে যা দেখানো হচ্ছে তা ‘বাড়াবাড়ি’ বলে মনে করছেন দর্শকরা।

 

ধারাবাহিকে এখন যেমনটা দেখানো হচ্ছে উর্মি এবং সাত্যকির জীবনে অশান্তি ছড়ানোর জন্য একা রিনি নয়, উর্মির কাকিমাও ষড়যন্ত্র করছেন। এদিকে কাকু-কাকিমার ষড়যন্ত্রের কথা জেনেও উর্মি তাদের মাফ করে দেয়। আবার একই বাড়িতে থাকার জন্য নিয়ে আসে। উর্মির এমন ‘খাল কেটে কুমির ডেকে নিয়ে আসা’র মানসিকতা দেখে দর্শকরা এমনিতেই বিরক্ত ছিলেন। তার উপর আবার সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো।

যেখানে দেখা যাচ্ছে উর্মির গলায় ছুরি ধরে রেখেছে তার মামণি। প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে রিনিকে কিডন্যাপারদের হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে উর্মি বিপদে পড়ে যায়। হাতেনাতে ধরা পড়ে গিয়ে তার কাকিমা তার গলায় ছুরি ধরে। প্রাণ বাঁচাতে গিয়ে উর্মির প্রাণ সংশয়, এই মর্মেই বানানো হয়েছিল প্রোমোটি।

ei poth jodi na sesh hoy

উর্মি যখন জানতো তার কাকু এবং কাকিমা কতটা ভয়ংকর, তখন সে তাদের নিজের বাড়িতে এনে রাখল কেন? এখন আবার সেই কাকিমার জন্যই বিপদে পড়েছে সে! দর্শকদের মন্তব্য, এসব করার চাইতে হয় উর্মি কাকিমাকে মেরে দিক, আর নয়তো কাকিমাই উর্মিকে মেরে দিক! কারণ নায়িকার এত ভালোমানুষী সহ্য করতে পারছেন না তারা।