বদলে গেল খেলাঘর সিরিয়ালের সম্প্রচারের সময়, রইলো ধারাবাহিকের নতুন টাইম স্লট

স্টার জলসার টাইম স্লটে রদবদল, পুরনো সময়ে আর দেখা যাবে না এই ধারাবাহিক

Star Jalsha Khelaghor New Time Table

একের পর এক চমক দিচ্ছে স্টার জলসা (Star Jalsha)। জি বাংলাকে টেক্কা দিতে একের পর এক নতুন ধারাবাহিক নিয়ে আসছে তার প্রতিপক্ষ স্টার জলসা। আলতা ফড়িং, গাঁটছড়া, খুকুমণি হোম ডেলিভারি, অনুরাগের ছোঁয়া তো ছিলই, এবার আসছে গুড্ডি (Guddi)। তবে গুড্ডি এসে প্রথমেই বড় চমক দিল স্টার জলসার টাইম স্লটে। নতুন ধারাবাহিক হওয়াতে ধারাবাহিকের সম্প্রচারের সময় প্রাইম টাইমেই হওয়ার কথা। তবে চ্যানেলের প্রাইম টাইম প্রায় সবটাই দখল করে রেখেছে নতুন এবং জনপ্রিয় ধারাবাহিকগুলি।

সম্প্রচারের সময় নিয়ে টানাপোড়েনের জেরেই এতদিন গুড্ডির সম্প্রচারের দিনক্ষণ ঘোষণা করেনি স্টার জলসা। এক মাস আগেই নতুন ধারাবাহিকের প্রোমো প্রকাশ্যে এসেছে। অবশেষে নতুন ধারাবাহিকের সম্প্রচারের দিনক্ষণ জানানো হল আনুষ্ঠানিকভাবে। আগামী ২৮শে ফেব্রুয়ারি থেকে প্রতিদিন সোম থেকে রবিবার সন্ধ্যা ৬.০০ টায় সম্প্রচারিত হবে গুড্ডি। এখন প্রশ্ন হল এতদিন এই সময়ে খেলাঘর (Khelaghor) সম্প্রচারিত হয়ে এসেছে। তাহলে কি এবার বন্ধের মুখে খেলাঘর?

Star Jalsha Guddi Serial Time Slot

না, চ্যানেল অবশ্য এখনই ধারাবাহিক বন্ধের পথে হাঁটেনি। তবে স্লট বদলে প্রাইম টাইম থেকে অনেক নিচে নামিয়ে দেওয়া হল খেলাঘরকে। উল্লেখ্য, এতদিন সন্ধ্যা ৬.০০ টার স্লটে বেশ ভালই টিআরপি দিচ্ছিল ধারাবাহিকটি। তবে এবার নতুন ধারাবাহিকের জন্য জায়গা ছেড়ে দিতে হল খেলাঘরকেই। স্লট বদলে সন্ধ্যা থেকে বিকেলের স্লটে সরানো হয়েছে খেলাঘরকে। ‌এতে বেশ মনোক্ষুন্ন হয়েছেন দর্শকরা।

খেলাঘরের নতুন স্লট নিয়ে বেশ চিন্তায় পড়েছেন ভক্তরা। কারণ এবার থেকে গুড্ডি সম্প্রচারিত হলে প্রতিদিন সন্ধ্যার বদলে বিকেল ৫.০০ টায় সম্প্রচারিত হবে খেলাঘর। কাজেই সন্ধ্যার সময় ধারাবাহিক যা টিআরপি দিতে পারতো, বিকেলের স্লটে সরিয়ে দেওয়া হলে ধারাবাহিকে টিআরপি নেমে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন ভক্তরা। উল্লেখ্য, স্টার জলসাতে এতদিন বিকেল ৫.০০ টার স্লটে ফেলনা ধারাবাহিকের সম্প্রচার হয়ে এসেছে।

নতুন এই টাইম স্লট সম্পর্কে জানার পর স্বভাবতই ফেলনা অনিশ্চয়তার মুখে পড়ে গিয়েছে। তবে কি এবার বন্ধের মুখে হিয়া দে’র ফেলনা? ফেলনার নতুন টাইম স্লট নিয়ে চ্যানেলের তরফ থেকে কিছু জানানো হয়নি। কাজেই ধারাবাহিক বন্ধের আশঙ্কা করছেন দর্শকরা।