ভালোবাসার মন্ত্রী নেই, কারও বাগানবাড়িতে সময় কাটাতে পারব না, নায়িকাদের বিঁধে কটাক্ষ শ্রীলেখার

পেয়ারের মন্ত্রী নেই, কারও বাগানবাড়িতে সময় কাটাতে পারব না, ক্ষোভ উগরে দিলেন শ্রীলেখা

শ্রীলেখা মিত্র (Sreelekha Mitra) বরাবর স্পষ্টবাদী। ঠোঁটকাটা স্বভাব তার। এর আগেও ইন্ডাস্ট্রির সম্পর্কে অপ্রিয় সত্যি কথা বলতে কখনও তার বাঁধেনি। বিনোদন জগতের তারকা হওয়া সত্ত্বেও খুব বেশি ছবিতে তার দেখা মেলে না। তার অভিনীত ছবি জাতীয় পুরস্কার পেলেও তিনি পান না কোনও বঙ্গ সম্মান। এবার ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে ঝাঁজালো মন্তব্য করলেন শ্রীলেখা।

সদ্য অনুষ্ঠিত হয়েছিল বঙ্গ সম্মান বিতরণী অনুষ্ঠান। সেখানে অভিনেতা জিতের পাশাপাশি শ্রীলেখাও ডাক পাননি। তৃণমূলের তারকা সাংসদ, বিধায়ক আর ঘনিষ্ঠরা পেয়েছেন বঙ্গভূষণ, বঙ্গবিভূষণ, মহানায়ক সম্মান। বঞ্চিত রয়ে গিয়েছেন শ্রীলেখা। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে এবং সংবাদ মাধ্যমের কাছে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তিনি।

শ্রীলেখার অভিনীত ‘এবং ছাদ’ এর জন্য অভিনেত্রী পেয়েছিলেন পুরস্কার। আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ২০২২ এ বিদেশি শর্ট ফিল্ম হিসেবে সেরা অভিনেত্রী এবং স্পেশাল জুড়ি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন তিনি এবং তার ছবি। তারপরেও তিনি বঞ্চিত বাংলার কাছে। এই সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়াতে তিনি আক্ষেপ করে লেখেন, ‘এত কিছুর পরেও ২-৫ লক্ষ টাকা কেউ বিনিয়োগ করবেন না তাও জানি। আমার পেয়ারের কোনো মন্ত্রী শান্ত্রী নেই।’

‘এরপর বারান্দা’, ‘তারপর বেডরুম’, ‘অতঃপর বাথরুম’, পরপর তিনটি ছবি রয়েছে তার হাতে। কিন্তু নেই কোন ইনভেস্টর। আনন্দবাজারের কাছে তিনি বলেছেন, “পাব কী করে প্রযোজক? শ্রীলেখা মিত্র তো এত দিন সৎ পথে থেকেছে। অসৎ পথে থাকলে সম্মান পাওয়া যায়। সরকারি পুরস্কারে পুরস্কৃত হওয়া যায়। এমনি এমনি তিন মাস হাতে কাজ নেই? তবু আমি কখনও নিজের পথ থেকে বিচ্যুত হব না।”

শ্রীলেখার ঝাঁঝালো মন্তব্য, “আমি কারও বাগানবাড়িতে গিয়ে সময় কাটাতে পারব না। ভাল কাজ করব বলে, ছবি তৈরি করব বলে টাকা দরকার। কিন্তু তার জন্য কারও পায়ের তলায় বসে থাকতে পারব না।” তাকে নিয়ে সামাজিক মাধ্যমেও কিছু কম লেখালেখি হয় না। কিন্তু তাতে থোড়াই কেয়ার অভিনেত্রী। তার স্পষ্ট জবাব, “আমাকে নিয়ে কে ‘ফ্যান্টাসাইজ’ করল, কে বৌদি বলল— এগুলোতে কিছু যায় আসে না। স্পষ্ট কথা বলি বলে পরোক্ষ ভাবে অনেক হুমকিও এসেছে। কাউকে ভয় করি না আমি।”