৩ দিন ধরে চলছে জীবন-মৃত্যুর লড়াই, অবশেষে ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে কলম ধরলেন সব্যসাচী

কেমন আছেন ঐন্দ্রিলা, অবশেষে ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে কলম ধরলেন সব্যসাচী, লিখলেন এই কথা

Sabyasachi Chowdhury shared health Update of Aindrila Sharma

গত তিনদিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন টেলিভিশন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা (Aindrila Sharma)। তাকে নিয়ে চিন্তিত রয়েছেন অনুরাগীরা। কেমন আছেন ঐন্দ্রিলা? তাকে নিয়ে এই প্রশ্নটাই এখন সবার মনে ঘুরপাক খাচ্ছে। এরই মধ্যে আবার ঐন্দ্রিলার স্বাস্থ্য নিয়ে বিভিন্ন খবরও শোনা যাচ্ছে। অনেকেই বলছেন তার অবস্থা নাকি ভাল নয়। যে কারণে অনুরাগীদের মনে উৎকণ্ঠা আরও বাড়ছে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে নানারকমের খবর রটছে। এতে অনুরাগীদের উৎকণ্ঠা তো বাড়ছে, সেই সঙ্গে বিব্রত বোধ করছেন তার কাছের মানুষরাও। এই পরিস্থিতিতে দেখে শেষমেষ ফেসবুকে কলম ধরতে বাধ্য হলেন ঐন্দ্রিলার সবথেকে কাছের বন্ধু সব্যসাচী চৌধুরী। গত তিনদিন ধরে ঐন্দ্রিলার সঙ্গেই হাসপাতালে রয়েছেন তিনি। তাই ঐন্দ্রিলার এই লড়াইয়ের প্রতি মুহূর্তের সাক্ষী তিনি।

তাই শুক্রবার ফেসবুকে সব্যসাচী একটি পোস্ট করে লিখেছেন, “ঐন্দ্রিলার বিষয়ে অযথা নেতিবাচক খবর ছড়ানো বন্ধ করুন। কিছু নিম্নমানের তথাকথিত মিডিয়ার ভুয়ো খবরে নিজেদের বিভ্রান্তি বাড়াবেন না অথবা ওর বাড়ির লোককে বিরক্ত করবেন না। আমি এখনও অবধি কোনও সংবাদমাধ্যমের সাথে যোগাযোগ করিনি। সাক্ষাৎকার দিইনি, দেবও না। শুধু জেনে রাখুন মেয়েটা লড়ে যাচ্ছে। লড়ছে একটা গোটা হাসপাতাল”।

সবশেষে তিনি লিখেছেন, “নিজের হাতে করে নিয়ে এসেছিলাম, নিজের হাতে ওকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যাব। এর অন্যথা কিছু হবে না।” সব্যসাচীর এই শেষ কথাটা মুহূর্তের মধ্যেই জিতে নিয়েছে নেটিজেনদের মন। সেই সঙ্গে ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে আশাবাদীও হয়েছেন তারা। এর আগেও পরপর ২ বার ক্যান্সারের বিরুদ্ধে মরণপণ লড়াই করে হাসিমুখে ঘরে ফিরেছিলেন ঐন্দ্রিলা। এর অন্যথা হবে না এবারও, দৃঢ় বিশ্বাস রয়েছে সব্যসাচীর।

মঙ্গলবার রাতে আচমকাই অসুস্থ বোধ করতে শুরু করেন ঐন্দ্রিলা। তিনি বমি করছিলেন সেই সঙ্গে তার শরীরের একটা দিকে পক্ষাঘাত হয়। ঐন্দ্রিলার মায়ের থেকে খবর পেয়ে সব্যসাচী নিজের গাড়িতে করে তাকে নিয়ে আসেন হাসপাতালে। সেই থেকেই লড়াই চলছে ঐন্দ্রিলার। এখনও ওই বেসরকারি হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

সব্যসাচী ও ঐন্দ্রিলার কাছের বন্ধু সৌরভ দাসও বলেছেন, “সকলের কাছে অনুরোধ করছি, ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো বন্ধ করুন। আমি আর দিব্য সব্যসাচীর সঙ্গে শুরু থেকেই আছি। তবে ফোন ধরার অবস্থায় নেই। বিব্রত হবেন না। সঠিক সময় সব্য ঠিক জানিয়ে দেবে ঐন্দ্রিলা কেমন আছে। ও তো সবসময়ই জানায়।” তিনি আরও বলেন, “ঐন্দ্রিলার জন্য প্রার্থনা করতে থাকুন।”