ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ড হারালে কী করবেন এবং কিভাবে উদ্ধার করবেন?

আজকালকার দিনে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেন না এমন মানুষ কমই আছেন বোধ হয়।খালি প্রয়োনজনের সাপেক্ষে নয়, স্ট্যাটাস মেন্টেন করতেও এর ভূমিকা অনেক। তবে এই কার্ড ব্যবহার এর যেমন সুবিধা আছে..আছে তেমনি অসুবিধাও, যার জন্যে নাকাল হচ্ছেন বহু মানুষ;কার্ড হারিয়ে যাওয়া, টাকা তছরূপ এরকম বহু সমস্যা। আসুন দেখে নেওয়া যাক, কার্ডটিকে অপহাতে পড়ার থেকে বাঁচার জন্য কি করবেন;তবে অবশ্যই অবগত থাকতে হবে যে কার্ডটি হারিয়ে গেছে..

ক্রেডিট কার্ড হোক বা ডেবিট কার্ড- হারিয়ে যাওয়ার পর প্রথম কাজটিই হল বিষয়টি ব্যাঙ্কের দৃষ্টিগোচরে নিয়ে আসা। কারণ, মূল বিষয়টিই হল এর অপব্যবহার রোধ করা। তবে পাশাপাশি পূরণ করতে হবে আরও কয়েক শর্ত।কার্ডটা হারিয়ে গেছে জানার পর,সর্বপ্রথম যে কাজ টি করতে হবে সেটি হলো- ব্যাংক এ সত্বর ফোন করে কার্ডটিকে ব্লক করতে হবে, ফলে ব্লক হওয়ার পরে আর কোনো ট্রানস্যাকসন এর দায় থাকবে না আপনার উপর।

রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার নির্দেশ অনুসারে, আপনার কার্ড হারিয়ে গেলে বা চুরি গেলে ব্যাংক এর দায়িত্ব হবে আপনাকে প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা করা। অবশ্যই ব্যাংক এর উপর দায়িত্ব বর্তায় যাতে আপনার টাকা অপহস্তে পড়ে আপনার ক্ষতি না হয় কোনোরকমের।

আরও পড়ুন : এটিএম, ক্রেডিট ও ডেবিট কার্ডের কাজ এবং পার্থক্য

তবে অধিকাংশ ক্রেডিট কার্ড কোম্পানিই নিজেদের স্বার্থে সবরকম দায়িত্ব থেকে হাত সরিয়ে নেয়। ফলে কার্ড হারিয়ে যাওয়ার নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কার্ড ব্লক না করলে আপনার উপর সমূহ বিপদ নেমে আসার সম্ভাবনা থাকে।

প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই বিমা সুরক্ষার আওতাধীন হওয়ায় কার্ড হারিয়ে ফেলা গ্রাহক পুরো অর্থই পেয়ে থাকেন। তবে সব সময় মাথায় রাখতে হবে, কার্ড হারানোর সঙ্গে সঙ্গে ব্যাঙ্কের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে হবে, যাতে তারা কার্ডটিকে ব্লক করে দিতে পারে। অন্য দিকে থানায় এফআইআর দায়ের আবশ্যক।

আরও পড়ুন : ATM প্রতারণার ফাঁদ থেকে কীভাবে বাঁচবেন? জানুন সহজ কিছু উপায়

তাই ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড নেওয়ার আগে অবশ্যই ভালো করে সেই কোম্পানির নির্দেশাবলী ভালো করে পড়ে নেবেন। নচেৎ কার্ড হারিয়ে যাওয়ার পরেও কার্ড থেকে আপনার অজ্ঞাতে কোনোরকম ট্রানজাকসন হলে আপনাকে তা যথাযত  প্রমান দিতে হবে আইনি পদক্ষেপের মাধ্যমে।

যদি আপনি প্রমান করতে পারেন যে কার্ডটি হারানোর পর যাবতীয় আর্থিক লেনদেন আপনার অজ্ঞাত অবস্থায় হয়েছে। কোম্পানি আপনাকে যথাযথ চোট যাওয়া টাকা ফিরিয়ে দিতে দায়বদ্ধ থাকবে। তবে, এই সম্পূর্ণ পদ্ধতিটি অসম্ভব সময় সাপেক্ষ এবং কোম্পানির গ্রাহকের প্রতি সহযোগিতার উদ্যোগের উপর নির্ভর করে।

কার্ড হারিয়ে গেলে… অযাচিত আর্থিক লেনদেন নিয়ে ওয়াকিবহাল থাকবেন সবসময় এবং যত শীঘ্র সম্ভব কার্ডটি ব্লক করার জন্যে ব্যাংক এ রিপোর্ট করবেন।

আরও পড়ুন : ATM থেকে নকল নোট পেলে কি করা উচিত ?

দেশের সীমারেখার মধ্যে এইরকম কোনো আর্থিক প্রতারণার শিকার হলে পুলিশে FIR এর দ্বারস্থ হতে পারেন। তবে দেশের সীমারেখার বাইরে থেকে কেউ এইরকম প্রতারণায় আক্রান্ত হলে তাকে পাসপোর্টের কপি জমা দিতে হবে।

কার্ড হারিয়ে গেলে বা চুরি গেলে ব্যাংক নতুন কার্ড দিতে বাধ্য থাকবে সামান্য মূল্যের পরিবর্তে। কিছু কিছু ব্যাংক ১০০টাকা অব্দিও ধার্য করে।

কার্ড হারিয়ে গেলে স্বতঃস্ফূর্ত এবং দ্রুততার সাথে পদক্ষেপ গুলি নেবেন। আপেক্ষিক ভাবে এই পদক্ষেপ গুলিই আপনাকে বিপদের হাত থেকে রক্ষা করতে পারবে এবং যথাযথ ভাবে উপভোগ করতে পারবেন কার্ড এর বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা।