তিতিরকে লিপস্টিক পরিয়ে বিয়ে করে ফুলঝুরির কাছেই ফিরে গেল লালন, দর্শকরা হেসেই খুন

লিপস্টিক পরিয়ে বিয়ে করা বউকে ছেড়ে ফুলঝুরির কাছেই ফিরে গেল লালন, হেসে খুন দর্শকরা

বাংলা টেলিভিশনের ( Bengali Telivision) ইতিহাসে লিপস্টিক পরিয়ে বিয়ে প্রথমবার দেখানো হয় স্টার জলসার ধূলোকণা (Dhulokona) সিরিয়ালে। এই সিরিয়ালে লালন-তিতিরের বিয়েকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়াতে তুমুল সমালোচনা হয়েছিল। ভাই-বোনের বিয়ে, নায়কের বারবার বিয়ে, পরকীয়া নিয়ে চর্চা তো ছিলই, তবে সিঁদুর দানের সময়ে লালন যখন সিঁদুরের বদলে তিতিরের সিঁথিতে লিপস্টিক পরিয়ে দেয়, তা দেখে নেট মাধ্যমে উঠেছিল হাসির রোল।

কিন্তু অবশেষে লিপস্টিক পরিয়ে বিয়ে টিঁকলো না। লালনকে ধরে রাখার সমস্ত প্রয়াস তিতিরের ব্যর্থ হয়ে গেল। নকল বিয়েতেও যেখানে লালনের স্মৃতি ফেরানো গেল না সেখানে স্টেজে ফুলঝুরির সঙ্গে গান গেয়েই স্মৃতি ফিরে পেল লালন। তাই তিতিরকে ভুলে আবারও ফুলঝুরির কাছেই ছুটে গেল সে। গানের মঞ্চই আবার মিলিয়ে দিল লালন-ফুলঝুরিকে। টিআরপি ধরে রাখতে মোক্ষম চাল দিলেন লেখিকা লীনা গাঙ্গুলী।

বাংলা সিরিয়ালে লিপস্টিকের বিয়ে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে তুমুল হাসাহাসি শুরু হয়। বিয়ে নিয়ে ছেলেখেলা মোটেই বরদাস্ত করতে রাজি ছিলেন না দর্শকরা। তবে এই বিয়ে আসলে ছিল একটা সাজানো নাটক যাতে দুর্ঘটনায় স্মৃতি হারিয়ে ফেলা লালনের স্মৃতি আবার ফিরে আসে। তিতিরকে বিয়ে করলে যদি তার ফুলঝুরির সঙ্গে বিয়ের কথা মনে পড়ে, তাই এই ব্যবস্থা করা হয়েছিল। তবে তাতে অবশ্য কাজ হয়নি।

তিতিরের কথামত লিপস্টিক পরিয়ে ফুলঝুরির সামনেই আবার বিয়ে করে নেয় লালন। কিন্তু বিধির বিধান বদলাবে কে? বিয়ের মন্ডপে কিছু মনে না পড়লেও স্টেজে গান গাইতে গাইতে লালন ঠিকই তার স্মৃতি ফিরে পায়। ফুলঝুরিকে সামনে দেখে আর নিজেকে আটকাতে পারে না সে। প্রকাশ্য মঞ্চেই বউকে জড়িয়ে ধরে লালন। এভাবে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে আবার মিল হয়ে যায়। ওদিকে রাগে ফুঁসতে থাকে তিতির।

আর হবে নাই বা কেন? লিপস্টিক দিয়ে হোক আর যাই হোক না কেন, লালনের সঙ্গে তার বিয়েটা তো হয়েছে। লালনকেই সে তার স্বামী হিসেবে মানে। লালন যে আচমকা স্মৃতি ফিরে পাবে, ফুলঝুরির কাছেই ফিরে যাবে এমনটা সে আশা করতে পারেনি। অবশেষে সেটাই ঘটলো। এতদিন বাদে লালন-ফুলঝুরিকে আবার একসঙ্গে দেখে দর্শকরা তো দারুণ খুশি।

একদিকে লালন-ফুলঝুরি একে অপরকে জড়িয়ে ধরে আবেগে ভাসছে, অন্যদিকে তিতির দূরে দাঁড়িয়ে অবাক হয়ে দেখছে, এই দৃশ্যটা দেখে বেশ মজা পেয়েছেন দর্শকরা। তারা প্রশংসা করে লিখছেন আগে যারা এই সিরিয়াল দেখে বিরক্ত হয়েছিল এবার তারা প্রশংসাই করছে। আবার কেউ লিখলেন, ‘সবই লীনা পিসির লেখার জাদু। ম্যাজিক মোমেন্টসের ম্যাজিক’।