ভালবেসেছিলেন মনেপ্রাণে, তবুও কেন মহানায়কের বিয়ের প্রস্তাবে ‘না’ বলেছিলেন সুচিত্রা

কেন উত্তম কুমারের বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সুচিত্রা সেন, এইভাবে কেটেছিল তাদের শেষ জীবন

পঞ্চাশ, ষাট, সত্তরের দশকজুড়ে টলিউড (Tollywood) ইন্ডাস্ট্রিতে রূপকথার রাজত্ব গড়েছিলেন উত্তম কুমার (Uttam Kumar) এবং সুচিত্রা সেন (Suchitra Sen)। মহানায়কের সঙ্গে মহানায়িকার জুটি এভারগ্রীন হয়ে রয়ে গিয়েছে বাঙালির মনে। বলতে গেলে এই জুটিই বাঙালিকে প্রেম করতে শিখিয়েছে। অনস্ক্রিন এই রোমান্টিক জুটির রসায়নে পাগল ছিলেন দর্শকরা।

উত্তম-সুচিত্রার রোমান্টিকতার আবেশে বুঁদ হয়ে থাকতেন দর্শকরা। অনস্ক্রিনের পাশাপাশি অফস্ক্রিনেও তাদের প্রেম নিয়েও টলিউডে ঘোর চর্চা রয়েছে। বাস্তবেও তারা ঘর বাঁধলে নিঃসন্দেহে খুশি হতেন ভক্তরা।

একে অপরের প্রতি ভীষণ টান অনুভব করতেন তারা। তাদের ভালবাসায় খাদ ছিল না কোনও। শুটিং ফ্লোরে ‘রমা’র আনা টিফিন ছাড়া উত্তম কুমার খেতেন না। উত্তম-সুচিত্রা আজীবন এভাবেই বন্ধু হিসেবে একে অপরের পাশে থেকেছেন।

লেখক রঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়কে একটি সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় উত্তম কুমার নিজেই ‘রমা’র প্রতি তার ভালোবাসার কথা জানিয়েছিলেন। মহানায়ক জানান তিনি মহানায়িকাকে বিয়ের প্রস্তাবও দিয়েছিলেন। কিন্তু সুচিত্রা সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।

টলিউডের অভ্যন্তরেও অনেকেই বলাবলি করেন সুচিত্রা সেন উত্তম কুমারের প্রস্তাবে রাজি হলে নাকি টলিউড এক ইতিহাসের সাক্ষী হতে পারত। কিন্তু বেঁকে বসেছিলেন মহানায়িকা নিজেই। কেন তিনি ফিরিয়ে দিয়েছিলেন বিয়ের প্রস্তাব?

এই প্রশ্নের জবাবে উত্তম কুমার জানান মহানায়িকা তাকে ফেরানোর কারণ হিসেবে বলেছিলেন, “বিয়ে করে নিলে স্বামী-স্ত্রীর একঘেয়ে প্রেম কাহিনী দেখতে কেউ আসবে না।” এরপর সুচিত্রা সেন অভিনয় ছেড়ে দিলে উত্তম কুমার একা হয়ে পড়েন। তাদের মধ্যে নাকি দেখাও হত না তেমন, কেবল ফোনে কথা হত।