পিতৃপরিচয়ই হল কাল, নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হল যশকে, শুরু হল বয়কট যশের ট্রেন্ড

নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হল যশকে, ঈশানের পিতৃপরিচয় ফাঁস হতেই বয়কট যশের ট্রেন্ড শুরু

0

অবশেষে সকল বিতর্কের অবসান ঘটিয়ে প্রকাশ্যে এসেছে নুসরাতপুত্র (Nusrat Jahan) ঈশানের (Yishaan) পিতৃপরিচয়। ঈশানের বাবা যশ (Yash Dasgupta)। খোদ কলকাতা পৌরসভার ওয়েবসাইটে খোদাই করা আছে এই তথ্য। অতএব যশরত পুত্রের জন্মের পর তাকে নিয়ে যে কাটাছেঁড়া চলছিল, এখন আর সেসব অর্থহীন। আর একথা জানাজানি হতেই ক্ষোভে ফুঁসছেন যশের অনুরাগীরা। বিশেষত যারা ছিলেন যশমিতার ফ্যান, তারা যশকে নুসরাতের সন্তানের বাবা হিসেবে যেন মানতেই চাইছেন না।

‘বোঝে না সে বোঝে না’য় যশ আর মধুমিতা সরকারের (Madhumita Sarcar) জুটিকে নিয়ে দর্শকমহলে বেজায় উন্মাদনা তৈরি হয়েছিল। ধারাবাহিক শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও সেই উন্মাদনা অব্যাহত। এমতাবস্থায় যশমিতার অনুরাগীরা কিছুতেই যশরতকে মানতে নারাজ। যশের পাশে তারা শুধু মধুমিতাকেই দেখতে চান। নুসরাতকে নয়। যশরতকে নিয়ে যখন একের পর এক বিতর্ক চলছে, তখনও তারা তাতে আপত্তি তুলেছিলেন।

Yash Dasgupta Nusrat Jahan Madhumita Sarcar

অবশেষে নুসরাতের সন্তানের পিতৃপরিচয় জানাজানি হতেই তাদের ধৈর্যের বাঁধ ভাঙলো। বুধবার রাতে কলকাতা পুরসভার ওয়েবসাইটে নুসরতের সন্তানের বাবার নামের জায়গায় যশের নাম দেখেই রীতিমতো তেলে-বেগুনে জ্বলে উঠলেন যশমিতার অনুরাগীরা। বৃহস্পতিবার যশমিতার একটি ফ্যান পেজ থেকে যশকে বয়কট করার ডাক উঠেছে। যশের একটি ছবির উপর ‘ব্যানড’ লিখে দিয়ে তাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Yashmita_ mishti (@yashmita__mishti)

ছবির তলাতেও হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে বড় হরফে লেখা রয়েছে, “আমরা যশ দাশগুপ্তকে চাই না”! যশের বাকি অনুরাগীদের এরপর থেকে আর যশকে সমর্থন না করার আহ্বান জানানো হয়েছে ওই পোস্টে। যশই যে ঈশানের বাবা, সেই চর্চায় এতদিন সোশ্যাল মিডিয়া ছিল উত্তপ্ত। যতদিন পর্যন্ত প্রকাশ্যে তার খোলাসা হয়নি, ততদিন যশের অনুরাগীরা ধৈর্য ধরে ছিলেন। কিন্তু যেই কলকাতা পুরসভা থেকে ঈশানের বার্থ সার্টিফিকেট ফাঁস হলো, অমনি যশকে বয়কট করার সিদ্ধান্ত নিলেন যশের অনুরাগীরা।

Nusrat Jahan Son Yishaan J Dasgupta Birth Certificate Leaked

ইনস্টাগ্রাম জুড়ে এখন বয়কট যশের ট্রেন্ড উঠছে। শত বিতর্কের মুখে পড়েও এতদিন মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন যশরত। ঈশানের পিতৃপরিচয় নিয়ে বারবার প্রশ্নের সম্মুখীন হলেও নুসরাতের জবাব ছিল, “বাবা কে তা বাবাই জানে।” নুসরাত জানিয়েছিলেন, তিনি এবং যশ ঈশানের অভিভাবকত্ব সামলাচ্ছেন। পরে অবশ্য সদ্যজাতের পিতৃত্বের দায়ও নিলেন যশ। আর এতেই বেজায় চটেছেন তার অনুরাগীরা।