ফের নিম্নচাপ, টানা ৪ দিন তুমুল বৃষ্টির পূর্বাভাস, জারি গেরুয়া সর্তকতা

চলতি বছর বর্ষার আগমন ঘটে সঠিক সময়ে। পাশাপাশি অন্যান্য বছরের তুলনায় প্রথম থেকেই বেশি বৃষ্টি হয়েছে। এরপর জুলাই মাসে বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা কমলেও আগস্ট মাস থেকে নতুন করে বেড়েছে বৃষ্টির পরিমাণ। আর এই বৃষ্টির পরিমাণ বৃদ্ধির মূলে রয়েছে একের পর এক নিম্নচাপ।

ইতিমধ্যেই বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপ তার প্রভাব দেখিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। সম্প্রতি গত শনিবারই একটি নিম্নচাপের রেস শেষ হয়েছে। আর এরপর আবার একটি নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে বঙ্গোপসাগরে। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস নতুন করে তৈরি হওয়া এই নিম্নচাপের প্রভাব চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।

নতুন করে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের প্রভাবে দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ জেলায় অতিভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। যে কারণে ইতিমধ্যেই আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফ থেকে গেরুয়া সর্তকতা জারি করা হয়েছে। প্রথম দফায় হলুদ সর্তকতা জারি করা হলেও পরে গেরুয়া সর্তকতা জারি করা হয়। আর এই নিম্নচাপের প্রভাব ২৪ তারিখ থেকে আগস্ট মাসের ২৭ তারিখ পর্যন্ত থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আর নতুন করে তৈরি হওয়া এই নিম্নচাপের প্রভাবে সব থেকে বেশি বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বুধবার অর্থাৎ ২৬ শে আগস্ট গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। তুলনামূলক বেশি বৃষ্টিপাত হবে দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে। কলকাতা, হাওড়া, হুগলি সহ পার্শ্ববর্তী জেলাগুলিতে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।

ভারী বৃষ্টি হবে উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে। আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বৃষ্টি চলবে বলে মনে করা হচ্ছে। নীচু এলাকায় জলমগ্ন হতে পারে। বাড়বে নদীর জলস্তরও। এই ক’দিন মৎসজীবীদের সমুদ্র যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে ইতিমধ্যেই দক্ষিণ বঙ্গের জেলাগুলির নদনদীর জলস্তর অনেকটা বেড়ে গেছে। আর আবার নতুন করে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনায় জলস্তর আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আর এই নিম্নচাপের কারণে বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাসের দরুণ ইতিমধ্যেই ২৭ তারিখ পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।