‘ওই চেহারা নিয়ে সিরিয়ালে চান্স পেলে কীভাবে’, ফের অপমানিত অভিনেত্রী শ্রুতি দাস

সোশ্যাল মিডিয়ায় আবারও কটূক্তির শিকার হতে হলো বাংলা টেলি দুনিয়ার জনপ্রিয় মুখ শ্রুতি দাসকে। “ত্রিনয়নী”র “নয়ন”, “দেশের মাটি”র “নোয়া”কে কার্যত একেবারেই সহ্য করতে পারছেন না বেশকিছু নেটিজেন। কারণ? শ্রুতির শ্যামলা ত্বকের রং! একদল নেটাগরিক মনে করেন সিনে ইন্ডাস্ট্রিতে কেবল তথাকথিত সুন্দরীদেরই ভিড় হওয়া উচিত। শ্রুতির মতো দক্ষ অভিনেত্রীও সেখানে বড়ই বেমানান।

চেহারা নিয়ে বিশেষত ত্বকের রং নিয়ে বরাবরই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল হতে হয় শ্রুতিকে। অথচ নাচে-গানে-অভিনয়ে পারদর্শিনী শ্রুতি। যারা তাকে নিয়ে ট্রোল করছেন, প্রতিনিয়ত বিরূপ মন্তব্য করছেন, তারা কার্যত তার ধারেকাছেও কোনওদিন আসতে পারবেন না। তবুও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিনিয়ত শ্রুতিকে কথার খোঁচায় বিদ্ধ করেই সুখ পান বিরূপ মন্তব্যকারীরা।

তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিরুদ্ধে যারা এমন বিরূপ মনোভাব পোষণ করেন, তাদের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে কিন্তু কোনদিনই দ্বিধা করেননি অভিনেত্রী। প্রতিবার অশালীন মন্তব্যকারীদের চিহ্নিত করে তাদের যোগ্য জবাব দিয়েছেন শ্রুতি। শ্রুতিকে যারা অপমান করার চেষ্টা করেছেন, তারা উল্টে বরং নিজেরাই অপমানিত হয়েছেন। হয় অশালীন মন্তব্য ডিলিট করতে বাধ্য হয়েছেন, নতুবা প্রকাশ্যে সকলের সামনে আবার ক্ষমা চাইতে বাধ্য হয়েছেন তারা।

সবথেকে অবাক করার মত বিষয় হলো, শ্রুতিকে যারা উঠতে-বসতে অপমান করছেন, তাদের মধ্যে বেশিরভাগই কিন্তু মহিলা! একজন মহিলা হয়ে অপর আরেক মহিলা সম্পর্কে কটু কথা বলতে, এমনকি তার মৃত্যু কামনা করতেও বাঁধে না তাদের! তবে এবার শ্রুতি নেট মাধ্যমের এক মহিলাকে খুঁজে বের করতে উঠে পড়ে লেগেছেন। ওই মহিলা দাবি করেছেন তিনি নাকি শ্রুতিকে চেনেন!

শ্রুতি সম্পর্কে অনেক উল্টোপাল্টা কথা রটিয়েও বেড়াচ্ছেন তিনি! তার দাবি, “ওই চেহারা নিয়ে” শ্রুতি যদি অভিনয়ের সুযোগ পেতে পারেন তাহলে তিনিও নাকি অনায়াসেই টলিউডের অভিনেত্রী হতে পারেন! মহিলা এও দাবি করেছেন যে, তার কাছে নাকি ইতিমধ্যেই অভিনয় করার জন্য প্রস্তাব এসেছে। তবে তিনি তা ফিরিয়ে দিয়েছেন। এমনকি অভিনয় জগতের সঙ্গে তার নাকি সরাসরি যোগাযোগও আছে!

ওই মহিলা নেটিজেন দাবি করেছেন, টলিউডের সব খবর তার ভালোমতোই জানা আছে। ক্যালকাটা রোয়িং ক্লাবে শ্রুতির সঙ্গে নাকি পার্টিও করেছেন তিনি। তার ননদের বাড়িতে শ্রুতি প্রায়ই যাতায়াত করেন। এর পরেই শ্রুতির চেহারা নিয়ে কটাক্ষ করতে গিয়ে তার মন্তব্য, “মেকআপ করে কাক কখনও ময়ূর হয়ে যায় না”!

সোশ্যাল মিডিয়ায় মহিলার এমন পোস্ট দেখে আর চুপ করে থাকতে পারেননি শ্রুতি। সেই পোস্টটি হাইলাইট করে তিনি জানতে চান মহিলার সন্ধান। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি জানতে চেয়েছেন, “ইনি কার বৌদি? ক্যালকাটা রোয়িং ক্লাবের কেউ এঁর চেনা? এঁর যে ননদের বাড়িতে আমার আনাগোনা তিনি কে?” মহিলার সমস্ত দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শ্রুতির পাল্টা দাবি, ওই মহিলা মিথ্যে কথা বলছেন।

শ্রুতি জানাচ্ছেন, তিনি জ্ঞানত কখনো ক্যালকাটা রোয়িং ক্লাবে পা রাখেননি। মহিলার দাবি শুনে ব্যঙ্গ করে তিনি বলেন, শ্রুতির পরিচিত কোনও ব্যক্তি যদি কখনও অজ্ঞান অবস্থায় তাকে ওই ক্লাবে নিয়ে গিয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই যেন তাকে সেই কথাটি জানান! প্রসঙ্গত, শ্রুতির অনুরাগীরাও কিন্তু ওই মহিলাকে ছেড়ে কথা বলছেন না। তাদের পাল্টা দাবি, রূপের পাশাপাশি গুণ থাকাটাও আবশ্যক। যা শ্রুতির রয়েছে, তাই তিনি আজ অভিনয় জগতে।

আরও পড়ুন : কতবার সেক্স করেছ? নোংরা প্রশ্নের জবাবে ধুয়ে দিলেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস

আরও পড়ুন : অভিনেত্রী শ্রুতি দাসকে ‘বেশ্যা’ বলে অপমান, জবাবে ধুয়ে দিলেন অভিনেত্রী

সমাজের এই মনোভাব প্রসঙ্গে শ্রুতির প্রশ্ন, “সমাজের কাছে আমার খুব জানতে ইচ্ছে করে, নায়িকা মানে কী? তাঁকে অভিনয় করতে জানতে হয়? নাকি ফর্সা, সুন্দরী হতে হয়?” প্রসঙ্গত ওই মহিলার খোঁজ করতে গিয়ে তিনি জানতে পেরেছেন তিনি আবার এক কন্যাসন্তানের মা। এ প্রসঙ্গে তার মন্তব্য, “সন্তানের সত্যিই মন্দ ভাগ্য। তার মা অন্য মেয়েদের এ ভাবে আক্রমণ করেন”! এমন মানসিকতা নিয়ে কোনও মা তার মেয়েকে প্রতিপালন করবেন কিভাবে? প্রশ্ন তুলেছেন শ্রুতি।