সলমানের বিরুদ্ধে মুখ খোলার ফল, জীবনটাই শেষ হয়ে যায় এই বলিউড গায়িকার

সলমানের বিরুদ্ধে মুখ খোলা অপরাধ, জীবন তছনছ হয়ে যায় এই গায়িকার

গোটা বলিউড (Bollywood) নাকি একজনেরই অঙ্গুলিহেলনে চলে! তিনি শাহরুখ নন, আমির নন, খিলাড়ি অক্ষয় কুমারও নন, তিনি হলেন বলিউডের দাবাং সুপারস্টার সালমান খান (Salman Khan)। একবার যদি কেউ তার রোষানলে পড়েন তাহলেই বলিউডে তার যাত্রা সেখানেই শেষ। প্রখ্যাত গায়ক অরিজিত সিংয়ের সঙ্গেও নাকি এমনটাই হতে বসেছিল! আর সালমানের বিরুদ্ধে মুখ খুলে গায়িকা সোনা মহাপাত্রের (Sona Mahapatra) জীবন তো রীতিমতো নরকে পরিণত হয়!

ঘটনাটি ঘটেছিল আজ থেকে প্রায় ৬ বছর আগে। ২০১৬ সালে অনুষ্কা শর্মা এবং সালমান খান অভিনীত ছবি ‘সুলতান’ মুক্তি পায়। ছবিটি বক্স অফিসে সুপারহিট হয়েছিল। তবে ছবির শুটিং সালমানের জন্য ছিল খুবই কষ্টকর। সে সম্পর্কে বলতে গিয়ে সংবাদমাধ্যমের কাছে সালমান তার কঠোর পরিশ্রমের কথা তুলে ধরেন।

সালমান তার শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে গিয়ে বলেন শুটিং করার সময় তার নিজেকে একজন ধর্ষিতা বলে মনে হচ্ছিল! সালমানের এই কথাতে নিন্দার ঝড় বয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়াতে। তার বিরুদ্ধে গর্জে ওঠেন কঙ্গনা রানাওয়াত থেকে শুরু করে সোনা মহাপাত্ররা। তাদের দাবি ছিল, ধর্ষিতার কষ্ট অনুভব না করে সালমান যে মন্তব্য করেছেন তা অত্যন্ত কুৎসিত।

কিন্তু সালমানের কথার বিরোধিতা করতে গিয়ে বিপদে পড়ে যান সোনা মহাপাত্র। সালমানকে ‘নারী বিদ্বেষী’ বলার ‘অপরাধে’ তার উপর শুরু হয় অত্যাচার। তার সঙ্গে যা কিছু ঘটেছিল তা জানলে শিউরে উঠতে হয়। একটি সাক্ষাৎকারে এই বিষয়ে মুখ খুলেছিলেন সোনা।

গায়িকার কথায়, “আমার বক্তব্য ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল, শুধু যে খুনের হুমকি দেওয়া হয় তাই নয়। আমার ছবি মরফ করে বিভিন্ন পর্ণসাইটে ছড়িয়েও দেওয়া হয়েছিল। লাগাতার দেওয়া হয়েছিল গণধর্ষণের হুমকি”। শুধু তাই নয়, তার এবং তার আপনজনেদের জীবন রীতিমতো নরকে পরিনত করে দেওয়া হয়!

সোনা আরও বলেছিলেন, “আমি আর স্বামী কাঁদতাম। এখানেই শেষ নয় কৌটোয় করে আমার বাড়িতে পাঠানো হয়েছিল মল। জীবন শেষ করে দেওয়া হয়েছিল প্রায়”। এসব কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন সালমানের ভক্তরা। ভাইজানের বিরুদ্ধে ‘অপ্রিয় সত্য’ বলার অপরাধে মাশুল দিতে হয়েছিল গায়িকাকে! এই ঘটনা আরও একবার প্রমাণ করে সালমানের বিরুদ্ধে মুখ খুললেই হতে পারে ঘোর বিপদ।