গাঁজাখুরি গল্পে শুধুই নোংরামি আর পরকীয়া, লালনের নোংরামি দেখে লীনা গাঙ্গুলীকে ধুয়ে দিল দর্শকরা

ফুলঝুরিকে মনে পড়লেও তিতিরকে ছাড়তে চাইছে না লালন, গাঁজাখুরি গল্প দেখে বিরক্ত দর্শকরা

এই তো সবেমাত্র স্টার জলসার (Star Jalsha) ধুলোকণা (Dhulokona) গল্পে লালঝুরির মিল দেখালেন লেখিকা লীনা গাঙ্গুলী, এরই মধ্যে আবার বদলে গেল গল্পের ট্র্যাক। লালন এবং ফুলঝুরির মধ্যে আবার সবকিছু আগের মতো ঠিক হওয়ার মধ্যেই লালনের চরিত্রে আসছে পরিবর্তন। এতদিন ডাক্তারবাবুর বাড়িতে খোলা হাওয়া-বাতাসের মধ্যে মনোরম পরিবেশে থেকে থেকে নাকি তার স্বভাবটাই গিয়েছে বদলে!

বস্তির ছেলে লালন এখন আর তার ঘুপচি বস্তিতে ফিরতে চায় না। ডাক্তারবাবুর বিলাসবহুল বাড়ি খোলামেলা পরিবেশ তাকে এতটাই টেনেছে যে সে এখনও ডাক্তারবাবুর বাড়িতেই রয়েছে! আসলে সমুদ্রে ভেসে গিয়ে স্মৃতিশক্তি হারিয়ে লালন ডাক্তারবাবুর বাড়িতেই উঠেছিল। সেখানেই সে ডাক্তারবাবু এবং তার স্ত্রীর কাছে ছেলের মত আদর যত্ন পেয়েছে। এখন স্মৃতিশক্তি ফিরে পেয়েও ফুলঝুরির কাছে আর ফিরতে চাইছে না সে। এসব দেখেশুনে দারুণ চটে গিয়েছেন দর্শকরা।

এই সপ্তাহের বেঙ্গল টপার ধুলোকণার গল্পের মধ্যে হঠাৎ হঠাৎ কিছু পরিবর্তন ঘটে গিয়েছে। যেমন আগে দেখানো হচ্ছিল তিতির লালন এবং ফুলঝুরির মিল ঘটাতে দিতে চায় না। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে তিতির ভীষণ ভাল মেয়ে। লালনের সঙ্গে বিয়ে করার নাটক করে সে আসলে তার স্মৃতিশক্তি ফিরিয়ে দিতে চেয়েছিল। শুধু তাই নয়, দর্শকরা যেখানে ভেবেছিলেন তিতির আসলে ফুলঝুরিকে দিয়ে ডিভোর্স পেপারে সই করিয়েছে সেটাও নাকি একটা নাটক।

লালনের স্মৃতি ফেরানোর জন্যই তাকে আরও একবার বিয়ের পিঁড়িতে বসানো হয়েছে, এতে ফুলঝুরির সম্মতি রয়েছে সেটা দেখানোর জন্যই কন্টাক্ট পেপারে সই করিয়ে নিয়েছিল তিতির। অর্থাৎ তিতির বরাবরই ভাল মনের মেয়ে ছিল, দর্শকরাই এতদিন তাকে ভুল বুঝেছেন। কিন্তু এরই মধ্যে আবার চ্যানেলে তরফ থেকে এপিসোডের একটি টুকরো দৃশ্য শেয়ার করা হয়েছে যা নিয়ে আবার শুরু হয়েছে সমালোচনা।

এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে লালন ফুলঝুরিকে ফোন করে বলছে তার নাকি তিতিরের বাড়িতেই থাকতে ভাল লাগে। কারণ সেখানে অনেক আলো-বাতাস রয়েছে। এতদিন সে এই বাড়িতে থেকেছে। এখানে থাকতে থাকতে এখানকার স্বাচ্ছন্দ্য ছেড়ে সে আর তার নিজের বাড়িতে ফিরে যেতে চাইছে না! তবে ফুলজুরি অবশ্য তাকে বলে ডাক্তারবাবুর বাড়ি তার নিজের বাড়ি নয়। তার নিজের বাড়িতে আলো-বাতাস নেই ঠিকই কিন্তু সেখানেই ফিরতে হবে এবং সেই নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হবে।

এদিকে ফুলঝুরির মুখে এসব কথা শুনে লালন ভাবে তাকে তার বউ জ্ঞান দিচ্ছে! এইসব দেখে তো সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়েছে দারুন সমালোচনা। দর্শকরা কেউ লিখছেন, “লালনের আরও বউ দেখার অপেক্ষায় রইলাম। সবে ৩ টে হল”। কেউ আবার গুড্ডি সিরিয়ালের অনুজের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে লিখছেন লালন আসলে অনুজ ম্যাক্স প্রো!