“মেয়েদের অভিশাপ খুব লাগে, বিজেপি হেরেছে আমার অভিশাপে”, সুজাতা মণ্ডল

717

একুশের বিধানসভা নির্বাচনী লড়াই শেষ। বাংলায় এবার “মোদী ঝড়” নয়। “মমতা সাইক্লোন” কার্যত বিজেপি শিবিরকে ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে। ২০০ আসন পার করে ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে বাংলায় সরকার গঠন করার স্বপ্ন দেখেছিল যারা, তারা কার্যত মাত্রাতিরিক্ত পরিশ্রম করেও আসনের নিরিখে তিন ডিজিটও পেরোতে পারেননি।

গতকাল বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভোটের ফলাফল স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল। বিজেপির কর্মী-সমর্থকরা ভোটের ট্রেন্ড দেখে ক্রমশ দমে আসছিলেন। এদিকে সবুজ শিবিরের উচ্ছ্বাস ছিল দেখার মতো। ভোটের গণনা চলাকালীন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁয়ের স্ত্রী তথা আরামবাগ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা খাঁ ঝাঁঝালো ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপি শিবিরকে।

বিজেপির আজকের এই পরিণতি কার্যত তাঁর অভিশাপের ফলাফল বলে মন্তব্য করেন সুজাতা। এদিন সুজাতা সাংবাদিকদের সামনে বলেন, “আমার অভিশাপের ফল। বিজেপি যেভাবে অত্যাচার করেছে তখন আমি বলেছিলাম বিজেপি যা আসন পাবে বলে মনে করছে তার থেকেও কম পাবে। সেটাই হচ্ছে। মহিলাদের অভিশাপ খুব লাগে। দেখুন আমার অভিশাপ লেগে গিয়েছে…!”

আরও পড়ুন : পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির হারের জন্য দায়ী এই ৫টি কারণ

সুজাতা আরও বলেছেন, “মানুষ মমতাদিকে এখনও ভালোবাসে। সেটার ফল দেখা যাচ্ছে”। প্রসঙ্গত একুশের লড়াইয়ে যখন তৃণমূল শিবিরের কর্মী-সমর্থকরা, মমতার বহুদিনের বিশ্বস্ত সৈনিকেরা একে একে দল ছেড়ে বিজেপির খুঁটি মজবুত করতে এগিয়ে যাচ্ছিলেন তখন সুজাতা খাঁ বিজেপি দল ছেড়ে দিদির পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন। শুধু দল নয়, তৃণমূলে যোগদান করার মাশুল স্বরূপ সুজাতা খাঁ মন্ডলকে সংসারও ছাড়তে হয়েছে।

আরও পড়ুন : মমতা বন্দোপাধ্যায়ের এই ১০টি পদক্ষেপ হারিয়ে দিল বিজেপিকে

প্রসঙ্গত, আরামবাগ বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটের দিন আক্রান্ত হতে হয় সুজাতা খাঁকে। সুজাতার অভিযোগ ছিল, বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরাই এদিন বাঁশ, লাঠি, হাঁসুয়া দিয়ে তার প্রতি আক্রমণ হানে। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে তার নিরাপত্তারক্ষীরও মাথা ফেটে যায়। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অভিযোগের আঙুল বিজেপির দিকেই তোলেন সুজাতা। তবে তখন অবশ্য বিজেপি তার এই অভিযোগ খারিজ করে দেয়।

আরও পড়ুন : এই ৫টি কারণে নন্দীগ্রামে মমতাকে হারিয়ে জিতলেন শুভেন্দু অধিকারী