বাংলার রাজনীতিতে মুসলিম ভোট কতটা গুরুত্বপূর্ণ? ‘ভোট’ ধরতে মমতার প্ল্যান কী

what is the importance of Muslim vote in west Bengal election

২০২১ এর বিধানসভার আগেই রাজ্যের রাজনীতিতে নয়া মোড়।নতুন দল ঘোষণা করেছেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী (Abbas Siddique)। এই নতুন দলের গঠন আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বড় প্রভাব ফেলবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

ইতিমধ্যেই তৃণমূল ভবনে মুর্শিদাবাদ জেলার নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) সংগঠনের লোকেদের এই বলে আশ্বস্ত করেছেন যে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে কোনো গুরুত্ব নেই আসাদুদ্দিন ওয়েইসির (Asaduddin Owaisi) দলের অর্থাৎ মিমের।

পীরজাদার নতুন দলের কি প্রভাব পড়তে পারে নির্বাচনে?

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন এই নতুন দল প্রভাব ফেলতে পারে নির্বাচনে। রাজ্যের বেশ কিছু অংশে  মূলত মুর্শিদাবাদ, মালদা, উত্তর দিনাজপুর এবং উত্তর ২৪ পরগনা জেলার একাংশে এবং পাশাপাশি দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরে মুসলিম ভোটারদের ভোট বিশেষ গুরুত্ব রাখে। কিছুবার তাদের নিয়ন্ত্রকের ভূমিকাতেও দেখা গেছে।

what is the importance of Muslim vote in west Bengal election

এতদিন সংখ্যালঘুর ভোটকে তুরুপের পাস বানিয়েই নিজের দান সাজাচ্ছিল বর্তমান শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস কিন্তু এবার আব্বাস সিদ্দিকির দল সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্ক এ একটি বড় প্রভাব ফেলবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। এর ফলে সংখ্যালঘুর ভোট তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বেশ কিছুটা কাটতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে।

মুর্শিদাবাদে শুভেন্দু ও মিমের দ্বৈত প্রভাব

পূর্বে মুর্শিদাবাদ জেলা পর্যবেক্ষণের দায়িত্বে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী (Shubhendu Adhikari)।তিনি এখন বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় মুর্শিদাবাদের পরিস্থিতি অনেক পাল্টেছে। বর্তমানে তৃণমূল সুপ্রিমো অবশ্য নিজেই সেইদিকে নজর রাখছেন।  তৃণমূল ভবনে বৈঠক করে নিজেই জেলার নেতাদের সাথে কথা বললেন তিনি। কিন্তু শুধু শুভেন্দু অধিকারী নযন, মিমের প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েইসি ঘোষণাও এই জেলার সমীকরণে বেশ হেরফের ঘটিয়েছে।

মুর্শিদাবাদ মূলত সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকা। সেখানে মিমের প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েইসি ঘোষণা করেছিলেন এই জেলার প্রতিটি কেন্দ্রেই প্রার্থী দেবে তার দল। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছিলেন এর ফল পড়বে নির্বাচনেও। তবে এদিন জেলা কর্মীদের সভায় সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নিজেই। তিনি দলীয় কর্মীদের আশ্বাসন দিয়ে বলেন মিমের কোনও প্রভাব পড়বে না। মিমের গুরুত্বকে কার্যত অস্বীকার করে দেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

মুর্শিদাবাদে বিজেপির ভবিষ্যতবাণী মুখ্যমন্ত্রীর

রাজ্যের সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতে মুর্শিদাবাদ জেলায় বিরোধী দলের মর্যাদাও পাবেনা বিজেপি। তিনি বলেন, মুর্শিদাবাদে তিন নম্বর হবে বিজেপি। সভায় তিনি আরও বলেন, বিজেপি উস্কানি ছড়াবে তবে তাতে একদমই কর্ণপাত করলে চলবেনা। দলের বিধায়কদের তিনি ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার পরামর্শ দিলেন।পাশাপাশি নিজ নিজ অঞ্চলে জমি আকড়ে থাকার পরামর্শও দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন : নরেন্দ্র মোদীর পর কে হবেন বিজেপির প্রধানমন্ত্রী, দেখে নিন তালিকা

সংগঠনকে মজবুদ করতে নয়া পদক্ষেপ

দলীয় সংগঠনকে মজবুদ করতে নয়া পদক্ষেপ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পাঁচ জনের একটি স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করলেন যাতে আছেন জাকির হোসেন, মহম্মদ সোহরাব, আবু তাহের, সুব্রত সাহা ও খলিলুর রহমান। বৈঠকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূলের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোর উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন: মমতার এই ২ পদক্ষেপে চরম চাপে বিজেপি, বদলে যেতে পারে ভোটের ছবি