স্লট হারালো মিঠাই, কবে কোন নতুন স্লটে দেখবেন মিঠাই জানালেন পরিচালক

নিম ফুলের মধু এসে ছিনিয়ে নিল স্লট, মিঠাইয়ের নতুন টাইম স্লট জানালেন পরিচালক

প্রায় এক বছর সাত মাস সময় জুড়ে টেলিভিশনের পর্দা মাতিয়ে রেখেছে মিঠাই (Mithai)। তবে এতদিনে এসে সত্যি সত্যিই বিদায় নিচ্ছে জি বাংলা (Zee Bangla) টপার গার্ল মিঠাই। না, একেবারে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে না ধারাবাহিক। তবে মিঠাইয়ের সঙ্গে যা ঘটছে তাতে কার্যত আরও মন খারাপ ভক্তদের। ক্রমাগত টিআরপি কমতে থাকার কারণে অবশেষে ভক্তদের আশঙ্কাই সত্যি করে স্লট হারালো মিঠাই।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ক্রমাগত টিআরপিতে নিচের দিকে স্থান পাচ্ছে মিঠাই। টানা ৫৬ বারের টিআরপিতে টপার, অথচ শেষ কয়েক মাসে মিঠাইয়ের আসন ছিল টালমাটাল। গত তিন-চার সপ্তাহ ধরে সেরা পাঁচেও জায়গা হচ্ছে না মিঠাইয়ের। এদিকে আবার জি বাংলাতে আসছে নতুন সিরিয়াল নিম ফুলের মধু। এবার শোনা যাচ্ছে এই নতুন ধারাবাহিকই নাকি ছিনিয়ে নিচ্ছে মিঠাইয়ের স্লট।

আগামী ১৪ ই নভেম্বর থেকে নতুন সময় দেখানো হতে পারে মিঠাই। ইন্ডাস্ট্রিতে এমনই গুঞ্জন রটেছে। ইতিমধ্যেই মিঠাইয়ের নানা সোশ্যাল মিডিয়া ফ্যানপেজে এই নিয়ে জল্পনাও শুরু হয়ে গিয়েছে। ১৪ই নভেম্বর থেকে রাত ৮ টার স্লটে আসছে নিম ফুলের মধু। অন্যদিকে মিঠাইকে পাঠিয়ে সন্ধ্যা ৬.০০টার স্লটে। আপাতত এই সময় সম্প্রচারিত হয় পিলু। তবে পিলু খুব তাড়াতাড়িই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এই বিষয়ে এবার আনন্দবাজারের কাছে মুখ খুললেন পরিচালক রাজেন্দ্রপ্রসাদ দাস।

রাজেন্দ্রপ্রসাদ দাস আনন্দবাজারকে জানিয়েছেন, “যত দূর মনে হয় ১৪ নভেম্বর থেকে সন্ধে ৬টায় দেখা যাবে ‘মিঠাই’। জানি না ‘পিলু’ শেষ হচ্ছে না কি ওই ধারাবাহিকেরও সময় পরিবর্তন হচ্ছে।” টিআরপিতে অনেকটা পিছিয়ে পড়াতেই আজ মিঠাইয়ের সঙ্গে এমনটা ঘটছে বলে মনে করছেন ভক্তরা। এদিকে মিঠাইকে যদি এখনই রাত থেকে সন্ধ্যার স্লটে পাঠিয়ে দেওয়া হয় তাহলে টিআরপিতে আরও প্রভাব পড়তে পারে।

এই প্রসঙ্গে রাজেন্দ্র প্রসাদ দাস বলেছেন, “আমরা ওই ভাবেই দেখছিই না। মনে করছি একটা নতুন ধারাবাহিক এই সময়ে দেখানো শুরু হবে। নতুন হিসাবে যা যা করা উচিত তাই করব। আমি মনে করি, ভাল কাজ করলে তা ৬টা হোক কিংবা ৮টা— যে সময়ই দেখানো হোক না কেন, দর্শক পছন্দ করবে।” তাই আপাতত মিঠাই ম্যাজিকের উপরেই ভরসা রাখছেন নির্মাতারাও।

এদিকে মিঠাইয়ের স্লট পরিবর্তন হবে শুনে সোশ্যাল মিডিয়াতে রীতিমত ক্ষোভের আগুনে ফুঁসছেন ভক্তরা। জি বাংলা সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তারা। কোনও কোনও ফ্যানপেজ আবার এই সিদ্ধান্তে পরিবর্তন আনার জন্য টুইটারে প্রতিবাদ জানানোর ডাকও দিচ্ছেন। যদিও সিরিয়ালের ক্ষেত্রে টিআরপিই শেষ কথা।