মিঠাইয়ের অন্তিম সম্প্রচার কবে, শেষ পর্বের দিনক্ষণ জানিয়ে মুখ খুললেন সৌমিতৃষা

কবে শেষ হবে মিঠাই, অন্তিম পর্বের দিনক্ষণ জানিয়ে দিলেন সৌমিতৃষা

NEW ACTRESS COMING TO MITHAI SERIAL

একের পর এক দুঃসংবাদ আসছে মিঠাই (Mithai) ধারাবাহিক নিয়ে। জি বাংলার (Zee Bangla) টপার গার্লের সঙ্গে মাত্র কয়েক মাসেই ঘটে গেল অনেক কিছু। সঙ্গে চ্যানেলও ইতিমধ্যেই মিঠাইয়ের স্লটের পরিবর্তন ঘটিয়ে দিয়েছে। সেই সঙ্গে ধারাবাহিক বন্ধ হওয়ারও তুমুল জল্পনা শোনা যাচ্ছে। এবার এই বিষয়ে মুখ খুললেন ‘মিঠাই’ ওরফে অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু (Soumitrisha Kundu)।

একসঙ্গে অনেক কিছুই বদলে যাচ্ছে মিঠাইতে। স্লটের পরিবর্তনের পাশাপাশি গল্পতেই এবার কিছু পরিবর্তন আসবে। শোনা যাচ্ছে সিদ্ধার্থ এবং মিঠাইয়ের সন্তান নাকি এন্ট্রি নিতে চলেছে গল্পে। সেই সঙ্গে এও শোনা যাচ্ছে গল্প যেহেতু কয়েক বছর এগিয়ে যাবে তাই নাকি দাদু এবং ঠাম্মিকে মৃত দেখানো হবে। তবে আসলে কী ঘটতে চলেছে তা আগামী পর্বেই বিস্তারিত জানা যাবে।

আপাতত ১৪ই নভেম্বর থেকে দর্শকরা মিঠাই দেখবেন বিকেল ৬.০০ টার সময়। মিঠাইয়ের জন্য বন্ধ হয়ে যাচ্ছে পিলু। অন্যদিকে জি বাংলা নতুন ধারাবাহিক ‘নিম ফুলের মধু’র জন্যই মিঠাইকেও জায়গা ছেড়ে দিতে হল। তবে শুধু স্লট পরিবর্তনের খবরই নয়, এই মুহূর্তে মিঠাইকে নিয়ে আরও বড় একটা আপডেট উঠে আসছে।

শোনা যাচ্ছে স্লট পরিবর্তন হলেও মিঠাই আর খুব বেশিদিন টিভির পর্দায় দেখা যাবে না। আর বড়জোর ২-২.৫ মাস পর্যন্ত চলবে সিরিয়ালটি। অর্থাৎ ডিসেম্বরেই মিঠাই বন্ধ হওয়ার একটা সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। তাই মন ভীষণ খারাপ ভক্তদের। এরই মধ্যে ধারাবাহিক বন্ধ হওয়া নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু।

সৌমিতৃষা সংবাদমাধ্যমের কাছে বলেছেন, “যা শুরু হয়েছে তা তো একদিন না একদিন শেষ হবেই। কোনও কিছুই তো আর দিনের পর দিন চলতে পারে না। কোনও কিছুই চিরস্থায়ী নয়। আমি মিঠাই হয়ে এটা বলতে পারি যে এই মুহূর্তে ধারাবাহিক বন্ধ হচ্ছে না।” সেই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “ধারাবাহিক যখন বন্ধ হবে তখন দর্শক নিজেরাই তা বুঝতে পারবেন। তবে আমি বলব কবে সিরিয়াল বন্ধ হচ্ছে তা না ভেবে বরং দেখতে থাকুন। যে গল্পটা দেখানো হচ্ছে তা উপভোগ করুন।”

তিনি আরও বলেন যদি বারবার দর্শকরা ধারাবাহিক বন্ধ হওয়া নিয়ে চিন্তা করতে থাকেন তাহলে এখন যা দেখানো হচ্ছে তা উপভোগ করতে পারবেন না। সেই সঙ্গে টিআরপি ক্রমশ কমে যাওয়া নিয়ে তার বক্তব্য, “একটা সময়ে সব ধারাবাহিকের টিআরপি কমে, এটাই তো স্বাভাবিক। কত নতুন নতুন গল্প আসছে। সবকিছুকেই তো গ্রহণ করতে হবে দর্শকদের। এটা না সরলে নতুন কিভাবে জায়গা পাবে?”