রাজা-মাম্পির সম্পর্কে নতুন মোড়, দেশের মাটি বয়কটের ডাক ক্ষুদ্ধ দর্শকদের

দেশের মাটি (Desher Mati) ধারাবাহিকের (Bengali Serial) “রাজা-মাম্পি”(Raja-Mampi) জুটিকে নিয়ে দর্শকের আশা-ভরসা, স্বপ্ন বড় কম কিছু নয়। দর্শকের অত্যন্ত পছন্দের জুটি এই “রাজা-মাম্পি” জুটি। যে জুটিকে অনেকেই আবার ভালোবেসে “রাম্পি” জুটি বলে সম্বোধন করেন! আসলে “রাজা এবং মাম্পি”কে আলাদা দেখা তো দূরের কথা, “রাজা-মাম্পি” আলাদা হয়ে যাবে এমনটা ভাবতেও পারেন না তারা। সেই কারণেই তো দর্শক নিজেদের মতো করে “রাজা এবং মাম্পি”কে একসঙ্গে দেখার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ঠিক যেমন “রাজা-মাম্পি”র নাম একসঙ্গে জড়িয়ে “রাম্পি” নাম দিয়েছেন তারা, তেমনই আবার নেট-মাধ্যমে তাদের বিয়ের ছবিও দেখে নিয়েছেন অনুরাগীরা। আসলে “রাজা মাম্পি”র সম্পর্কের চড়াই-উৎরাই যেন কোনও রকমে থামছেই না। সর্বদাই নতুন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন তাদের প্রেম-ভালোবাসা। তাইতো জনৈক নেটিজেন এডিটিংয়ের দ্বারস্থ হয়ে “রাজা-মাম্পি”র বিয়েটা দিয়েই দিয়েছিলেন। কিন্তু দর্শক চাইলে কি হবে? লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের গল্পের গতিপথ এগিয়ে চলেছে তার নিজস্ব গতিতেই।

হালফিলে দেখা যাচ্ছে “রাজা”র প্রতি চূড়ান্ত অবিশ্বাস প্রদর্শন করছে “মাম্পি”। তার চরিত্র নিয়েও প্রশ্ন তুলছে সে। সব মিলিয়ে “মাম্পি”র চরিত্রটি লেখিকার লেখনীতে আবার ফিরে পেয়েছে পুরনো সেই নেতিবাচক ভঙ্গিমা। আর এখানেই আপত্তি দর্শকের। “মাম্পি”কে যে তারা নায়িকার চরিত্রে দেখতে চেয়েছেন! “রাজা”র সঙ্গে “মাম্পি”র মিলন দেখতে চেয়েছেন। তাই আজ যখন “মাম্পি” চিত্রনাট্যের প্রয়োজনে খলনায়িকা হয়ে উঠছে তখন “রাজা-মাম্পি” জুটি ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে দর্শকের মনে।

Desher Maati Serial

দর্শক “মাম্পি”র চরিত্রের আচমকা এহেন বদল দেখে এর মধ্যে ধারাবাহিক নির্মাতাদের ষড়যন্ত্র, রাজনৈতিক অভিসন্ধি, হিংসের আভাস পাচ্ছেন! তাদের দাবি “নোয়া-কিয়ান” এর জুটির জনপ্রিয়তা বাড়াতেই “রাজা-মাম্পি” জুটিকে আজ এই পর্যায়ে এনে দাঁড় করানো হয়েছে! আর ঠিক সেই কারণেই চিত্রনাট্য লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রতি তাদের সব রাগ গিয়ে পড়ছে। “রাম্পি” জুটির এই দশা দেখে এক অনুরাগীর আবেদন, “লেখিকার কাছে অনুরোধ, আমাদের মেন্টাল হেলথ এফেক্টেড হচ্ছে, আমাদের দয়া করুন”।

জনৈক নেটিজেন মন্তব্য করেছেন, “ভালোবাসা জোর করে না কোনোদিন কেউ পেয়েছে না কোনোদিন কেউ পাবে। নোয়া-কিয়ান কখনোই রাজা-মাম্পির প্রতি ভালোবাসার উর্ধ্বে উঠতে পারবে না”। “রাজা-মাম্পি”র আরেক অনুরাগীর দাবি, “স্টোরিটেলিং একটা খুব রেসপন্সিবল কাজ, আর সেটাকে নিয়ে ছেলেখেলা করে লোক ঠকানো বন্ধ হওয়া উচিত। যে চরিত্র যত্ন করে লেখা, তাকে এভাবে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দেওয়ার কি মানে? এক গোষ্ঠীকে তুলতে গিয়ে অপরকে নামাতেই হবে, যখন সে পছন্দের পাত্র!”

“রাজা-মাম্পি”র আরেক অনুরাগী তো রেগেমেগে শেষমেষ লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের মাথা কেটে ফেলার হুমকি দিয়ে বসলেন! তার মতে, “না থাকবে লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের মাথা আর না থাকবে সিরিয়ালের উল্টোপাল্টা গল্প”! এদিকে আবার “রাজা-মাম্পি”র অনুরাগীরা “বয়কট দেশের মাটি”র ট্রেন্ড তুলেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এমনকি “নোয়া”র চরিত্রাভিনেত্রী শ্রুতি দাসকে ট্যাগ করেও কু মন্তব্যের বন্যা বয়ে যাচ্ছে নেট দুনিয়ায়। “TAG Shruti Das To REACH OUR WORDS To HER” এই মর্মে রাজা-মাম্পির অনুরাগীরা শ্রুতিকে প্রতিনিয়ত আক্রমণ করে চলেছেন।

আরও পড়ুন : অধ্যাপনা ছেড়ে চিত্রনাট্য লেখিকা, লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবন কাহিনী হার মানায় সিরিয়ালের গল্পকেও

অভিনেত্রী শ্রুতি দাস এ সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করে লিখেছেন, “আবারও ক্রমাগত ‘নোয়াকে নায়িকা মানছি না মানবো না’ মার্কা পোস্টে আমার নিউজ ফিড নোংরা হচ্ছে। ‘বয়কট স্টার জলসা’ ‘বয়কট দেশের মাটি’ এসব আমাকে শুনিয়ে খুব একটা আশানুরূপ ফল পাবেন বলে মনে হয় না”। শ্রুতি আরও লিখেছেন, “আমি নায়িকা হতে আসিনি, অভিনেত্রী হতে এসেছি। যিনি/যারা আমায় যথাযথ চরিত্র দিয়েছেন আমি তাঁর/তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আর আমি নিজেকে নায়িকা বলেও দাবি করি না”।