পুরুষের শরীরের এই দুটি জিনিস মন উথাল-পাতাল করে দেয় দেবাদৃতার

“জি বাংলা’র “জয়ী’কে চেনেন না সিরিয়াল অনুরাগীদের মধ্যে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না। “জয়ী ধারাবাহিকটি “জি বাংলা’র অন্যতম জনপ্রিয় একটি ধারাবাহিক। এই ধারাবাহিকের নায়িকা “জয়ী’ ওরফে দেবাদৃতা বসুকেও ধারাবাহিকের দৌলতে দর্শক বেশ পছন্দ করতে শুরু করেন। দেবাদৃতা টেলি পর্দায় নবাগতা হলেও নিজের অভিনয় দক্ষতার জেরে কয়েক বছরের মধ্যেই তিনটি প্রজেক্টে পরপর কাজ পেয়ে গিয়েছেন।

“জয়ী’ ধারাবাহিকটি শেষ হতে না হতেই দেবাদৃতা “জি বাংলা’রই নতুন ধারাবাহিক “আলো-ছায়া’য় মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করতে শুরু করেন। “জয়ী’র পর দর্শক তাকে “আলো’ হিসেবে চিনতে শুরু করেন। প্রায় এক বছরেরও বেশি সময় ধরে “আলো-ছায়া’ ধারাবাহিকে “আলো’র চরিত্রে অভিনয় করেছেন দেবাদৃতা। সম্প্রতি সেই ধারাবাহিকটিও শেষ হয়েছে। তবে দর্শকদের পছন্দের অভিনেত্রী শীঘ্রই আরও একটি নতুন প্রজেক্ট নিয়ে পর্দায় ফিরতে চলেছেন। সৌজন্যে সেই “জি বাংলা’।

“জয়ী’ ধারাবাহিকে ফুটবলার, “আলো ছায়া’ ধারাবাহিকে একজন তীক্ষ্ণ মেধাসম্পন্ন ছাত্রীর চরিত্রে অভিনয় করার পর দেবাদৃতা বসু এবার একেবারেই ভিন্ন স্বাদের একটি চরিত্রে অভিনয় করতে চলেছেন। “জি বাংলা’য় আসতে চলেছে পৌরাণিক কাহিনী নির্ভর ধারাবাহিক “শ্রী কৃষ্ণ ভক্ত মীরা’। সেখানে ভগবান শ্রী কৃষ্ণ ভক্ত মীরাবাঈয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে চলেছেন দেবাদৃতা। আপাতত শুটিং নিয়ে তিনি ব্যস্ত। তবে তার ফাঁকেই মিডিয়ার সামনে অভিনেত্রী জানালেন তার মনের কথা।

সাধারণত অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে অল্পবিস্তর আগ্রহ প্রায় প্রতিটি মানুষের মধ্যেই থাকে। দেবাদৃতাকে নিয়েও ‌ তার অনুরাগীদের আগ্রহ প্রবল। বিশেষত অভিনেত্রীর জীবনে বিশেষ কোনও মানুষ আছেন কিনা, তার পছন্দ-অপছন্দ কেমন তা জানার জন্য মুখিয়ে আছেন তার অনুরাগীরা। অবশ্য দেবাদৃতা বর্তমানে কারোর সঙ্গে প্রেম সম্পর্কে আবদ্ধ কিনা, তা এখনো জানা যায়নি। তবে অভিনেত্রীর কিন্তু “ক্রাশ’ রয়েছেন!

“ক্রাশ’, অর্থাৎ এমন কেউ যাকে দেখলেই ভালো হয়ে যায় মন। যদি সে আশেপাশে কোথাও থাকে তাহলে অজান্তেই বেড়ে যায় হার্টবিট। টলিউড, বলিউড অথবা হলিউডের প্রায় প্রত্যেক সেলিব্রিটিই কারোর না কারোর ক্রাশ! দেবাদৃতার ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তিনি ক্রাশ খেয়েছেন আদিত্য রয় কাপুরের উপর।

হ্যাঁ, “আশিকি ২’ সিনেমা খ্যাত সেই সুদর্শন নায়কই দেবাদৃতার “ক্রাশ’। আসলে পছন্দের পুরুষের চেহারার মধ্যে কার্যত দুটি জিনিস খোঁজেন অভিনেত্রী। এক হলো গোঁফ, আর দুই হলো তার চোখ। যে পুরুষের চেহারার মধ্যে এই দুটি বৈশিষ্ট্য তিনি খুঁজে পান, সেই পুরুষকে তার পছন্দ হয়ে যায়। অভিনেত্রী নিজেই জানালেন সেই কথা। দেবাদৃতা জানাচ্ছেন, ছেলেদের গোঁফ এবং চোখদুটি দেখলেই তার মন কেমন যেন উথাল-পাথাল করতে থাকে!

প্রসঙ্গত দেবাদৃতা বসু “জয়ী’ ধারাবাহিকের হাত ধরে পর্দায় আত্ম প্রকাশ করলেও তিনি কিন্তু খুব ছোট থেকেই অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। খুব ছোট বয়স থেকেই “হ য ব র ল” নাট্যগোষ্ঠীতে অভিনয় করতে শুরু করেন দেবাদৃতা। অভিনয় জগতের সঙ্গে তাই তার যেন আত্মার টান রয়েছে। অভিনয়ের পাশাপাশি অবশ্য পড়াশোনাও চালিয়ে যাচ্ছেন অভিনেত্রী। গত বছরই উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছেন তিনি। তবে তার ধ্যান-জ্ঞান, প্যাশন বলতে সবই অভিনয়।

লকডাউন পর্বে আপাতত কাজ বন্ধ থাকলেও খুব শীঘ্রই নতুন ধারাবাহিক নিয়ে পর্দায় ফিরতে চলেছেন দেবাদৃতা বসু। ধারাবাহিকে প্রোমো ইতিমধ্যেই দর্শকদের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছে। ধারাবাহিকে মীরাবাঈয়ের বাল্য অবস্থার অভিনয় করছে সকলের প্রিয় মিষ্টি “ভুতু” অর্থাৎ আর্শিয়া মুখোপাধ্যায়। দীর্ঘ বেশ কয়েক বছর পর পর্দায় আবারও দেখা যাবে “ভুতু”কে।