ভক্তের হাতে যৌন হেনস্থা! অপমানে অভিমানে চরম সিদ্ধান্ত নেন এই সুন্দরী বলিউড নায়িকা

ভক্তের হাতে যৌন হেনস্থা, অপমানে অভিনয় ছাড়তে বাধ্য হন এই বলিউড সুন্দরী

Actress Archana Joglekar Was Sexually Harassed By Fans

বলিউড (Bollywood) ইন্ডাস্ট্রি একসময় তার রূপের জাদুতে মুগ্ধ হয়েছিল। যে সময়ে বলিউডে মাধুরী এবং শ্রীদেবীদের রূপ এবং গুণের প্রশংসা চলতো, সেই সময় গ্ল্যামার দুনিয়ার লাইমলাইট নিজের দিকে ঘুরিয়ে নিয়েছিলেন অভিনেত্রী অর্চনা জোগলেকর (Archana Joglekar)। বিজ্ঞাপনের দুনিয়া থেকে শুরু করে হিন্দি টেলিভিশন এবং ছবি দুনিয়াতেও ছড়িয়ে পড়ছিল তার নাম। কিন্তু আচমকা কোথায় যেন হারিয়ে গেলেন এই অভিনেত্রী।

বলিউডের এই সুন্দরীর জন্ম হয়েছিল নাগপুরে। তবে তার বেড়ে ওঠা মুম্বাইতে। তার বাবা ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কাজ করতেন। মায়ের সঙ্গেই তিনি বেশিরভাগ সময় কাটাতেন। ছোট থেকেই নাচের প্রতি তার অনেক বেশি আগ্রহ ছিল। অর্চনার মা মুম্বাইতে মেয়ের নামে একটি নাচের স্কুল খুলেছিলেন। অর্চনা কত্থক নাচে পারদর্শী ছিলেন। কেরিয়ারের শুরুতে থিয়েটারে অভিনয় করে তিনি বেশ জনপ্রিয়তা পান। এরপর মুম্বাইয়ের একটি ট্যালেন্ট শোতে তার পারফরম্যান্সে মুগ্ধ হয়েছিলেন বিচারকরা। তারপর তাকে আর ঘুরে তাকাতেই হয়নি।

Archana Joglekar

এই অনুষ্ঠানের পর একের পর এক সিনেমার প্রস্তাব আসতে থাকে তাদের কাছে। বলিউডে তার ডেবিউ হয়েছিল ১৯৯০ সালে। অনুপম খের, রেখা এবং রাজ বব্বরের সঙ্গে ‘সংসার’ ছবির হাত ধরে তিনি বলিউডে প্রবেশ করেন। এরপর খুব কম সময়ের মধ্যেই তিনি বলিউডের নামকরা অভিনেত্রী হয়ে ওঠেন। হিন্দি ছাড়াও ওড়িয়া ও মারাঠি সিনেমাতে কাজ করে জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন তিনি।

অর্চনার কেরিয়ারের শুরুটা কিন্তু হয়েছিল ওড়িয়া ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির হাত ধরে। ওড়িয়া ইন্ডাস্ট্রির ‘সুনা চড়েহি’ ছবি ছিল তার কেরিয়ারের প্রথম সুযোগ। এছাড়া তিনি দূরদর্শনে ‘ফুলবন্তী’ নামের একটি জনপ্রিয় হিন্দি ধারাবাহিকের মুখ্য চরিত্রেও অভিনয় করতেন। এই ধারাবাহিকের প্রযোজনা করেছিলেন ঊষা মঙ্গেশকর। লতা মঙ্গেশকরের গানের সঙ্গে একজন নৃত্যশিল্পীর ভূমিকায় অভিনয় করতেন অর্চনা।

অর্চনার জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাতে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনী সংস্থাও তার সঙ্গে কাজ করতে চাইতো। এর মধ্যে ‘পান পসন্দ’ ক্যান্ডির বিজ্ঞাপন ছিল খুবই জনপ্রিয়। তবে এত জনপ্রিয়তা সত্বেও কেরিয়ার মাঝপথে ছেড়ে দেশ ছেড়েই চলে যান এই সুন্দরী। সেই সময় ‘স্ত্রী’ নামের একটি ওড়িয়া ছবির শুটিং করছিলেন তিনি। তার এক ভক্ত তার সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন। তখনই সেই ভক্তের হাতে যৌন হেনস্থার শিকার হতে হয় তাকে। আদালতে এই মামলাটি ১০ বছর ধরে চলেছিল। ১০ বছর পর ওই অভিযুক্তের ১৮ মাসের কারাদণ্ড হয়। এই ঘটনা অর্চনার মনে গভীর প্রভাব ফেলে। ইন্ডাস্ট্রির বিরুদ্ধে বিতৃষ্ণা জন্মে যায় তার মনে।

ইন্ডাস্ট্রিতে সুরক্ষার অভাব বোধ করে তিনি অভিনয় ছেড়ে দেন। এমনকি দেশ ছেড়ে আমেরিকাতে চলে যান। সেখানে গিয়ে তিনি একটি নাচের স্কুল খোলেন। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে তার নাচের স্কুল থেকে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এরপর দীর্ঘদিন পর্যন্ত অভিনয় ছেড়ে নাচ নিয়েই মেতে থেকেছেন অর্চনা। তবে ২০১২ সালে তিনি আবার ‘ম্যারেড ২ আমেরিকা’ ছবিতে জ্যাকিশ্রফ, শ্বেতা তিওয়ারি এবং রঘুবীর যাদবের সঙ্গে অভিনয় করেন। এই ছবিটি ফ্লপ হয়ে যাওয়ার পর তাকে আর কোনও ছবিতে দেখা যায়নি।

বলিউডে গুঞ্জন এই ছবির পরিচালকের সঙ্গে নাকি সম্পর্কে জড়িয়েছেন অর্চনা। তিনি তার স্বামীকে ডিভোর্স দিয়েছিলেন অনেকদিন আগেই। বলিউডের এই সুন্দরী নিজের ব্যক্তিগত জীবনকে ক্যামেরার আড়ালে রাখতে পছন্দ করেন। তাই পাপারাজ্জিরা হাজার চেষ্টা করেও সেখানে প্রবেশ করতে পারেন না।