“মেনোকা মাথায় দিল ঘোমটা’, জানেন কি মেনোকা মাথায় ঘোমটা দিয়েছিল কেন?

মেনোকা মাথায় দিল ঘোমটা

পুজো মণ্ডপ হোক অথবা কোনো লৌকিক অনুষ্ঠান সবকিছুতেই “মেনোকা মাথায় দিল ঘোমটা’ গানটি শুনতে পাওয়া যায়। এই গানের পৌরাণিক প্রেক্ষাপট অনেকেই জানেন না।

“মেনোকা মাথায় দিলো ঘোমটা বেছে বেছে করলি জামাই নেংটা রে নেংটা’-অর্থাৎ হিমালয়ের পত্নী অর্থাৎ  দেবী পার্বতীর  মা কে বলা হয় মেনোকা। মেনোকা মাথায় ঘোমটা দিয়েছিলেন শিব আর পার্বতীর বিয়ের সময়।

মেনকা ও গিরিরাজ হিমালয়ের কন্যা পার্বতী বহু বছর ধরে তপস্যা করেছিলেন শিবকে পতি হিসেবে পাওয়ার জন্য। বলা হয় তিনি গাছের পাতা অবধি গ্রহণ করেননি এই সময়ে, তাই দেবী পার্বতীর নাম অপর্না। পার্বতীর এই তপস্যায় তুষ্ট হয়েই মহাদেব রাজি হন পার্বতী কে বিয়ে করতে।

শ্মশানবাসী মহেশ্বর বাঘশাল পড়ে, কোমরে সাপ  জড়িয়ে আর ছাই ভস্ম মেখে বিবাহ সভায় উপস্থিত হন। এই বিবাহসভায় ত্রি দেব ও  অন্যান্য দেবতার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বিষ্ণুর বাহন গড়ুরও।

এদিকে গড়ুর আর সাপের চিরশত্রুতার সম্পর্ক‌। বিবাহসভায় গড়ুর কে উপস্থিত থাকতে দেখে মহাদেবের কোমড়ে থাকা সাপ প্রাণ ভয়ে দৌড়ে পালায়। আর সঙ্গে সঙ্গে মহাদেবের বাঘছাল খসে পরে।

আরও পড়ুন : শিবের ৮টি ভুষণের বিশেষ তাৎপর্য

এদিকে বর বরণ করতে এসে শাশুড়ি মেনকা দেখলেন-জামাই শিব সম্পূর্ণ উলঙ্গ! লজ্জায় তিনি নিজের ঘোমটা টানলেন! আর এই ঘটনাকে ভিত্তি করেই রচিত হল গান,”মেনোকা মাথায় দিল ঘোমটা।’

আরও পড়ুন : কীভাবে শুরু হয়েছিল শিবরাত্রি ব্রত? জেনে নিন পুরো কাহিনী