মারা গেছেন সব্যসাচী! ঐন্দ্রিলার পর সব্যসাচীর মৃত্যুসংবাদে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া

ঐন্দ্রিলার পর মারা গিয়েছেন সব্যসাচীও, খবর রটতেই ক্ষোভে ফেটে পড়লেন অভিনেতা

Sabyasachi Chowdhury Opens Up About His Death Rumours

টলিউড (Tollywood) অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মার (Aindrila Sharma) মৃত্যুর পর কেটে গিয়েছে দুটি সপ্তাহ। এখনো সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে বারবার ফিরে ফিরে আসছে তার বিভিন্ন স্মৃতি। ঐন্দ্রিলা চলে গিয়েছেন, কিন্তু তিনি এবং তার লড়াই আজীবন অমর হয়ে থেকে যাবে কোটি কোটি মানুষের মনে। সেই সঙ্গে ঐন্দ্রিলা-সব্যসাচীর প্রেমটাও বর্তমান যুগের প্রেক্ষাপটে একটা নজির স্থাপন করেছে। ঐন্দ্রিলাকে হারিয়ে এখন কেমন আছেন )? সোশ্যাল মিডিয়াতে তার সম্পর্কে কিছু খবর নজরে আসতেই চমকে গেলেন নেটিজেনরা।

সম্প্রতি কিছু ইউটিউব চ্যানেলের সুবাদে সব্যসাচীর মৃত্যুর খবর রটে গিয়েছে। দাবি করা হচ্ছে, ঐন্দ্রিলার মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে নাকি প্রয়াত হয়েছেন সব্যসাচী নিজেও। এই খবরে রীতিমত শোরগোল পড়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়াতে। খবরের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য সরাসরি সব্যসাচীকেই ফোন করে একটি সংবাদমাধ্যম। ফোনটি ধরেছিলেন সব্যসাচী নিজেই। সোশ্যাল মিডিয়াতে যেভাবে ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে তাতে বিরক্ত অভিনেতা নিজেও।

ঐন্দ্রিলার মৃত্যুর অনেক আগেই থেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতে তাকে নিয়েও নানা মিথ্যে খবর রটানো হয়েছিল। তিনি যখন হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছিলেন তখন সোশ্যাল মিডিয়াতে রটে যায় নাকি থেমে গিয়েছে তার জীবন যুদ্ধ, প্রয়াত হয়েছেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়াতে RIP লেখার ধুম দেখে ভারাক্রান্ত মনে সব্যসাচীর লিখতে বাধ্য হয়েছিলেন, “আরেকটু থাকতে দাও ওকে। এসব লেখার অনেক সময় পাবে।”

সব্যসাচী নিশ্চিত ছিলেন ঐন্দ্রিলার মৃত্যুর আগেই তার মৃত্যু সংবাদ নিয়ে ভিডিও বানিয়ে রেখেছে ইউটিউবাররা। তার সেই ধারণাই সত্যি হয়েছিল। ঐন্দ্রিলার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সোশ্যাল মিডিয়ার ছেয়ে যায় তাকে নিয়ে বানানো বিভিন্ন ভিডিওতে। এমনকি সব্যসাচীকেও রেহাই দেওয়া হয়নি। একটি সংবাদমাধ্যমে দাবী করা হয়েছিল ঐন্দ্রিলাকে হারিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন সব্যসাচী।

এই প্রসঙ্গে অভিনেতাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি সরাসরি বলেন, “ইউটিউবের সৌজন্যে কয়েকদিন আগে নাকি আমিও মারা গিয়েছি!” মাত্র একটি কথাতেই মনের মধ্যে জমে থাকা ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন অভিনেতা। বারবার এভাবে মিথ্যে গুজব রটানো হচ্ছে তাদের নিয়ে। এতে ভীষণ বিরক্ত বোধ করছেন অভিনেতা। ঐন্দ্রিলার মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গেই সোশ্যাল মিডিয়া থেকেও নিজেকে সরিয়ে নেন তিনি। এতে যেন তাকে নিয়ে গুজব রটানোটা আরও সহজ হয়ে গিয়েছে কিছু মানুষের ক্ষেত্রে।

সব্যসাচীর বন্ধু সৌরভ দাস আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন সব্যসাচী আর কোনওদিনই লেখালেখি করবেন না। তিনি ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে প্রথমবার কলম ধরেছিলেন। তার মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গেই থেমে গিয়েছে সব্যসাচীর কলম। ফেসবুকের পর নিজেকে ইনস্টাগ্রাম থেকেও সরিয়ে নেন সব্যসাচী। তারপর থেকে তাকে নিয়ে যে গুজব রটছে তাতে বিরক্ত সৌরভ গুজব রটনাকারীদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছিলেন।