ভুল ভুলাইয়া সিনেমার মঞ্জুলিকা আসলে কেমন দেখতে, রইল ফটো গ্যালারি

বিদ্যাও নয়, কিয়ারাও নয়, আসল ‘মঞ্জুলিকা’র কাছে পাত্তা পাবে না বলিউডের কোনও অভিনেত্রী

Bhool Bhulaiyaa Manjulika Cannot Beat Manichitrathazhu Nagavalli Actress Shobana

সদ্য মুক্তি পেয়েছে ‘ভুলভুলাইয়া ২’ (Bhool Bhulaiyaa 2)। ২০০৭ সালে প্রিয়দর্শনের ‘ভুলভুলাইয়া’তে ছিলেন বিদ্যা বালান (Vidya Balan), অক্ষয় কুমার, শাইনি আহুজা, পরেশ রাওয়ালরা। ছবির সিক্যুয়েলে তাদের দেখা নেই। তাদের জায়গায় রয়েছেন কিয়ারা আদবাণী (Kiyara Advani), কার্তিক আরিয়ান। প্রথম ছবিটি দারুণ সাফল্য এনে দিয়েছিল বলিউডকে। যদিও এই ছবিটি ছিল দক্ষিণী ‘মণিচিত্রাথাজু’র (Manichitrathazhu) রিমেক। এই ছবির ‘নাগাভল্লী’ই হলেন বলিউডের মঞ্জুলিকা।

মঞ্জুলিকা নাকি নাগাভল্লী! যদি এই নিয়ে বিতর্ক হয় তাহলে দর্শকরা এক বাক্যে নাগাভল্লীকেই কয়েক পয়েন্ট বেশি রেটিং দিয়ে এগিয়ে রাখবেন। কেন? কারণ যদিও দুটি চরিত্র একই তবুও মঞ্জুলিকার তুলনায় নাগাভল্লীর প্রতি যেন দর্শকদের কিছুটা আলাদাই টান রয়েছে। এই কৃতিত্বের সবটাই দক্ষিণী অভিনেত্রী শোবানার (Shobana) উপর বর্তায়। নাগাভল্লীর চরিত্রে তিনি যেভাবে নিজেকে ঢেলে দিয়েছিলেন তাতে দর্শকরা তাকে সত্যি সত্যিই যেন প্রেম বিরহে কাতর এক অতৃপ্ত আত্মা বলে বিশ্বাস করতে শুরু করেন!

নাগাভল্লীর তাকানোর ভঙ্গিমা, বাচনভঙ্গি, আদব-কায়দার মধ্যে যেন আলাদাই এক ব্যাপার ছিল যা দর্শকদের বারবার শিহরিত করেছে। ২৫ বছর আগের সেই ছবিতে সুপারস্টার মোহনলাল, সুরেশ গোপিদের মত তাবড় তাবড় অভিনেতারা ছিলেন। কিন্তু শোবানা তার অসাধারণ অভিনয়ের দরুণ একাই সকলের নজর কেড়েছেন। আজ এত বছর পরেও যদি দর্শক সেই পুরনো ছবিটিই দেখতে বসেন তাহলে এখনকার ‘ভুলভুলাইয়া’র তুলনায় অন্তত ১০ গুণ বেশি ভয় পেতে বাধ্য হবেন।

ভৌতিক কিংবা হরর কমেডি নয়, ডার্ক সাইকোলজিকাল থ্রিলার ‘মণিচিত্রাথাজু’ ছবিতে একাধারে নার্ভাস গঙ্গা থেকে রক্তখেকো নাগাবল্লীর দ্বৈত ভূমিকায় দুটি চরিত্রেই অসাধারণ অভিনয় করেন শোবানা। শুরু থেকে যে ভৌতিক পরিবেশের মধ্য দিয়ে গল্প এগোয় তার প্রতি পদে পদে ভয় পেতে বাধ্য দর্শকরা। পরে জানা যায় ডিসোসিয়েটিভ আইডেন্টিটি ডিসঅর্ডারে ভুগছে গঙ্গা। নাগাভল্লীর সঙ্গে সে নিজের জীবনের মিল থেকে শুরু করে। এই পর্যায়ে তার জন্য সহানুভূতিও জাগে দর্শকদের মনে।

এই ছবির ভৌতিক গান ‘ওরুমুরাই ভান্ধু পার্থায়া’ও মালায়ালাম সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির জনপ্রিয় গান। নাচের মাধ্যমেও শোবানা তার দ্বৈত ব্যক্তিত্বের দারুণ প্রকাশ ঘটিয়েছিলেন। এতে শুধু তার অভিনয় দক্ষতা নয়, তার নাচের দক্ষতারও প্রমাণ মিলেছে। শান্ত-শীতল ব্যক্তিত্ব থেকে হঠাৎ চোখে-মুখে বন্য অভিব্যক্তি ফুটিয়ে তোলে দানবীয় উন্মত্ততার বহিঃপ্রকাশ ঘটানোর ধারেকাছেও ঘেঁষতে পারবেন না বলিউড অভিনেত্রীরা।