বলিউডের কেরিয়ার বাঁচিয়েছিল দেবদাস, আজও ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচাতে মরিয়া সঞ্জয় লীলা বনসালি

ডুবতে বসা বলিউডের কেরিয়ার বাঁচিয়েছিল দেবদাস, দুর্দিনে বলিউডের পাশে বনসালি

বলিউডের মুভিগুলো যদি হয় শিল্প, তাহলে সেই শিল্পের কারিগর হলেন সঞ্জয় লীলা বনসালি (Sanjay Leela Bhansali)। একটি ছবিকে সর্বতোভাবে সুন্দর করে তোলার জন্য যা কিছু প্রয়োজন, তার আয়োজন করতে কার্পণ্য রাখেন না তিনি। এক সময় বলিউডের চিরাচরিত ট্রেন্ডের বাইরে বেরিয়ে ‘দেবদাস’র (Devdas) মত সিনেমা বানানোর সাহস দেখিয়েছিলেন তিনি। তার সেই সিনেমার হাত ধরে বলিউডে এসেছিল অনেক বড় পরিবর্তন।

মুক্তি পাওয়ার পর এই সিনেমা হল বিমুখ দর্শকদেরও টেনে আনতে পেরেছিল। সেই বছরের সবথেকে বেশি ব্যবসাকারী সিনেমা ছিল ‘দেবদাস’। ‘দেবদাস’ সিনেমাটি মুক্তি পাওয়ার পর কেটে গিয়েছে ২০টা বছর। তবে আজও বনসালির মাস্টারপিস এই সিনেমা বলিউডের গৌরব বাড়ায়।

এহেন পরিচালকের কেরিয়ার শুরু হয়েছিল ১৯৯৬ সালে। বলিউডে সেই বছর মুক্তি পায় তার প্রথম ছবি ‘খামোশি’। এরপর ‘হাম দিল দে চুকে সানাম’, ‘দেবদাস’, ‘বাজিরাও মাস্তানি’, ‘পদ্মাবত’, ‘গাঙ্গুবাই কাঠিয়াওয়াড়ি’র মত সুপারহিট ছবি দিয়েছেন বনসালি।

ছবি বানাতে গিয়ে সিনেমার সেটের উপর বিশেষ গুরুত্ব দেন বনসালি। ঝাঁ চকচকে অন্দরসজ্জা, সিনেমাটোগ্রাফি, নায়ক-নায়িকার পোশাক, মেকআপ থেকে শুরু করে নাচ-গান, কোনও দিকেই এতোটুকু খুঁত পাওয়ার জো নেই! ছবি বানানোর সময় তিনি যে দক্ষতার প্রদর্শন করেন তাতে তার পরিচালিত সিনেমাগুলি প্রচলিত ট্রেন্ডের তুলনায় আলাদা ঘরানার মধ্যে জায়গা করে নেয়।

বলিউডে যখন ‘দিল তো পাগল হ্যায়’, ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ এর মতো ছবি হচ্ছে তখন শাহরুখ খান ঐশ্বর্য রাই বচ্চন এবং মাধুরী দীক্ষিতকে নিয়ে ‘দেবদাস’ বানানোর সিদ্ধান্ত নেন বনসালি। তার মাস্টারপিস ছবিটি বলিউডের ভাগ্য বদলে দেয় সেই বছর। রোমান্টিক ট্রাজেডি নির্ভর ছবিটি বলিউডের সবথেকে বেশি উপার্জনকারী ছবির তালিকায় থেকে যাবে আজীবন।