১৩ বছর বয়সেই কোম্পানির মালিক! বিস্ময় বালকের কাহিনী জানলে চমকে যাবেন

সাধারণ পড়ালেখা শেষ করার পরে হয়তো আমরা চাকরি বা ব্যবসা করবো বলে সিদ্ধান্ত নেই।তবে এর্ ব্যতিক্রমও হতে পারে। মাত্র ১৩ বছর বয়সে হয়েছে একটি সফটওয়্যার কোম্পানির মালিক। গল্প নয় বাস্তব। মাত্র নয় বছর বয়সে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে বাড়ির লোককে চমকে দিয়েছিল দুবাই প্রবাসী ভারতের কেরালা রাজ্যের আদিত্যন রাজেশ। এখন তার বয়স ১৩। ইতোমধ্যে একটা সফটওয়্যার কোম্পানিও খুলে ফেলেছে সে। কোম্পানির নাম ‘ট্রিনেট সল্যুশনস’।

রাজেশ যখন পাঁচ বছরের খুদে, তখন থেকেই কম্পিউটারের প্রতি তীব্র ঝোঁক তার। স্কুল থেকে বাড়িতে এসেই কখনও মোবাইল, কখনও আবার কম্পিউটার নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করত সে। এই স্বভাবের জন্যে রোজ বাড়ির লোকের কাছে জুটত বকাঝকাও। কিন্তু এর মাঝেই নিজের প্রযুক্তি-প্রীতি ধীরে ধীরে অন্য জায়গায় নিয়ে যাচ্ছিল সে। ন’বছর বয়সেই হঠাৎই এক দিন আদিত্যন বানিয়ে ফেলে নতুন একটা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন। বহু মানুষের মনে ধরে যায় ছোট্ট ছেলেটার তৈরি করা ওই অ্যাপ্লিকেশন। সেই শুরু। তখন থেকেই আদিত্যনের জন্য আসতে শুরু করে দেয় নানা রকম কাজের প্রস্তাব।

তখনই বেশ কিছু সফটওয়্যার কোম্পানির জন্য লোগো ডিজাইনিং করতে শুরু করে দেয় আদিত্যন। শুধু তা-ই নয়, তাক লাগিয়ে দেওয়ার মতো ওয়েবসাইটও তৈরি করতে শুরু করে দিয়েছিল ন’বছরের আদিত্যন রাজেশ। সেটাই ধীরে ধীরে কোম্পানি তৈরি করেছে। আদিত্যনের কোম্পানির নাম ‘ট্রিনেট সলিউসনস’।

আদিত্যন জানায়, কেরালার থিরুভিল্লাতে তার জন্ম। তার বয়স যখন পাঁচ, তখন তার পরিবার দুবাই চলে আসে। তার বাবা প্রথমে যে ওয়েবসাইটের সঙ্গে পরিচয় করিয়েছিলেন সেটার নাম বিবিসি টাইপিং। এই ওয়েবসাইট থেকেই ছোটরা টাইপিংয়ের খুঁটিনাটি সম্পর্কে জানতে পারে।

ট্রিনেট সল্যুশনস সম্পর্কে সে জানায়, মোট তিনজনকে নিয়ে চলে তার কোম্পানি। তারা প্রত্যেকেই আদিত্যনের স্কুলের বন্ধু। ১৮ বছর বয়স হলে সে প্রতিষ্ঠিত একটা কোম্পানির মালিক হতে পারবে। যদিও তারা তিনজন খুব সিরিয়াসলি তাদের কোম্পানিটা চালায়। আদিত্যন আরও জানায়, ১২ জনেরও বেশি ক্লায়েন্ট আছে তাদের। কোডিং সার্ভিস থেকে ডিজাইন সবই তারা বিনামূল্যে ক্লাইন্টদের জন্য করে থাকে।

১৩ বছর বয়সেই কোম্পানির মালিক! বিস্ময় বালকের কাহিনী জানলে চমকে যাবেন

আদিত্যর কোম্পানির কর্মী তিনজন। সকলেই তার বন্ধু ও সহপাঠী। নিজের কোম্পানি সম্পর্কে বলতে গিয়ে আদিত্য বলে, “প্রতিষ্ঠিত কোম্পানির মালিক হওয়ার জন্য আগে আমাকে ১৮ বছর পেরোতে হবে। তাও আমরা এই সংস্থাকে কোম্পানির মতোই চালাব। এখনও পর্যন্ত ১২জন গ্রাহকের সঙ্গে কাজ করেছি। আপাতত বিনামূল্যে আমাদের ডিজাইন ও কোডিং পরিষেবা দিয়েছি।”

Loading...