বন্ধুত্ব ছিল গলায় গলায়, এই কারণে চরম শত্রুতে পরিণত হন আমির-সালমান

Riya Chatterjee

Published on:

বলিউড (Bollywood) ইন্ডাস্ট্রির অন্দরে সকল তারকাদের মধ্যেই যে সুসম্পর্ক রয়েছে এমনটা নয়। ইন্ডাস্ট্রিতে এমন অনেক সেলিব্রেটি রয়েছেন যারা একে অপরের সঙ্গে কথা বলা তো দূর মুখ দেখতেও পছন্দ করে না। তেমনি দুই তারকা হলেন আমির খান (Aamir Khan) এবং সালমান খান (Salman Khan)। অথচ একসময় তাদের বন্ধুত্ব ছিল গলায় গলায়।

১৯৯৪ সালে ‘আন্দাজ আপনা আপনা’ ছবিতে আমির খান এবং সালমান খান একসঙ্গে অভিনয় করেছিলেন। রাজকুমার সন্তোষী পরিচালিত এই ছবিটি বেশ হিট হয়েছিল। কিন্তু এই ছবির শুটিং চলাকালীন সালমান এবং আমিরের মধ্যে সমস্যা দেখা দেয়। তার কারণ ছিল সালমান খানের ব্যক্তিগত জীবনের সমস্যা।

ANDAZ APNA APNA

ওই সময় সালমান তার ব্যক্তিগত জীবনে বেশ সমস্যার মধ্যে পড়েছিলেন। তাই শুটিংয়ে আসতে তার অনেক দেরি হত। কখনও কখনও শুটিংয়ে পৌঁছাতে ঘন্টার পর ঘন্টা দেরি হয়ে যেত তার। এদিকে তাকে না পেয়ে শুটিং শুরু করাও যেত না। সালমানের এই অভ্যাসে বেজায় বিরক্ত হন আমির খান।

আমির খানকে বলা হয় মিস্টার পারফেকশনিস্ট। কারণ তার কাছে সবকিছুই নিখুঁত হতে হবে। তার সময়জ্ঞান ছিল ভীষণ পারফেক্ট। সময়ের এক চুল এদিক ওদিক তিনি পছন্দ করতেন না। কিন্তু সালমানের জন্য তাকে অনেক সমস্যায় পড়তে হয়েছে। তাই ওই একটি ছবির পর আমির সিদ্ধান্ত নেন এরপর আর কখনও তিনি সালমানের সঙ্গে কাজ করবেন না।

ANDAZ APNA APNA

তবে সমস্যাটা যে শুধু এই ছবির দুই হিরোর মধ্যে ছিল তেমনটা নয়, ‘আন্দাজ আপনা আপনা’ ছবির দুই নায়িকা করিশমা কাপুর এবং রবীনা ট্যান্ডনও শুটিংয়ের বাইরে একে অপরের সঙ্গে কথা বলতেন না। তাদের মাঝেও কিছু ব্যক্তিগত সমস্যা ছিল। একবার হিন্দুস্তান টাইমসের কাছে এই বিষয়ে মুখ খুলেছিলেন রবিনা।

ANDAZ APNA APNA

রবিনা বলেন, “এটা বেশ মজার ছিল, কারণ আমরা যখন শুটিং করছিলাম তখন কেউই একে অপরের সঙ্গে কথা বলছিলাম না। সবার মারামারি চলছিল। আমির এবং সালমান একে অপরের সঙ্গে কথা বলছিলেন না। করিশমা এবং আমিও কথা বলছিলাম না। এদিকে আবার সালমান এবং রাজ জিও (ছবির পরিচালক) কথা বলছিলেন না। আমি জানি না ছবিটা কীভাবে তৈরি হয়েছে। তবে এটা প্রমাণ হয় যে আমরা খুব ভাল অভিনেতা।”