‘আলতা ফড়িং’য়ের কুচুটে খলনায়িকা ‘পৌষালী’ হঠাৎই ছেড়ে দেন অভিনয়, জানালেন কারণ

প্রথম সিরিয়ালের পর কেন অভিনয় ছেড়ে দেন আলতা ফড়িংয়ের খলনায়িকা আয়েন্দ্রী, জানালেন কারণ

বাংলা বিনোদনের দুনিয়ায় বাংলা সিরিয়ালগুলোই (Bengali Mega Serial) দর্শকদের বিনোদনের বড় মাধ্যম হয়ে উঠেছে। সিনেমার থেকেও এখন বাংলা সিরিয়ালের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। সিরিয়ালে যারা কাজ করেন তাদের জনপ্রিয়তা টলিউড স্টারদের তুলনায় কোনও অংশেই কম নয়। এমনই একজন অভিনেত্রী হলেন আয়েন্দ্রী রায় (Ayendri Roy)। তিনি এখন বাংলা সিরিয়ালের একজন জনপ্রিয় খলনায়িকা।

বর্তমানে স্টার জলসার (Star Jalsha) ‘আলতা ফড়িং’ (Alta Phoring) ধারাবাহিকে পৌষালীর চরিত্রে অভিনয় করছেন আয়েন্দ্রী। ফড়িং এর সঙ্গে তিনি যে ব্যবহার করেন পর্দায় তাতে তাকে দেখলেই হাড়ে হাড়ে জ্বলে ওঠেন দর্শকরা। খলনায়িকা হিসেবে তিনি তার কাজ যথার্থভাবে তুলে ধরছেন পর্দাতে। তবে এমন একজন দক্ষ অভিনেত্রী নাকি প্রথম সিরিয়ালে অভিনয় করার পর ইন্ডাস্ট্রিই ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন।

বিনোদনের দুনিয়াতে সাধারণত ইচ্ছে থাকলেও বা চেষ্টা করলেও অনেকে জায়গা পান না। সেই জায়গায় আয়েন্দ্রী নিজে থেকেই এই ইন্ডাস্ট্রি ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন। এই সময় ডিজিটালকে একটি সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় তিনি এ কথা জানান। জন্মসূত্রে বাঙালি হলেও তিনি ছোট থেকেই ভারতবর্ষের বিভিন্ন শহরে থেকে বড় হয়েছেন। কখনও গোয়া, কখনও হায়দ্রাবাদ, আবার কখনও দক্ষিণ ভারতে থেকেছেন তিনি।

আয়েন্দ্রীর বাবা একটি ইংরেজী সংবাদপত্রের প্রাক্তন সাংবাদিক ছিলেন। তার মা একজন স্কুল শিক্ষিকা। খুব ছোটতে মডেলিংয়ের প্রতি আলাদাই ভালোবাসা জন্মে গিয়েছিল আয়েন্দ্রীর মনে। অল্প বয়স থেকেই তিনি নামিদামি ব্রান্ডের হয়ে বিজ্ঞাপনে কাজ করতে শুরু করেন। সেই সঙ্গে অভিনয়টাও ভালবাসতেন তিনি। তাই যখন তার কাছে কাজের প্রথম সুযোগ আসে তখন তিনি তা ফিরিয়ে দিতে পারেননি।

স্টার জলসার ‘আদরিনী’ ধারাবাহিক ছিল আয়েন্দ্রীর প্রথম কাজ। তার বাড়িতে আগে কেউ এই পেশার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। তার সাংবাদিক বাবা চেয়েছিলেন মেয়েও তার মত সাংবাদিক হোক। তাই বাবার থেকে অভিনয়ের জন্য তিনি সমর্থন পাননি। তবে মাকে তিনি সবসময় পাশে পেয়েছেন। কিন্তু প্রথম ধারাবাহিক অভিনয় করতে করতেই তার মনে হয় এই অভিনয় জগত তার জন্য নয়।

আসলে শুরুতে তিনি কিছুই জানতেন না। তখন অডিশন বা পোর্টফোলিও সম্পর্কে তার কোনও ধারণাই ছিল না। তাই প্রথম ধারাবাহিকের পর তিনি আবার মডেলিংয়েই ফিরে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তখনই তার কাছে ‘আমি সিরাজের বেগম’ সিরিয়ালের রেহানার চরিত্রের অফার আসে। এই ধারাবাহিকের পর তার জনপ্রিয়তা অনেক বেড়ে যায়। এরপর তাকে আর ফিরে তাকাতে হয়নি। একে একে তিতলি, গ্রামের রানী বীণাপাণি, আলতা ফড়িং এবং খেলনা বাড়ির প্রস্তাব আসতে থাকে তার কাছে। এখন তিনি বাংলা সিরিয়ালের একজন দাপুটে খল নায়িকা।