মিঠাইয়ের বিপদে দিশেহারা সিদ্ধার্থ, বউকে বাঁচাতে মরিয়া হয়ে নিল দারুণ পদক্ষেপ 

মিঠাইকে হারিয়ে ফেলার ভয়ে দিশেহারা সিদ্ধার্থ, বউকে বাঁচাতে নিল দারুণ সিদ্ধান্ত, দর্শকদের জন্য রইল চমক 

হাসিখুশি মোদক পরিবারে ঘনিয়ে এসেছে বিপদের ছায়া। ওমি আগারওয়ালের গুলিতে বিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি মিঠাইরানী (Mithai)। জি বাংলার (Zee Bangla) এই টপার ধারাবাহিকে এখন চলছে টানটান উত্তেজনা। গত সপ্তাহে টপার হওয়ার পর এই সপ্তাহেও কার্যত যে মিঠাই রানীর আসন কেউ দখল করতে পারবে না তা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে হালফিলের পর্বতেই।

প্রোমোতে যেমনটা দেখানো হয়েছিল রুদ্র-নিপার বিয়ের অনুষ্ঠানে সবাই যখন আনন্দে মাতোয়ারা তখন আচমকাই ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় ওমি। তাকে না জানিয়েই তার বোন পিঙ্কির সঙ্গে স্যান্ডির বিয়ে দিয়েছিল সিদ্ধার্থ-মিঠাই। তারপর মোদক পরিবারের জন্য তাকে জেলেও যেতে হয়। সবকিছুর জন্য চরম প্রতিশোধ নেয় ওমি।

ওমি সিদ্ধার্থকে গুলি করতে যায়। তবে মিঠাই-সিদ্ধার্থকে বাঁচাতে গিয়ে নিজেই গুলিবিদ্ধ হয়। আনন্দের পরিবেশে মুহূর্তের মধ্যেই বিষাদের ছায়া নেমে আসে। মিঠাইয়ের এই বিপদ দেখে দিশেহারা হয়ে পড়ে সিদ্ধার্থ। সে কি করে তার মিঠাই রানীকে বাঁচাবে ভেবে উঠতে পারছে না। তড়িঘড়ি তাকে নিয়ে যায় হাসপাতালে।

মিঠাইকে হারিয়ে ফেলার ভয়ে দিশেহারা সিদ্ধার্থ। এমতাবস্থায় হাসপাতালের চিকিৎসকদের উপরেও ভরসা রাখতে পারছে না সে। অপারেশন করে মিঠাইকে বাঁচানো গেলেও তার জ্ঞান ফেরানো যায়নি। সিদ্ধার্থের বারবার ডাকেও সাড়া দিচ্ছে না মিঠাই। এতে ভয় পেয়ে যায় সিদ্ধার্থ।

 

এদিকে সিদ্ধার্থ স্বপ্ন দেখে মিঠাই আবার মনোহরাতে ফিরে এসেছে। আবার হাসি-আনন্দে মাতিয়ে দিয়েছে গোটা পরিবারকে। কিন্তু স্বপ্ন ভাঙতেই আবার কঠিন বাস্তবের মুখোমুখি হতে হয় সিদ্ধার্থকে। চিকিৎসকরা তাকে জানায় মিঠাই কোমায় চলে যেতে পারে। কিন্তু মিঠাইকে তো সে কিছুতেই হারাতে পারবে না।

তাই সিদ্ধার্থ এক অভিনব সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলে। সে জানে মিঠাই মিষ্টি বানাতে পছন্দ করে। তার মনে হয় এই একটা জিনিসই মিঠাইকে আবার ফিরিয়ে আনতে পারে। তাই সে ময়রাদের হাসপাতালে নিয়ে এসে মিষ্টি বানানোর প্ল্যান করে। জোরে জোরে আওয়াজ করে মিষ্টি বানিয়ে সে মিঠাইয়ের জ্ঞান ফেরানোর চেষ্টা করবে। ধারাবাহিকের আসন্ন পর্বে থাকছে এই চমক। মিঠাই রানী এই প্রচেষ্টায় সাড়া দেবে কি? জানতে হলে চোখ রাখতে হবে মিঠাইতে।