দেশের মাটিতে সুপার ফ্লপ হলেও, বিদেশে সুপারহিট ভারতের এই ৮টি সিনেমা

দেশের মানুষ দেখেনি, অথচ বিদেশ থেকে কোটি কোটি টাকা তুলে এনেছে এই ৮টি সিনেমা

8 Bollywood Movies That Minted More Money Overseas But Flopped In India

ইদানিং বলিউড (Bollywood) জুড়ে বয়কটের ট্রেন্ড চলছে। যে ছবিই আসুক না কেন নির্বিচারে বয়কটের খাতায় ফেলে দিচ্ছেন দর্শকরা। যার ফলে বাজেটের অর্ধেকও উঠে আসছে না, বক্স অফিসের সুপার ফ্লপ হচ্ছে ছবিগুলো। তবে জানেন কি এর আগেও বলিউডে এমন অনেক ছবি মুক্তি পেয়েছে যেগুলো দেশের মাটিতে সুপার ফ্লপ হলেও বিদেশ থেকে কিন্তু অনেক প্রশংসা এবং টাকা উপার্জন করেছে? আজ এই প্রতিবেদনে এক নজরে দেখে নিন বলিউডের কোন কোন ছবি রয়েছে এই তালিকায়।

হ্যাপি নিউ ইয়ার (Happy New Year) : ফারহা খান পরিচালিত এই ছবিতে ছিল দুর্দান্ত কাস্টিং। শাহরুখ খান, দীপিকা পাড়ুকোন, বোমান ইরানিদের নিয়ে বানানো এই ছবি ভারতে তেমন ব্যবসা করতে পারেনি। ভারতীয় দর্শকরা এই ছবিটিকে তেমন পছন্দও করেননি। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে এই সিনেমাই খুব ভাল ব্যবসা করে। বিদেশ থেকে প্রায় ৯৬ কোটি টাকা পেয়েছিল ছবিটি।

ক্রিস ৩ (Krish 3) : ‘কই মিল গেয়া’র পর ‘ক্রিস’ ছবিটি বানিয়েও দারুণ সফলতা পেয়েছিলেন রাকেশ রোশন। তাই তিনি এরপর এই সিরিজের একের পর এক ছবি মুক্তি দিতে থাকেন। শেষ মুক্তি পেয়েছিল ক্রিস ৩ ছবিটি। তবে এই ছবি ভারতীয় দর্শকদের তেমন ভাল লাগেনি। সুপারহিরো নির্ভর এই ছবিই আবার বিদেশে দারুণ প্রশংসা পায়। আন্তর্জাতিক বাজারে ছবিটি ৫৪ কোটি টাকার ব্যবসা করে।

বোল বচ্চন (Bol Bachchan) : রোহিত শেট্টি পরিচালিত এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন অজয় দেবগন, অভিষেক বচ্চন এবং আসিন। এই ছবিটিও দর্শকরা তেমন পছন্দ করেননি। অ্যাকশন এবং কমেডি নির্ভর এই ছবিতে অভিষেক বচ্চনের অতিরিক্ত নাটকীয় অভিনয়ের নিন্দা করেছিলেন দর্শকরা। আন্তর্জাতিক বাজার থেকে এই ছবিটিই ২২ কোটি টাকা এনে দেয়।

ব্লু (Blue) : মূলত অ্যাকশনধর্মী এই সিনেমা আন্ডার ওয়াটারের অ্যাডভেঞ্চারের গল্প নির্ভর ছিল। ভারতীয় সিনে সমালোচকদের কাছে ব্যাপক সমালোচনা পায় ছবিটি। তবে বিদেশের মাটিতে চুটিয়ে ব্যবসা করে ‘ব্লু’। বিদেশি বাজার থেকে বক্স অফিসে ১১৮ কোটি টাকা উপার্জন করে ছবিটি।

জব হ্যারি মেট সেজল (Jab Harry Met Sejal) : শাহরুখ খান, অনুষ্কা শর্মা অভিনীত এই ছবিটিও ভারতীয় বক্স অফিসে তেমন ভাল ফলাফল করতে পারেনি। শাহরুখ খানের ইমেজ এই ছবিতে ফিকে হয়ে যায়। তবে বিদেশে কিন্তু ছবিটি ভালই ব্যবসা করে। ৬৭.৬৬ কোটি টাকা আন্তর্জাতিক বাজার থেকে পাওয়া গিয়েছিল ছবিটির দরুণ।

গোলমাল এগেইন (Golmaal Again) : গোলমাল সিরিজের ছবিগুলো বেশ ভাল ব্যবসা করলেও এই ছবিটি ভারতে তেমন ভাল সাড়া পায়নি। অনেক বড় বড় তারকা অভিনয় করলেও বক্স অফিসে হিট হয়নি ছবিটি। বিদেশে কিন্তু ছবিটি ভাল চলেছিল। নির্মাতারা প্রায় ৪৬ কোটি টাকা উপার্জন করতে পেরেছিলেন বিদেশ থেকে।

টিউবলাইট (Tubelight) : টিউবলাইট ছবিটি সালমান খানের কেরিয়ারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ছবি ছিল। ছবিতে তার অভিনয় দারুণ প্রশংসা পায়। তবে বক্স অফিসে টাকা তুলতে ব্যর্থ হয়েছিল এই ছবি। ভারত চীন যুদ্ধের পরিপ্রেক্ষিতে এই ছবিটি বিদেশ থেকে ৫১ কোটি টাকা এনে দিয়েছিল।

বদ্রীনাথ কি দুলহানিয়া (Badrinath Ki Dulhania Ki) : বরুণ ধাওয়ান আলিয়া ভাট অভিনীত এই ছবিটিও ভারতের বক্স অফিসে তেমন ভাল সাড়া পায়নি। বিদেশ থেকে এই ছবি ৩৪ কোটি টাকা উপার্জন করে।