ভাত না রুটি ? সুস্থ থাকতে কোনটি খাবেন?

বাঙালি সারাদিনে একবার ভাত খাবে না, সেটা হতেই পারে না। অনেক তো দিনে তিনবারও ভাত খায়। তবে আজকাল অনেকেই এখন ভাতের থেকে রুটি খাচ্ছেন। স্বাস্থ্য-সচেতনতা এর প্রধাণ কারণ৷ অনেকে আবার ভাত খেতে একেবারেই ভালোবাসেন না বলে রুটিকেই প্রধান খাবার হিসেবে বেছে নিচ্ছেন। কিন্তু কোনটা বেশি উপকারী? ভাত না রুটি ? কোনটা খাবেন ? ভাত এবং রুটি এক সঙ্গে খেলে শরীরের কি কোনও ক্ষতি হয়? আসুন জেনে নিই।

ভাত ও রুটির মধ্যে পুষ্টির পার্থক্য কি?

  • ভাত এবং রুটিতে কার্বোহাইড্রেট ও ক্যালরির পরিমাণ সমান
  • ভাত এবং রুটির মধ্যে গ্লাইসেমিক ইনডেক্স সমপরিমাণ থাকে।
  • ভাত এবং রুটির মধ্যে সমান পরিমাণে আয়রন থাকে।
  • রুটির মধ্যে ভাত এর তুলনায় বেশি খাদ্যজ তন্তু থাকে ফলে রুটি দীর্ঘক্ষন পেটভর্তি রাখে।
  • ভাতের মধ্যে স্টার্চের পরিমাণ বেশি থাকায় এটি দ্রুত হজম হয়।
  • ফোলেট ভাতের মধ্যে বেশি পরিমাণে থাকে এবং রুটির তুলনায় বেশি পরিমাণে জলে দ্রবণীয় ভিটামিন বি ও থাকে।
  • রুটির মধ্যে পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, সোডিয়াম, প্রোটিন এবং ক্যালসিয়াম ভাতের তুলনায় বেশি।

৩০ গ্রাম ভাতের ক্ষেত্রে কার্বোহাইড্রেট থাকে ২৩ গ্রাম। আবার ৩০ গ্রাম আটার ক্ষেত্রে  কার্বোহাইড্রেট থাকে  ২২ গ্রাম। ভাতে প্রোটিন  থাকে ২ গ্রাম আর আটা বা রুটির ক্ষেত্রে প্রোটিন থাকে ৩ গ্রাম। ভাতে ফ্যাট থাকে ০.১ গ্রাম এবং আটা বা রুটিতে ফ্যাট থাকে ০.৫ গ্রাম। ভাতে ফাইবার থাকে ০.১ গ্রাম  এবং আটা বা রুটিতে থাকে ০.৭ গ্রাম। ভাতে আয়রন থাকে ০.২ মিলিগ্রাম এবং রুটিতে থাকে ১.৫ মিলিগ্রাম। একই পরিমাণ ভাতে ক্যালসিয়াম থাকে ৩ মিলিগ্রাম এবং আটাতে বা রুটিতে থাকে ১২ মিলিগ্রাম। ভাতে এনার্জি   থাকে ১০০ ক্যালোরি ও আটাতে থাকে ১০০ ক্যালোরি।

আরও পড়ুন :- এই ৯টি খাবার কখনোই খালি পেটে খাওয়া উচিত নয়

ভাত এবং রুটি একসঙ্গে খাওয়া উচিত?

একসঙ্গে ভাত এবং রুটি খেলে শরীরের কোনও ক্ষতি হয় না। ১ বাটি ভাত খেলে শরীরে যে পরিমাণ ক্যালোরি প্রবেশ করে, ২ টো রুটি খেলেও সেই একই ঘটনা ঘটে। যেখানে পার্থক্য়টা তৈরি হয়, সেটা ফাইবার কনটেন্টের দিক থেকে। রুটি খেলে শরীরে ফাইবারের চাহিদা পূরণ হয়। সেই সঙ্গে শরীরে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পায় না। কিন্তু ভাত খেলে শরীরে শর্করার মাত্রা চোখে পরার মতো বৃদ্ধি পায়। সেই কারণেই তো ডায়াবেটিস রোগীদের ভাত খেতে মানা করেন চিকিৎসকেরা।

আরও পড়ুন :-  রোজ পোস্ত খেলে কী কী উপকার পাবেন

কিন্তু আধুনিক চিকিৎসকেদের একাংশ মনে করেন একেবারে আলাদা চরিত্রের দুটি খাবার একসঙ্গে খেলে শরীরের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। চিকিৎসকদের মতে, এই দুটি খাবার একসঙ্গে খেলে শরীরে কার্বোহাইড্রটের পরিমাণ এক ধাক্কায় অনেকটা বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে শরীরের পক্ষে একসঙ্গে এই দুটি খাবার হজম করা অনেক ক্ষেত্রেই কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। ফলে বদ হজম বা পেট খারাপ হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়।

সব মিলিয়ে ভাত, রুটি দুটিতেই রয়েছে উপকার। চিকিৎসকরা তাই মনে করেন, ভাত ও রুটি মিশিয়েই খাওয়া উচিত। দুটি খাবারই শরীরের কোনও না কোনও প্রয়োজন পূরণ করে। ভাতের তুলনায় কিন্তু বেশ কয়েক পা এগিয়ে রাখতে হবে রুটিকে। কিন্তু ভাতেরও অজস্র উপকারিতা রয়েছে যা অগ্রাহ্য করা চলে না। সবচেয়ে ভালো হয় যদি সুস্থ থাকতে চান তা হলে ভাত এবং রুটি দু’টিকেই আপনার খাদ্যতালিকায় রাখুন। সুস্থ থাকার সবচেয়ে বড় চাবিকাঠি হলো খাবারের পরিমাণ এবং ভারসাম্য বজায় রাখা। তাই অল্প রুটি এবং ভাত মিশিয়ে খেলে বরং আপনার সুস্থ থাকাই নিশ্চিত হবে।