চার জেলায় শুরু অঝোর বৃষ্টি, সন্ধ্যায় বজ্রবিদ্যুত্‍ সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস

ভ্যাপসা গরম কে মুক্তি দিয়ে আজ, বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শুরু হল প্রাক বর্ষার বৃষ্টি। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী আজ দক্ষিণবঙ্গের চার জেলায় শুরু হয়েছে বৃষ্টি। কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগণা, দক্ষিন ২৪ পরগণায় বজ্র বিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির দেখা মিলল সকাল থেকে।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় বর্ষা বঙ্গে প্রবেশের সম্ভাবনা। ইতিমধ্যেই অসম পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু। উত্তর-পূর্ব ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্যে ঢুকেছে বর্ষা। উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আগামী ৪৮ ঘণ্টায়। দক্ষিণবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর৷

তবে উত্তরবঙ্গ গরম থেকে হাফ ছেড়ে বাঁচলেও এখনই রেহাই নেই দক্ষিণবঙ্গের। বরং দক্ষিণবঙ্গে এই হাঁসফাঁস অবস্থা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বিপুল পরিমাণে বাড়ার ফলে এই সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

পাশাপাশি সুখবর এটাও যে সক্রিয় রয়েছে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু। যে কারণে সঠিক সময়ে পশ্চিমবঙ্গে বর্ষা ঢুকে যাওয়ার বার্তা পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যেই মায়ানমারের বেশ কিছু অংশের ঢুকে পড়েছে বর্ষা। মৌসুমী বায়ুর একটা অংশ ঢুকে পড়েছে উত্তর বঙ্গোপসাগরে।

এরপর উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির মধ্য দিয়ে উত্তরবঙ্গে প্রবেশ হবে বর্ষার। অনুমান করা হচ্ছে আগামী ৪৮ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই অর্থাৎ চলতি সপ্তাহে ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করবে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু।

আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ ঘনীভূত হয়েছে। আর এই নিম্নচাপের হাত ধরেই বর্ষার আগমনে গতি মিলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

অন্য দিকে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপটি ক্রমশ শক্তি সঞ্চয় করে চলেছে। তার জেরে ওড়িশা উপকূলে ভারী বৃষ্টির সতর্কতাও জারি করা হয়েছে। মৎসজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হচ্ছে।

বঙ্গোপসাগরের উপরে নিম্নচাপের ফলে মৌসুমী বায়ু আরও সক্রিয় রয়েছে। তার ফলে রাজ্যে বর্ষা ঢোকার পথ প্রশস্ত হয়েছে। গত কয়েক দিন দক্ষিণের তুলনায় উত্তরবঙ্গে বৃষ্টি বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা।