মোদীর বড় ঘোষণা, বেকার ও গরিবদের একাউন্টে আসবে টাকা! জানুন কীভাবে?

টাকা…টাকা…টাকা…! লোকসভা ভোটের আগে সেমিফাইনালে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোটে ধরাশায়ী হয়েছে কেন্দ্রে থাকা বিজেপি সরকার। ভোটের আগে ভোটের প্রচারে এই বিজেপি দলকে বারবার বিরোধীদের কাছে বিঁধতে হয়েছে নানা ইস্যু নিয়ে। যে ইস্যু গুলিকে মূলত বিরোধীরা প্রধান হাতিয়ার হিসেবে তুলে নিয়েছিল তার মধ্যে টাকার একটা ইস্যুও ছিল অন্যতম। সে সাধারন মানুষদের একাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা আসার ইস্যুই, কালো টাকার ইস্যুই হোক অথবা নোটবন্দির ইস্যুও সামনে এসেছে। টাকা নেই বারবার বিঁধতে হয়েছে বিজেপি সরকারকে।

গত পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোটে হারের পর লোকসভা ভোটে ভালো ফল করার লক্ষ্যে এবারও আসতে চলেছে সেই টাকারই ইস্যু। লোকসভা ভোটের আগে মোদি সরকারের বড় ঘোষণা হতে পারে বলে সূত্রের খবর। জনগণকে বড় উপহার দিতে পারেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর সেই বড় উপহারের ঘোষণা সরকারের শেষ বাজেটেই গঠিত হতে পারে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে একটি সুনির্দিষ্ট রোজগারের পদ্ধতি রয়েছে, যার নাম ইউনিভার্সাল বেসিক ইনকাম প্রকল্প (UBI)। আর এমনই সুনির্দিষ্ট রোজগারের প্রকল্প ভারতেও শুরু করতে চাইছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ বিষয়ে ২৭ শে ডিসেম্বর বৈঠকে আলোচনাও হওয়ারও খবর এসেছে।

ইতিমধ্যেই সরকারি এক প্রকল্প অনুযায়ী দেশের অনেক রাজ্যের কৃষকদের একাউন্টে প্রতি মাসের শেষে বেশ কিছু অর্থ সরকারিভাবে ডিপোজিট করা হয়। এবার ওই একই পদ্ধতিতে দেশের সাধারণ জনগণের একাউন্টে টাকা ডিপোজিট করার কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো বেকার এবং দুঃস্থ মানুষেরা যেন নিজের খরচটুকু যোগাতে পারে।

তবে এই প্রকল্পে কারা আসবেন সে বিষয়ে এখনো খোলসা করে কিছু বলা হয়নি। শোনা যাচ্ছে বেকার যুবকদের একাউন্টে এবং নির্দিষ্ট আয়ের নীচে ব্যক্তি বা দারিদ্র সীমার নীচে থাকা ব্যক্তিদেরও একাউন্টে এই টাকা আসতে পারে। এ নিয়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন দপ্তরের প্রস্তাবও চেয়ে পাঠানো হয়েছে।

শোনা যাচ্ছে, দেশের ২০ কোটি মানুষের একাউন্টে এই টাকা কোন রকম শর্ত ছাড়াই মাঠে যেতে সরকারিভাবে ডিপোজিট হয়ে যাবে।

ইউনিভার্সাল বেসিক ইনকাম প্রকল্প কি?

মার্টির লুথার কিং জুনিয়র ১৯৬৭ সালে এই প্রকল্পের কথা বলেছিলেন। যে প্রকল্পের আওতায় দেশের বেকার এবং দরিদ্রসীমার নিচে থাকা মানুষেরা কোনো রকম শর্ত ছাড়াই মাসের শেষে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ তাদের ব্যাংক একাউন্টে পেয়ে থাকেন। তবে এই প্রকল্প ভারতে প্রথম চালু হতে চলেছে এমনটা নয়। এমন প্রকল্প পাশ্চাত্য দেশের বহু দেশে অনেক আগে থেকেই প্রচলিত আছে, যাকে এক প্রকার বেকার যুবকদের জন্য সরকারী ভাতা বলা হয়ে থাকে। সাইপ্রাস, ফ্রান্স, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক প্রদেশ এবং ব্রাজিল, কানাডা, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, জার্মানি, নেদারল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, লুক্সেমবার্গ, সুইডেন, সুইত্জারল্যান্ড ও ব্রিটেনে ইউবিআই চালু রয়েছে। শুধু পাশ্চাত্য দেশেই নয়, ভারতের মধ্যপ্রদেশে এরকমই এক প্রকল্প, যার নাম ‘পাইলট প্রকল্প’-এর প্রচলন রয়েছে। ২০১০ থেকে ২০১৬ সাল চলেছিল মধ্যপ্রদেশে এই প্রকল্পটি। যার ফলে সমীক্ষায় দেখা গেছে এই রাজ্যে বেকার যুবকদের আমূল পরিবর্তন হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে বেকার যুবকদের জন্য একটি মাসিক ভাতার ব্যবস্থা করেছিলেন বর্তমান রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন : নববর্ষে দেশবাসীকে মোদীজির উপহার, খুলছে দেশের বৃহত্তম ক্যান্সার হাসপাতাল

এই প্রকল্পের আওতায় কারা আসতে পারেন, কিভাবে তাদের সনাক্ত করণ হবে? এ নিয়ে গত দু’বছর ধরে কেন্দ্র সরকারের আলোচনা চলছে বলে জানা গিয়েছে। শুধু শনাক্তকরণের বিষয়ই নয় এই প্রকল্প চালু করতে কেন্দ্র সরকারের প্রয়োজন বিপুল পরিমাণ অর্থ।

আরও পড়ুন : প্রকাশ্যে এল নরেন্দ্র মোদীর সম্পত্তির পরিমাণ! কত কোটি টাকার মালিক মোদীজি?

অনেকের মতে এমন প্রকল্প চালু হলে ভাঁটা পড়তে পারে কেন্দ্রীয় কোষাগারে। আবার অনেকেই বলছেন ঘরে বসে মাসের শেষে টাকা পেলে কাজ করার মনই চলে যাবে অনেকের। সুলভ্য শ্রমিক পাওয়া যায় হয়ে যাবে। সূত্রের খবর ২০১৯ সালের বাজেটের আগেই ঘোষণা হয়ে যেতে পারে এই ‘ইউনিভার্সাল বেসিক ইনকাম’ প্রকল্পের।

Loading...