অপরাধের আঁতুরঘর টলিউড! ফাঁস হল টলিউড তারকাদের কোটি কোটি টাকার দুর্নীতির কেচ্ছা

অপরাধের আখড়া টলিউড! ফাঁস হল তারকাদের কোটি কোটি টাকার প্রতারণা

Avatar

Published on:

Tollywood Stars Accused For Scam : একাধিক দুর্নীতিতে উতপ্ত হয়ে আছে রাজ্য। আর সেই দূর্নীতিতে নাম জড়িয়েছে বিভিন্ন নেতা-মন্ত্রীর। আর তার কারণে এখনও জেলে আছে পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে অনুব্রত মণ্ডলের মত তাবড় তাবড় নেতা মন্ত্রীরা। তবে এই দূর্নীতির (Financial Scam) তালিকা থেকে বাদ যাননি বিভিন্ন টলিউড (Tollywood) তারকারাও। কোটি কোটি টাকার দুর্নীতিতে নাম জড়িয়েছে তাদেরও। চলুন জেনে নিই কোন কোন তারকাদের নাম জড়িয়েছে এই দুর্নীতিতে।

মিঠুন চক্রবর্তী (Mithun Chakraborty) : সারদা দূর্নীতিতে নাম জড়িয়েছিল এই নাম জাদা অভিনেতার। মিঠুনকে সারদা টিভি চ্যানেলের একটিতে উপস্থিত থাকার জন্য একটি মোটা অঙ্কের টাকা দিয়েছিলেন এই সংস্থা। তবে ২০১৫ সালে সারদা গোষ্ঠীর কাছ থেকে প্রাপ্ত অর্থ এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে ফেরত দিতে হয়েছিল অভিনেতাকে। তবে জিজ্ঞাসাবাদে মিঠুন জানিয়েছেন সরদার সঙ্গে তার সম্পর্ক সম্পূর্ণ পেশাদার ছিলো।

SAAYONI GHOSH

সায়নী ঘোষ (Saayoni Ghosh) : পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারিতে নাম জড়িয়েছে অনেকের। আর তাদের মধ্যে আছেন তৃণমূল কংগ্রেদের যুব শাখার সভাপতি সায়নি ঘোষ। আর এই তদন্তের বিষয়ে সায়নী ঘোষকে ১০ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল ইডি আধিকারিকরা।

বনি সেনগুপ্ত (Bonny Sengupta) : সায়নীর পাশাপাশি শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিতে নাম জড়িয়েছিল টলিউড অভিনেতা বনি সেনগুপ্তর। টিএমসি যুব নেতা কুন্তল ঘোষকে গ্রেফতার করে ইডি জিজ্ঞাসাবাদ করার পরে এই কেলেঙ্কারীর সঙ্গে বাঙালি অভিনেতার নাম উঠে আসে। কুন্তলের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার অভিযোগ ছিলো বনির বিরুদ্ধে। এর জন্য তাকে ২০২৩ সালে মার্চ মাসে তলব করা হয়েছিল। চার ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল তাকে। এমনকি বনিকে ৪০ লাখ টাকা ফেরত দিতে হয়েছিল।

NUSRAT JAHAN

নুসরত জাহান (Nusrat Jahan) : সম্প্রতি কোটি কোটি টাকার দুর্নীতিতে নাম জড়িয়েছে অভিনেত্রী নুসরত জাহানের। প্রতিবেদন অনুসারে, ফ্ল্যাট বিক্রির নামে কোটি কোটি টাকা নিয়েও কোনো রকম ফ্ল্যাট পাননি অভিযোগকারীরা।খবর অনুযায়ী, এক বিজেপি নেতা ব্যক্তিগতভাবে জাহানের বিরুদ্ধে ইডির সল্টলেক অফিসে এই অভিযোগ দায়ের করেছেন। এবিষয়ে ইতিমধ্যেই নুসরত সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন।

KUMAR SHANU

আরও পড়ুন : বলিউডের ৭ বিতর্কিত বিয়ে, যাদের ছিঃ ছিঃ করেছিল গোটা দুনিয়া, রয়েছেন ২ বাঙালি

কুমার শানু (Kumar Shanu) : একজন মহিলা ক্রিপ্টোকারেন্সিতে ৪০ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন। মহিলাটি দাবি করেছেন যে তিনি অভিযুক্তদের দ্বারা আয়োজিত একটি জুম মিটিংয়ে আইকনিক গায়ক কুমার শানুর মতো একজন ব্যক্তিত্বের উপস্থিতি দেখে তিনি বিনিয়োগ করেছিলেন। দীপ সাহু এবং বিমান দাস নামের দু’জন ওই মহিলাকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ৫০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করলে প্রতিদিন ১.৫ শতাংশ ফেরত পাবেন৷ কিন্তু ওই মহিলা কোনো টাকা ফেরত পায়নি।

আরও পড়ুন : দেব-শুভশ্রী থেকে রচনা, আরবানায় তারকাদের ফ্ল্যাটের দাম জানলে আকাশ থেকে পড়বেন