বহু বছর পর পর্দায় ফিরলেন ‘মেজবউ’, স্টার জলসার জনপ্রিয় সিরিয়ালে এলেন চুমকি চৌধুরী

স্টার জলসার জনপ্রিয় সিরিয়ালে এলেন ‘মেজবউ’ চুমকি চৌধুরী, বহু বছর পর পর্দায় ফিরলেন অভিনেত্রী

চুমকি চৌধুরী (Chumki Chowdhury), নামটা বাঙালির কাছে একটা আলাদাই নস্টালজিয়ার মত। ৯০ এর দশকে অঞ্জন চৌধুরীর বউমা সিরিজের একের পর এক ছবি সুপারহিট হচ্ছিল টলিউডে। বড় বউ, ছোট বউ, মেজ বউরাই তখন বাংলার নায়িকা। সেই ‘মেজ বউ’ অর্থাৎ চুমকি চৌধুরী দর্শকদের বিচারে বাংলার একজন সেরা নায়িকা হয়ে উঠেছিলেন। অভিনয় গুনে প্রত্যেক বাঙালির মন জয় করে নিয়েছিলেন চুমকি।

অঞ্জন চৌধুরীর মেয়ে বলে নয়, চুমকির অভিনয় প্রতিভাই ইন্ডাস্ট্রিতে তার একমাত্র পরিচয়। দর্শকরাও তাকে পছন্দ করেছেন বারবার। লোফার, অভাগিনী, হীরক জয়ন্তী, রাখি পূর্ণিমা, সন্তান ইত্যাদি বিভিন্ন ফ্যামিলি ড্রামাভিত্তিক ছবিতে অভিনয় করেছেন চুমকি। একটা সময় পর সিনেমাতে তাকে আর দেখা যেত না। তবে তাই বলে তিনি কিন্তু অভিনয়টা ছেড়ে দেননি। এবার তাকে দেখা যাবে স্টার জলসার (Star Jalsha) জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘আলতা ফড়িং’য়ে (Alta Phoring)।

Here is why Chumki Chowdhury Left Tollywood Industry

‘প্রতিদান’, ‘রাঙিয়ে দিয়ে যাও’য়ের পর চুমকি আবার নতুন রূপে ফিরলেন টেলিভিশনের পর্দায়। এবার প্রথম সারির বাংলা চ্যানেল স্টার জলসা হয়ে উঠলো তার নতুন ঠিকানা। ‘আলতা ফড়িং’য়ের গল্প এখন নতুন মোড় নিয়েছে। ফড়িংয়ের ব্যাঙ্ক বাবু হড়পা বানে জলে ভেসে গিয়েছে। এদিকে পুত্রশোকে বোধ হারিয়ে ফড়িংকেও বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে অভ্রের মা।

ঠিক এই সময়ে ফড়িংয়ের জীবনে এক নতুন নায়কের আবির্ভাব হয়। তিনি ফড়িংকে জলে ভেসে যাওয়া থেকে উদ্ধার করেন। আবার গভীর রাতে তাকে রাস্তায় একা একা চলতে দেখে নিজের বাড়িতে নিয়ে যান তার সুরক্ষার জন্য। ফড়িংয়ের জীবনের এই নতুন নায়ক আর কেউ নয় জনপ্রিয় অভিনেতা অভিষেক বসু। ধারাবাহিকের গল্পের নতুন সদস্য হয়ে উঠেছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

chumki chowdhury in alta phoring

অভিষেকের মায়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন চুমকি। গতকালের পর্বে দেখানো হয়েছে তাকে। বাড়ির বিধবা কত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন তিনি। ধারাবাহিকের নতুন নায়ক অভিষেক অর্থাৎ অর্জুনের মায়ের ভূমিকায় তাকে দেখা যাবে এবার। অর্জুন তার প্রিয় সন্তান। ফড়িংকে বাড়িতে আনা নিয়ে পরিবারের বাকি সদস্যরা যখন আপত্তি তুলছে তখন তিনি কি ফড়িংয়ের অবস্থা জেনেও তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেবেন?

altaphoring

ধারাবাহিকে আপাতত অভ্রের কোনও খোঁজ মিলছে না। তবে সে যে বেঁচে আছে তা গতকালের পর্বের এক ঝলকে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। কিন্তু আপাতত অর্জুনের বাড়িটাই হয়ে উঠেছে ফড়িংয়ের নতুন ঠিকানা। দশমীর রাতে সে তার জীবন থেকে সবকিছুই হারিয়ে ফেলেছে। হারিয়ে ফেলেছে ব্যাঙ্ক বাবুকে, হারিয়েছে নিজের মাকেও, এমনকি শ্বশুরবাড়ির ঠাঁইটুকুও তার নেই। মনে করা হচ্ছে অর্জুনের মা অর্থাৎ চুমকি তাকে ফিরিয়ে দেবেন না।