ক্রিকেটে ১১ রকমের আউট হয়, কখন কোন আউট দেওয়া হয়?

Types of Out in Cricket : All You Need to Know

Types of Out in Cricket : গত দুই মাস ধরে অনুষ্ঠিত হলো ক্রিকেট (Cricket) বিশ্বকাপ (World Cup 2023)। আর ক্রিকেট ভালোবাসেনা এমন বাঙালি হয়তো খুব কম খুঁজে পাওয়া যাবে। কিন্তু আমরা অনেকেই আছি খেলার সব বিষয় পরিষ্কার ভাবে বুঝি না। তাই তাদের সঙ্গে আজকে ভাগ করে নেবো ক্রিকেটের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ পাঠ আউট নিয়ে। খেলায় একজন ব্যাটসম্যান নানা ভাবে আউট হতে পারে। চলুন জেনে নিই কী কী ভাবে একজন ব্যাটসম্যান আউট হয়।

Types of Out in Cricket

রিটায়ার্ড (Retired) : কোনো কারণে যদি ব্যাটসম্যান ক্রিজে সমস্যায় পড়ে এবং ব্যাটিং করা অসম্ভব হয়ে পড়ে তখন সেই ব্যাটসম্যানকে রিটায়ার্ড হার্ট বলে। যদি কেউ নিজের ইচ্ছাতে ফিরে আসে, তবে তাকে রিটায়ার্ড আউট বলে। এ ছাড়া ওই ইনিংস পুনরায় শুরু করতে চাইলে প্রতিপক্ষ অধিনায়কের সম্মতি না থাকলে ওই ব্যাটসম্যানকে রিটায়ার্ড আউট বলে গণ্য করা হয়।

Types of Out in Cricket

কট আউট (Caught Out) : ব্যাটসম্যান বলকে হিট করার পর যদি শূন্যে থাকা অবস্থায় কোনো ফিল্ডার সেটি তালুবন্দি করে তবে সেটি ক্যাচ আউট। এটিও তিন ধরনের হয়ে থাকে। ১) কট বাই দ্যা ফিল্ডার (Caught By The Fielder), ২) কট অ্যান্ড বোল্ড (Caught And Bold) ও ৩) কট বিহাইন্ড (Caught Behind)।

ক্রিকেটে আউট কত প্রকার?

বোল্ড (Bold) : বোলার বল করার পর সেটি যদি ব্যাটসম্যানকে ফাঁকি দিয়ে সরাসরি স্ট্যাম্পে আঘাত হানে তবে সেটি বোল্ড আউট। যদি বল স্ট্যাম্পে আঘাত করে কিন্তু বেল না পড়ে তাহলে ব্যাটসম্যান আউট হবে না।

STAMPING OUT

স্ট্যাম্পিং (Stamping) : ব্যাটসম্যান বলে হিট করার আগেই যদি ক্রিজ থেকে বাইরে বেরিয়ে যান অথবা শরীরের কোনো অংশ যদি লাইন স্পর্শ না করে থাকে তাহলে উইকেটরক্ষক বলটিকে ধরে বেল উড়িয়ে দিতে পারেন।

টাইমড আউট (Timed Out) : একজন ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার নির্ধারিত সময়ের যদি পরবর্তী ব্যাটসম্যান ক্রিজে না নামে, তবে সেই ব্যাটসম্যান টাইমড আউট বলে বিবেচিত হবে। এক্ষেত্রে টেস্টে ১৮০ সেকেন্ড, ওয়ানডেতে ১২০ সেকেন্ড এবং টি-টোয়েন্টিতে ৯০ সেকেন্ড সময়ের মধ্যে ব্যাটসম্যানকে বাউন্ডারি লাইনের ভিতরে প্রবেশ করতে হয়।

আরও পড়ুন : বোলার হিসেবে খেলা শুরু করে দুর্ধর্ষ ব্যাটসম্যান হয়েছেন যে ৫ ক্রিকেটার

Leg Before Wicket

লেগ বিফোর উইকেট (Leg Before Wicket) : ব্যাটে স্পর্শ না হয়ে ব্যাটসম্যানের পায়ে বা অন্য কোথাও বল আঘাত করে এবং আম্পায়ার বিবেচনায় যদি মনে হয় বল স্টাম্প লাইনে রয়েছে তাহলে আম্পায়ার ‘এলবিডব্লিউ’ দিতে পারেন।

হ্যান্ডেল্ড দ্য বল (Handle The Ball) : প্রতিপক্ষ দলের ফিল্ডারের সম্মতি ছাড়া যদি ব্যাটসম্যান হাত দিয়ে ইচ্ছাকৃতভাবে বলকে আটকানোর বা স্পর্শ করার চেষ্টা করেন তাহলে ‘হ্যান্ডেল্ড দ্য বল আউট’ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন : জন্ম গরিব পরিবারে, কিন্তু ক্রিকেট বদলে দিয়েছে এই ১০ ক্রিকেটারের জীবন

হিট দ্য বল টোয়াইস (Hit The Ball Twice) : ব্যাটসম্যান যদি দুইবার বলে আঘাত করে তাহলে ‘হিট দ্য বল টুইস আউট’ হন। প্রথমবার ব্যাট দিয়ে আ’ঘা’ত করার পরে দ্বিতীয়বার ব্যাট অথবা পা দিয়ে আ’ঘা’ত করলে আউট দেওয়া হয়।

Hit The Ball Twice

হিট উইকেট (Hit Wicket) : কোনো ব্যাটসম্যান যদি শট নেওয়ার সময় বা প্রথম রান শুরু করার সময় তার শরীর বা ব্যাট দিয়ে নিজস্ব স্ট্যাম্পের বেল ফেলে দেয়, তাহলে সে আউট হয়ে যায়। এই আইন প্রযোজ্য হবে না যদি তিনি কোনো ফিল্ডারের দ্বারা উইকেটে ছুড়ে দেওয়া বল এড়িয়ে যান বা রান আউট এড়াতে উইকেট ভেঙে দেন।

আরও পড়ুন : অসম্ভব সুন্দরী এই ১০ ক্রিকেটারের বউ হার মানাবে যে কোনো বিশ্বসুন্দরীকে

Obstracting The Field

অবস্ট্রাকটিং দ্য ফিল্ড (Obstracting The Field) : রান নেওয়ার সময় বল ফিল্ডার থ্রো করা হয়। আর সেই সময় যদি ব্যাটসম্যান ইচ্ছাকৃতভাবে আটকায় তবে সেটি আউট বলে ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুন : বোলার হিসেবে খেলা শুরু করে দুর্ধর্ষ ব্যাটসম্যান হয়েছেন যে ৫ ক্রিকেটার

রানআউট (Run Out) : ব্যাটসম্যান যখন রান নেওয়ার সময় একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে দৌড়ান এবং তার ক্রিজে পৌঁছানোর আগেই যদি কোনো ফিল্ডার দ্বারা সরাসরি অথবা তালুবন্দি করে উইকেটের বেল ফেলে দেন, তাহলে তিনি রান আউট হবেন।