Viral Video : অভিনন্দনকে নিয়ে চায়ের বিজ্ঞাপন বানালো পাকিস্তান

1850

পাকিস্তানের চায়ের বিজ্ঞাপন ভারতীয় উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান! কখনো ভেবে দেখেছেন এমনটা হতে পারে! হতে পারে নয়, একেবারেই হয়েছে। এমনই একটি চায়ের বিজ্ঞাপন ইতিমধ্যেই ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

পাকিস্তানের আকাশে ৮০ কিলোমিটার প্রবেশ করে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ার স্ট্রাইকের পর পাকিস্তান প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য ভারতে পাঠায় তাদের যুদ্ধবিমান। সেই পাকিস্তানি F-16 যুদ্ধবিমানকে ধাওয়া করেছিলেন উইং কম্যান্ডার। পাকিস্তানে পাঠানো ওই যুদ্ধ বিমান গুলির মধ্যে একটিকে ধ্বংস করেছিলেন ভারতীয় উইং কমান্ডার অভিনন্দন। মিগ ২১ যুদ্ধবিমান নিয়ে পাকিস্তানি এফ-১৬ বিমানকে ধ্বংস করার সময় অভিনন্দনের যুদ্ধবিমান ততক্ষণে ঢুকে পড়ে পাকিস্তানের আকাশ সীমানায়। পাক সেনারা গুলি করে অভিনন্দনের যুদ্ধ বিমান আকাশ থেকে মাটিতে নামায়। পরিস্থিতি বুঝতে পেরে অভিনন্দন নিজেকে এজেক্ট করে প্যারাসুটের মাটিতে নামে। তারপর পাকিস্তানি সেনাদের হাতে আটক হয় অভিনন্দন। কূটনৈতিক চাপে পড়ে ১লা পয়লা মার্চ অভিনন্দনকে ভারতের হাতে তুলে দিতে বাধ্য হয় পাকিস্তান।

এই এত ঘটনার মাঝে যে ৫৮ ঘন্টা বা তার বেশি সময় অতিবাহিত হয়েছিল, সেই সময় পাকিস্তানের তরফ থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছিল, যাতে দেখা যাচ্ছিল অভিনন্দন চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে ভালো থাকার কথা বলছেন। সাথে সাথে তিনি আরও বলছেন পাকসেনারা তার সাথে ভালো ব্যবহার করেছে। অবশ্য তার চোখে-মুখে কালশিটে দাগ দেখে বোঝা যাচ্ছিল পাকিস্তানি সেনারা তার উপর কতটা ভালো ব্যবহার করেছে। চায়ের কাপ হাতে অভিনন্দন বলেছিলেন, ‘চমৎকার চা’।

এই ‘চমৎকার চা’ কথাটিকে ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে একটি চায়ের বিজ্ঞাপন, যেটি ইতিমধ্যেই তোলপাড় করেছে সোশ্যাল মিডিয়া। তেপল চা নামে একটি সংস্থার অভিনন্দনের মুখের কথাকে ব্যবহার করে তৈরি করেছে নতুন বিজ্ঞাপন। যে বিজ্ঞাপনে দেখা যাচ্ছে, পাক হেফাজতে থাকা ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডার বলছেন, ‘এই চা চমৎকার। ধন্যবাদ।’ এমনটাই দাবি।

টুইটারে চায়ের সংস্থার তৈরি সেই বিজ্ঞাপন পোস্ট করা হয়েছে। অজস্র ইউজার সেই পোষ্টটি শেয়ার করেছেন। এমনকি কয়েকটি ভেরিফাইড টুইটার একাউন্ট থেকে এই ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে। ফেসবুক এবং হোয়াটসঅ্যাপেও এ কিভাবে ভাইরাল এই ভিডিও।

তবে দেখা যাচ্ছে, ওই সংস্থা ভারতীয় উইং কমান্ডারের ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করে কোন রকম বিজ্ঞাপন তৈরি করেন নি। ওই চা সংস্থার ওয়েবসাইট ঘেঁটেও এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি, যাতে করে উইং কমান্ডার অভিনন্দনের ছবি বা ভিডিও ব্যবহারের উল্লেখ রয়েছে। চা সংস্থার ওই বিজ্ঞাপনের ভিডিওতে অভিনন্দনের ভিডিও এডিটের মাধ্যমে যোগ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করা হয়। কেউ বা কারা মজার ছলে এডিট করে ওই ভিডিওটি পোস্ট করে এবং সেটি ভাইরাল হয়ে পড়ে।