বাড়ি বাড়ি ঘুরে বেচতেন ফিনাইল, গুলশান গ্রোভারের ভাগ্যবদলের গল্প সিনেমাকেও হার মানায়

বাড়ি বাড়ি ফিনাইল বেচে চালিয়েছেন পড়াশোনা, বলিউডের ব্যাডম্যান গুলশান গ্রোভারের জীবন যেন সিনেমা

বলিউডের (Bollywood) সব তারকা মুখে সোনার চামচ নিয়ে জন্মান না। পরিশ্রম আর ধৈর্য নিয়ে ভাগ্যের সঙ্গে লড়াই করে অনেকেই তা ছিনিয়ে নিয়েছেন। দিল্লির যে ছেলেটা একসময় সংসার চালাতে প্রতিদিন বাড়ি বাড়ি ঘুরে কাপড় কাচার সাবান, ফিনাইল বেচে পড়াশোনার খরচ চালাতেন, তিনিও তেমনই এক ফাইটার।

১৯৫৫ সালের ২১শে সেপ্টেম্বর, দিল্লিতে জন্মগ্রহণ করেন এক খুব সাধারণ পরিবারে। কাজেই ছোট থেকেই অভাবের সঙ্গে বড় হওয়া। তারই মধ্যে যতদূর সম্ভব লেখাপড়াটাও করে গিয়েছেন সাধ্যমত। পড়াশোনার খরচ চালাতে বাড়িতে বাড়িতে ঘুরে সেলস ম্যানের কাজ করতেন। তিনি আর কেউ নন, বলিউডের ‘ব্যাডম্যান’ (Bad Man) গুলশান গ্রোভার (Gulshan Grover)।

অতি সাধারণ পরিবারের ছেলের স্বপ্নপূরণের গল্পটা কিন্তু অনেক বড়। এক এক পয়সা বাঁচানোর জন্য প্রতিদিন ৯ কিলোমিটার হেঁটে বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছাতে হতো তাকে। তারপর সেখান থেকে কলেজ পৌঁছানোর জন্য তিনটি বাস পরিবর্তন করতে হতো। এভাবেই কষ্ট করে লেখাপড়া চালিয়ে গিয়েছেন। তার উপর আবার প্রতিদিন কলেজে যাওয়া-আসার পথে বাড়ি বাড়ি ঘুরে সাবান বিক্রিও করতেন।

এইভাবে সেলসের কাজ করে যা কিছু আয় হতো তা থেকে নিজের পড়াশোনার খরচ চালাতেন। বাকি টাকা পরিবারের হাতে তুলে দিয়ে পরিবারকেও সহায়তা করতেন। তবে পড়াশোনার শেষে তার একটি সিদ্ধান্ত ভাগ্য বদলে দেয়। তিনি দিল্লি থেকে মুম্বাই পৌঁছে যান অভিনয় করার জন্য। মুম্বাইতে থিয়েটারে যোগ দেন গুলশান গ্রোভার। সেখান থেকেই অভিনয়ের হাতেখড়ি হয় তার। সেই থেকে তার পথচলার শুরু।

থিয়েটার করতে করতে ১৯৮০ সালে ‘হাম পাঁচ’ ছবির মাধ্যমে ক্যামেরার সঙ্গে তার সাক্ষাতও হয়ে যায়। তারপর থেকেই বলিউডের সঙ্গে তাঁর গভীর যোগাযোগ তৈরি হয়ে যায়। একের পর এক ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। যার মধ্যে বেশিরভাগ চরিত্রই ছিল খলনায়কের চরিত্র। ‘দুধ কা কার্জ’, ‘ইজ্জত’, ‘সওদাগর’, ‘কুরবান’, ‘রাম লখন’, ‘অবতার’, ‘অপরাধী’, ‘মোহরা’, ‘দিলওয়ালে’, ‘হিন্দুস্তান কি কসম’, ‘হেরাফেরি’র মত সুপারহিট ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন।

আরও পড়ুন :- পেটের জ্বালায় রাস্তায় বিক্রি করেছেন কলম, জনি লিভারের জীবন সংগ্রাম অনুপ্রেরণা জোগায় 

তার অভিনীত ছবির তালিকায় ‘এক হাসিনা’, ‘দিল মাঙ্গে মোর’, ‘এজেন্ট বিনোদ’, ‘বিন বুলায়ে বারাতি’র মতো একাধিক ছবিও রয়েছে যেগুলি তাকে বলিউডের ‘ব্যাডম্যান’ হিসেবে পরিচিত এনে দিয়েছে। নামে ‘ব্যাডম্যান’ হলেও আসলে তিনি বলিউডের গুডবুকেই ছিলেন। তার অভিনয়ের উপহার হিসেবে ভালোবেসে বলিউড তাকে এই নাম দেয়।