পাগলের ছেলে পাগলই হবে! কুকথা সহ্য করেই বেড়ে ওঠা, আজ বাংলার গর্ব স্নিগ্ধজিৎ

বাবা পাগল, মাকে গর্ভপাতের পরামর্শ! স্নিগ্ধজিতের মায়ের লড়াই দেখে বিচারকদের চোখে জল

Snigdhajit Bhowmik`s Heartfelt Tribute to His Mother on SaReGaMaPa made Everyone Cry

বাংলার গায়ক প্রতিভা স্নিগ্ধজিৎ ভৌমিক (Snigdhajit Bhowmik) বর্তমানে জি টিভির (Zee TV) সারেগামাপাতে (Sa Re Ga Ma Pa) জাতীয় মঞ্চে বাংলার প্রতিনিধিত্ব করছেন। উত্তরবঙ্গের এই গায়কের প্রতিভায় মুগ্ধ বিচারকরা। সুরের জাদুতে স্নিগ্ধজিৎ মুগ্ধ করেছেন বলিউডের বহু নামিদামি তারকাকেও। তবে সদ্য এই মঞ্চে তিনি তার জীবনের এমন এক দিক উল্লেখ করলেন যা কার্যত সকলেরই অজানা ছিল। জানালেন, তার সাহসী মায়ের কথা।

বাংলার ছেলে স্নিগ্ধজিৎ সারেগামাপার মা স্পেশাল এপিসোডে গাইলেন ‘তারে জামিন পার’ ছবির ‘মেরি মা’ গানটি। গান গাওয়ার পর তিনি তার মায়ের কথা তুলে ধরলেন বিচারকদের সামনে। চ্যানেলের তরফ থেকে শেয়ার করা কিছু ঝলক দেখে জানা গেল, স্নিগ্ধজিতের মায়ের কথা শুনে মঞ্চে উপস্থিত বিচারক থেকে শুরু করে জুরি, প্রতিযোগী সকলেরই চোখে জল দেখা দিয়েছে। এই স্পেশাল এপিসোডের প্রোমো থেকে জানা গেল এমন এক তথ্য যা দেখে দর্শকের চোখের জল বাঁধ মানবে না তা নিশ্চিত।

স্নিগ্ধজিতের মা বেশ কয়েক মাস আগে থেকেই অসুস্থ। মায়ের দেখভাল করার জন্য তার স্ত্রী রয়েছেন গ্রামের বাড়িতে। ভিডিও কলে কথা হতে তাদের ভগ্নপ্রায় গ্রামের বাড়িটির ছবি ফুটে উঠেছিল সারেগামাপার মঞ্চে। যা দেখে ট্রোল করতে শুরু করেছিলেন নেটিজেনরা। বলেছিলেন, স্নিগ্ধজিৎ সমবেদনা পাওয়ার জন্য ভাঙ্গা বাড়ির ছবি তুলে ধরেছেন। তবে এ দিনের দৃশ্য কার্যত সকলের মুখ বন্ধ করে দেবে।

স্নিগ্ধজিতের অসুস্থ মা সশরীরে উপস্থিত হতে পারেননি মঞ্চে। অক্সিজেন সাপোর্টে রয়েছেন তিনি। ভিডিও কলে তিনি উপস্থিত থাকলেন ছেলের পারফরম্যান্স দেখার জন্য। পাশে রইলেন স্নিগ্ধজিতের স্ত্রী। গানের শেষে গায়ক জানান তার মা কিভাবে সমাজের চোখ রাঙানি, কটুক্তি এবং হুমকি উপেক্ষা করে তার জন্ম দিয়েছিলেন। স্নিগ্ধজিৎ জানান, “আমার বাবা মানসিকভাবে অসুস্থ, তাই লোকজন মা-কে বলেছিল গর্ভপাত করিয়ে নাও, পাগলের ছেলে পাগল হয়েই জন্মাবে… মা আমাকে এই পৃথিবীর আলো দেখিয়েছে, এর চেয়ে বড় আর কী হবে!”

স্নিগ্ধজিতের সাহসী মায়ের কথা জেনে তার সহ-প্রতিযোগীদের মায়েদের চোখ দিয়ে জল গড়িয়ে পড়ে। শংকর মহাদেভানসহ মঞ্চে উপস্থিত অন্যান্য বিচারকদেরও চোখ ভিজে আসে জলে। স্নিগ্ধজিৎকে নিয়ে যতই ট্রোলিং হোক না কেন, তার গানের প্রতিভা তার থেকে ছিনিয়ে নিতে পারবে না কেউ। এই প্রতিভার জেরেই এবার সারেগামাপার ট্রফি বাংলায় আসার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। জাতীয় মঞ্চে বাংলার মুখ উজ্জ্বল করছেন স্নিগ্ধজিৎ। সবটাই সম্ভব হয়েছে তার মায়ের জন্য।