১২০০ টাকাতেই কমপ্লিট! ঘুরে আসুন বাংলার এই ‘মিনি নায়গ্রা’ থেকে

বাংলাতেই রয়েছে ‘মিনি নায়গ্রা’! নামমাত্র বাজেটে ঘুরে আসুন এই অফবিট লোকেশন থেকে

Tour Plan : গরমে ঘুরতে যাওয়ার জায়গা মানে শুধুই পাহাড়। কিন্তু আপনি যদি শীতকালে ঘুরতে যেতে চান তাহলে আপনার কাছে রয়েছে একাধিক অপশন। আপনি যদি শীত বিদায় নেওয়ার আগেই কোথাও ঘুরে আসতে চান, তাও আবার অল্প সময়ে এবং কম টাকার মধ্যে, তাহলে এই প্রতিবেদন শুধুমাত্র আপনার জন্য। কলকাতার মাত্র ৫০০ কিলোমিটারের মধ্যেই ঝাড়গ্রামে রয়েছে ‘মিনি নায়গ্রা’ (Mini Niagra), একবার গেলে প্রেমে পড়ে যাবেন আপনি।

কলকাতার কাছেই রয়েছে এক টুকরো স্বর্গ

ঘুরতে যেতে সবাই ভালোবাসেন। কিন্তু সময় এবং অর্থের অভাবে সব সময় তা হয়ে ওঠে না। কাছাকাছি কোনও স্থানে যদি সপ্তাহের শেষে আপনি ঘুরে আসতে চান তাহলে আপনি ঘুরে আসতে পারেন ঝাড়গ্রামের এই অসম্ভব সুন্দর স্থানে। অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমী মানুষদের কাছে এক কথায় এই স্থানটি হল এক টুকরো স্বর্গ।

Dhangikusum

ঝাড়গ্রাম মানেই শুধু বেলপাহাড়ি নয়

ঝাড়গ্রাম মানেই অনেকে মনে করেন বেলপাহাড়ি (Belpahari)। এর আগে হয়তো আপনি ঝাড়গ্রামে গিয়েছেন কিন্তু এই স্থানটির হদিশ না জানার কারণে প্রকৃতির এই অসম্ভব সুন্দর রূপ মিস করে গেছেন আপনি। তাই এবার ঝাড়গ্রাম গেলে অবশ্যই ঘুরে আসুন ঢাঙিকুসুম (Dhangikusum)। বন্ধুবান্ধব অথবা সোলো ট্রিপ করলে এই স্থানটি আপনার জন্য একেবারেই যথাযথ।

ঝাড়গ্রাম থেকে ১০০ মিটার দূরে অবস্থিত এই স্থান

ঝাড়গ্রাম শহর থেকে প্রায় ৫৫ কিলোমিটার দূরে এবং ঝাড়খন্ড সীমান্ত থেকে ১০০ মিটার দূরে অবস্থিত এই স্থানটি। এই স্থানে আপনি দেখতে পাবেন বুড়িসোল বন, যার মধ্যে দিয়ে যাওয়া মসৃণ এবং রক্ষণাবেক্ষণ করা এই রাস্তাটি আপনাকে মুগ্ধ করবেই। এই রাস্তাটি শিলদা এবং বেল পাহাড়ির মধ্যে দিয়ে গিয়ে ঢাঙিকুসুমকে যুক্ত করে।

Dhangikusum

অ্যাডভেঞ্চারে ভরপুর এই জায়গা

এই স্থানটিতে রয়েছে দারুণ একটি জলপ্রপাত, যার রূপ দেখলে আপনি মুগ্ধ হয়ে যাবেন। এই জলপ্রপাতটিকে অনেকে ‘মিনি নায়গ্রা’ জলপ্রপাত বলে থাকেন। এই জলপ্রপাতটি অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষের কাছে ভীষণ জনপ্রিয়, কারণ এই স্থানে আসতে গেলে আপনাকে পাঁচ মিনিটের জন্য ট্রেক করতে হবে।

প্রকৃতির কোলে যেন স্বর্গ এই ঢাঙিকুসুম। হাতে গোনা কিছু আদিবাসী মানুষদের বাস এই অঞ্চলে। স্বাভাবিকভাবেই এই স্থানে কোনও কোলাহল পাবেন না আপনি। একা নির্জনে যদি সময় কাটাতে চান তাহলে এই স্থানটির মতো ভালো কোনও জায়গা হতেই পারে না। এখানে এলে আপনি পেয়ে যাবেন বেশ কিছু গেস্ট হাউস এবং কটেজ। এছাড়াও রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন বিভাগের আবাস। ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকার মধ্যেই আপনার থাকা খাওয়া সব হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন : ভুলে যাবেন দার্জিলিং-সিমলা! নামমাত্র খরচে ঘুরে আসুন ‘মিনি তিব্বত’ থেকে

Dhangikusum

আরও পড়ুন : শীতে পিকনিকের স্পট খুঁজছেন? রইল সেরা ৩ টি পিকনিক স্পটের ঠিকানা

কীভাবে যাবেন এই স্থানে

এই স্থানে পৌঁছাতে গেলে প্রথমে হাওড়া থেকে ট্রেনে ঝাড়গ্রাম যেতে হবে আপনাকে। সেখান থেকে বেলপাহাড়ি হয়ে আপনাকে যেতে হবে ঢাঙিকুসুম। আপনি চাইলে ঝাড়গ্রাম থেকে গাড়ি ভাড়াও করে নিতে পারেন। যদিও এক্ষেত্রে কিছুটা বেশি খরচ হবে আপনার।