‘বোধহয় আমাদের সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যাবে’, সেলিব্রিটি বউকে নিয়ে চরম উদ্বিগ্ন স্বামী

Tiyasha Roy Suban Roy

‘কৃষ্ণকলি’ (Krishnakoli) ধারাবাহিক খ্যাত অভিনেত্রী তিয়াসা রায়ের (Tiyasha Roy) ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন চরমে উঠেছে। এমনিতেই স্টুডিও পাড়ায় ইদানিং কান পাতলেই সেলিব্রিটি জুটিদের ঝগড়া-বিবাদ, বিবাহ-বিচ্ছেদের খবর মিলছে। এবারের গুঞ্জন, তিয়াসা রায় এবং তার স্বামী সুবান রায়ের (Suban Roy) দাম্পত্য সম্পর্কেও নাকি চিড় ধরেছে। যদিও এমন খবরকে নিছক জল্পনার পর্যায়ে ফেলে দিয়েছেন তিয়াসা। তবে সুবান কী বলছেন?

আনন্দবাজার পত্রিকায় স্রবন্তী বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে সম্প্রতি তাদের দাম্পত্য সমস্যা নিয়ে মুখ খুলেছেন সুবান। টলিউডে গুঞ্জন, একই পেশায় থেকে তিয়াসা সুবানের থেকে বেশি সাফল্য অর্জন করেছেন, আর তাতেই নাকি স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু এই তত্ত্ব একেবারেই খারিজ করে দিয়েছেন সুবান। তিনি সর্বদা স্ত্রীর ভালো চাইবেন, এমনটাই জানালেন জোর গলায়। দুজনেই অভিনয়ের সঙ্গে জড়িত। তাই দুইজনকেই ব্যস্ত থাকতে হয়।

 

Tiyasha Roy Suban Roy

সুবানের বক্তব্য, “তিয়াসার সঙ্গে কোনও দিন সে ভাবে সংসার ধর্ম পালন করতেই পারিনি। বিয়ের পর তিয়াসা কাজের জন্যই গোবরডাঙা থেকে টালিগঞ্জে আমার সঙ্গে থাকতে শুরু করে। আমি আগে থেকেই সেখানে থাকতাম‌। সেই ভাবে গুছিয়ে সংসার করতে পারিনি আমরা কারণ কাজের ধারাটাই এমন ছিল। এ রকমও হয়েছে, একই ছাদের তলায় থেকে প্রায় এক মাস একে অপরের মুখ দেখতে পাইনি। এক জন শ্যুটে বেরোতাম, অন্য জন শ্যুট থেকে বাড়ি ঢুকত। বা উল্টোটা”।

টলিউডে সুবানকে অনেকেই ‘ডমিনেটিং’ ক্যাটাগরিতে ফেলে থাকেন। তবে অভিনেতা কিন্তু নিজেকে মোটেই সেই পর্যায়ে ফেলেন না। সমালোচকদের প্রতি তার উত্তর, “আমি নিয়মে থাকতে পছন্দ করি। যে সময়ে যেটা করা উচিত, সেটাই করি। তাই কখনও কখনও তিয়াসার কোনও কথায় রাজি না হওয়াটাকে ‘ডমিনেটিং’ বা ক্ষমতার প্রকাশ হিসেবে দেখতে পারে কেউ কেউ। তবে একটা ছেলে হিসেবে কম দুষ্টুমি করিনি ছোটবেলায়। কিন্তু আমার সামনে কেউ খারাপ কিছু করলে আমি প্রতিবাদ করি। এক কথায় বললে, আমি খুবই প্রতিবাদী ছেলে। সেটাকে কেউ ‘ডমিনেটিং’ বললে সেটা তাঁর ব্যাখ্যা”।

Krishnakoli Shyama, Tiyasha Roy and Her Husband HD Photo

তিয়াসার সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়ে যে জল্পনার রটছে, তা কিন্তু নতুন নয়। সুবান জানাচ্ছেন, “বিয়ে-এর পর শুরুর কয়েক দিনের মাথাতেই শুনতে পাই, আমাদের নাকি বিবাহ-বিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছে। কেবল ঝগড়া হয়েছিল সেই বার। তাতেই লোকে এই সব খবর রটিয়েছিল। কারওর যেন ঝগড়া হয় না। সম্প্রতিও বিচ্ছেদ নিয়ে চর্চা শুনছি। এত নেতিবাচক খবর ভাল লাগে না। কিছু যায় আসে না, এমন কথাও জোর দিয়ে আর বলতে পারব না আমি”

অভিনেতার আশঙ্কা, “ ‘ডিভোর্স ডিভোর্স’ শুনতে শুনতে কোন দিন না সত্যি সত্যিই ‘ডিভোর্স’ হয়ে যায় আমাদের। প্রচুর মানুষ আমাদের খারাপ চায়। আর তাদের জন্যই বোধহয় আমাদের সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যাবে। এই ভয়টা করে আমার। তবে ভবিষ্যতে কী হবে, তা কে বলতে পারে!” বর্তমান পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে যদি সত্যিই অদূর ভবিষ্যতে সেই অনভিপ্রেত ঘটনাটি ঘটে যায়, তাহলে ভবিষ্যতের জন্য তিয়াসার প্রতি তার বার্তা, “সম্পর্ক না থাকলেও তিয়াসার জন্য চির কাল ভাল চাইব আমি। সম্পর্ক যদি নষ্টও হয়, ওর কী ভাবে ভাল হয় সে দিকে সারা জীবন খেয়াল রাখব”।