প্রকাশ্যে মাতলামি থেকে মহিলাদের শ্লীলতাহানি, শাহরুখের এই ৭ কুকীর্তির কথা শুনলে চমকে উঠবেন

মাতলামি করে হাতাহাতি থেকে মহিলাদের শ্লীলতাহানি, শাহরুখের কুকীর্তি জেনে ছিঃ ছিঃ করছে নেটপাড়া

আজ বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খানের (Shah Rukh Khan) জন্মদিন। অগণিত ভক্তদের শুভেচ্ছার সঙ্গে ৫৭ তম জন্মদিন উদযাপন করছেন অভিনেতা। বিগত ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে শাহরুখ খান তার ভক্তদের একের পর এক ছবি উপহার দিয়েছেন যা তারা মনের মণিকোঠায় তুলে রেখেছেন। তবে শাহরুখের জীবনের কালো অধ্যায়গুলো তার এই আলোকিত জীবনে মাঝেমধ্যেই কলঙ্কের কালি ঢেলে দেয়। একবার-দুবার নয়, পরপর ৭ বার শাহরুখকে (7 controversial truth about Shahrukh Khan) পড়তে হয় চরম বিতর্কের মুখে।

আরিয়ান খানের ড্রাগ মামলা : শাহরুখের বড় ছেলে আরিয়ান গত বছর ড্রাগ মামলায় ফেঁসে গিয়েছিলেন। মুম্বাইতে প্রমোদতরীতে এনসিবি হানা দিতেই ধরা পড়েন আরিয়ান। এনসিবির দাবি সেদিন সেখানে মাদক নিচ্ছিলেন আরিয়ান এবং তার বন্ধুরা। যে কারণে প্রায় ১ মাস এনসিবির হেফাজতে থাকতে হয়েছিল আরিয়ানকে। ছেলের জন্য দুশ্চিন্তায় নির্ঘুম রাত কেটেছিল শাহরুখেরও। একইসঙ্গে তার নামও এই ঘটনায় ডুবে যায়।

সাংবাদিকের সঙ্গে শাহরুখের লড়াই : সাংবাদিকদের সঙ্গে বারবার বচসায় জড়িয়েছেন শাহরুখ। ১৯৯২ সালে যখন শাহরুখ সদ্য বলিউডের সুপারস্টার হয়ে উঠছেন ঠিক তখনই এক চলচ্চিত্র সাংবাদিকের সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। ম্যাগাজিন অফিসে গিয়ে ঝামেলা বাঁধিয়েছিলেন। যে কারণে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বিমানবন্দরে আটক করা হয়েছিল শাহরুখকে : ২০০৮ সালে নিউইয়র্কের লিবার্টি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে আটকানো হয়েছিল শাহরুখকে। এরপর ২০১২ সালের নিউ ইয়র্ক সিটি এবং ২০১৬ সালে লস এঞ্জেলসেও আটক করা হয় তাকে। কারণ তিনি ছিলেন মুসলিম ধর্মাবলম্বী। বারবার এভাবে আটক হতে হতে ২০১৬ সালে একটি টুইট বার্তায় ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে তিনি লিখেছিলেন, “ইউএস ইমিগ্রেশনে প্রত্যেকবার এভাবে আটকে রাখা সত্যিই ভীষণ খারাপ”।

মাই নেম ইজ খান নিয়ে বিতর্ক : পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের বিশ্বের সেরা টি-টোয়েন্টি খেলোয়াড় বলে রীতিমত বিতর্কের মুখে পড়ে গিয়েছিলেন শাহরুখ। যে কারণে মুম্বাইয়ের শিবসেনা দলের রোষের মুখে পড়ে যেতে হয় তাকে। এর ফলে ২০১০ সালে শাহরুখের ছবি ‘মাই নেম ইজ খান’ এর প্রদর্শনেও বাধা দেয় এই সংগঠন। এরপর গোটা বলিউড শাহরুখের পাশে দাঁড়ালে তবে বিতর্ক থেকে নিষ্কৃতি পান শাহরুখ।

ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে হাতাহাতি : ২০১২ সালের আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্স যে বার চেন্নাই সুপার কিংসকে হারিয়ে দেয়, ওইদিন ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে একজন সিকিউরিটি গার্ডের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েছিলেন শাহরুখ খান। শোনা যায় ওই দিন নাকি মদ্যপ অবস্থাতে শাহরুখকে স্টেডিয়ামে প্রবেশে বাধা দেন ওই নিরাপত্তারক্ষী। রেগে আগুন হয়ে কিং খান তাকে গালিগালাজও করেন। যে কারণে মুম্বাই পুলিশে এফ আই আর দায়ের হয় তার বিরুদ্ধে।

মহিলাকে শ্লীলতাহানির অপরাধে গ্রেপ্তার হন শাহরুখ : অনুপমা চোপড়া নামের একজন লেখিকা শাহরুখ এবং দীপা শাহীর একটি অন্তরঙ্গ দৃশ্য সম্পর্কে লিখেছিলেন তার বইতে। এতে ভীষণ রেগে গিয়ে শাহরুখ তাকে বলেন, ‘আমি তোমার জামা কাপড় খুলে তোমাকে আমার সাথে উলঙ্গ করে দাঁড় করিয়ে দেব। তুমি কি তাতে মজা পাবে?’ এতে পরবর্তীতে শাহরুখকে গ্রেপ্তার হতে হয়েছিল।

শাহরুখ এবং সালমানের দ্বন্দ্ব : শাহরুখ এবং সালমান, দুজনেই বলিউডের সেরা সুপারস্টার। তবে ২০০৮ সালে ক্যাটরিনা কাইফের জন্মদিনে এই দুই তারকা প্রকাশ্যেই বচসায় জড়িয়ে পড়েন। পরে অবশ্য সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তারা তাদের মধ্যের সমস্যা মিটিয়ে নেন। আরিয়ানের জেল হেফাজত হলে সবার আগে সালমানই ছুটে গিয়েছিলেন শাহরুখের বাড়িতে।