হিন্দু বিয়েতে বিয়ের অনুষ্ঠানে পাত্রের মা থাকতে পারেন না কেন ? 

কত আয়োজন। কত আড়ম্বর। অথচ থাকতে পারেন না মা। বিশেষ নিষেধাজ্ঞা চাপে পাত্রের মা-এর উপর। বিয়ে দেখতে পারবেন না তিনি। উপস্থিত থাকতে পারেন না মন্ডপে। কেন? এই নিয়ে সনাতন হিন্দু ধর্মে দুটি মত চলে আসছে। দেখে নেওয়া যাক – হিন্দু বিয়েতে বিয়ের অনুষ্ঠানে পাত্রের মা থাকতে পারেন না কেন ?

Source

১) মা বিয়ে দেখলে সেটা পাত্র বা পাত্রীর ভবিষ্যৎ জীবনে কুপ্রভাব ফেলতে পারে। এমন একটা ধারণার প্রচলন আছে আমাদের সমাজে। তাঁদের না থাকাটাই মঙ্গল কামনা জানায় নবদম্পতিকে। যদিও বর বা পাত্রকে প্রথম বরণের অধিকার কনে বা পাত্রীর মা-এরই।
অবশ্য এর পর আর দেখার উপায় থাকে না কনের মাকে। বিবাহের অনুষ্ঠান থেকে দূরে থাকতে হবে তাঁকে।

আরো পড়ুন : কুকুরদের প্রকাশ্যে যৌনসঙ্গম করার পেছনে রয়েছে একটি পৌরানিক কাহিনী

Source

২) পুরাণ মতে, বিয়ে করার জন্য বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন কার্তিক। হঠাত তার চোখ পড়ল মা দুর্গার দিকে। কার্তিক দেখলেন, গোগ্রাসে খাচ্ছেন দুর্গা। যেন সারাদিন খেতে পাননি। প্রায় সাত বার দুর্গাকে খেতে দেখে অবাক হয়ে গেলেন কার্তিক। মাকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘তুমি এভাবে খাচ্ছ কেন?’

দুর্গার উত্তর, ‘যতটা পারি এখন খেয়ে নিই। কারণ তুমি বিয়ে করলে তোমার স্ত্রী এই পরিবারেরই একজন হবে। সে যদি আমাকে খেতে না দেয় (চেনা চেনা লাগছে! একেবারে বাংলা সিরিয়ালের বৌমা-কথার মতো)!

আরো পড়ুন : হিন্দু বিয়ের কিছু প্রথা যা অবিলম্বে বন্ধ হওয়া উচিৎ


মায়ের কথা শুনে কার্তিক প্রতিজ্ঞা করলেন, ‘যদি এমন সম্ভাবনা থাকে তাহলে আমি কোনও দিন বিয়ে করব না।’
এটাই কার্তিকের অবিবাহিত থাকার কারণ, এখনও পর্যন্ত।
শুরুটা দুর্গাই করেছিলেন, কিংবদন্তী এমনই বলে। তাই বাঙালি মায়েরা নিশ্চিন্তে থাকুন। দোষের আঙুল উঠলে সেটা সবার আগে বাড়ির মেয়েকেই নিশানা করবে।

যদিও এমন অনেক মা-ই আছেন যারা এইসব ধ্যান-ধারণা পাত্তাও দেন না। দিব্যি উপস্থিত থাকেন বিয়ের অনুষ্ঠানে। অনেকে মানেন। আপনি কি করবেন সেই সিদ্ধান্ত আপনারই।

আরো পড়ুন : বিয়ের পিঁড়ি তে বসছেন মুকেশ আম্বানির মেয়ে ইশা! জানেন কী ইশার জীবনসঙ্গী কে ?