বিয়ের ৪ মাসের মাথাতেই যমজ সন্তান, আইনি মারপ্যাঁচে জড়ালেন নয়নতারা, হতে পারে জেল

বিয়ের ৪ মাসের মধ্যেই যমজ সন্তান হল কীভাবে, নয়নতারার বিরুদ্ধে স্টেপ নিচ্ছে তামিলনাড়ুর প্রশাসন

হুট করে বিয়ে হতে না হতেই চট করে প্রেগনেন্ট হয়ে পড়ছেন আজকালকার বলিউড (Bollywood) নায়িকারা। তবে দক্ষিণী তারকারা আবার সব দিক দিয়েই বলিউডের থেকে এক কদম এগিয়ে। বিয়ের আড়াই মাসের মাথায় প্রেগনেন্সির কথা ঘোষণা করেন বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। আর দক্ষিণের সুপারস্টার (South Indian film actress) অভিনেত্রী নয়নতারা (Nayanthara) তো বিয়ের চার মাসের মাথাতেই যমজ সন্তানের জন্ম দিয়ে ফেললেন!

চার মাস আগেই মহা ধুমধাম করে পরিচালক ভিগনেস শিবনের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন নয়নতারা। তাদের বিয়ে নিয়ে চর্চা থামতে না থামতেই এসে গেল আরেক সুখবর। সম্প্রতি মা হয়েছেন নয়নতারা। তাও আবার যমজ সন্তানের। তিনি কবে গর্ভধারণ করলেন, কবে সন্তানের জন্ম দিলেন, ঘুণাক্ষরেও টের পাননি ভক্তরা।

দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির এই তারকা দম্পতির ঘরে সম্প্রতি দুই ছোট্ট সদস্যের আগমন হয়েছে। এই খবর জানা গেল রবিবার, যখন ২ যমজ সন্তানের ছোট্ট ছোট্ট পায়ে চুমু দিয়ে সেই ছবি তারা পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। সন্তানদের নাম তারা রেখেছেন উইয়ার এবং উলাগাম। এখনই তারকা দম্পতির বাড়িতে খুশির পরিবেশ তৈরি হয়েছে। কিন্তু এরই মাঝে আবার দুশ্চিন্তার কারণও দেখা দিয়েছে।

কিছুদিন আগে পর্যন্ত ভিগনেসের সঙ্গে বিদেশে জন্মদিন সেলিব্রেট করতে দেখা গিয়েছে নয়নতারাকে। তখনও পর্যন্ত তার প্রেগনেন্সি সম্পর্কে জানা যায়নি কিছুই। ভক্তরা কেউ ঘুণাক্ষরেও আন্দাজ করতে পারেননি অভিনেত্রী এত তাড়াতাড়ি সুখবর শোনাতে পারেন। যতদূর জানা যাচ্ছে সারোগেসির মাধ্যমেই নয়নতারা সন্তানদের জন্ম দিয়েছেন।

যদিও এই বিষয়েও অভিনেত্রী খোলাখুলি কিছুই জানাননি। তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে অনেকেই অনুমান করছেন নয়নতারা নিজে সন্তানদের জন্ম দেননি। তাই প্রশ্ন উঠছে যদি অভিনেত্রী সারোগেসির মাধ্যমেও মা হয়ে থাকেন তাহলে তিনি সেই সংক্রান্ত সমস্ত নিয়ম-কানুন মেনেছেন তো? কারণ ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসেই এই সংক্রান্ত আইনে পরিবর্তন এসেছে।

নতুন নিয়ম অনুসারে শারীরিক অক্ষমতা থাকলে তখনই কেবল সারোগেসির জন্য অনুমতি পাওয়া যায়। নয়নতারা এবং ভিগনেস এই নিয়ম মেনেছেন তো? এই বিষয়ে তারকা জুটির পাশাপাশি প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছিলেন তামিলনাড়ু স্বাস্থ্যমন্ত্রী মা সুব্রমহ্মণ্যম। তিনি বলেছেন বিষয়টি নিয়ে রাজ্য সরকার তদন্ত করবে। তাই খুব শীঘ্রই তামিলনাড়ুর প্রশাসনের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে নয়নতারা এবং ভিগনেসকে।