দিঘা এক্সপ্রেসের গার্ডকে নতুন জীবন দিলেন এই RPF কনস্টেবল, দেখুন কীভাবে

প্রত্যুৎপন্নমতি তাকে নিয়ে এসেছে প্রচারের আলোয়, কারণ এমনই কাজ তিনি করেছেন। আর এই স্বাভাবিক বুদ্ধি ও সাহস তাকে পৌঁছে দিয়েছে সংবাদের শিরোনামে। তিনি কিন্তু যে কাজটি করেছেন বিপদের মুহূর্তে সেই কাজ করতে সাধারন মানুষ জ্ঞানশূন্য হয়ে পড়ে। সেখানে এক উপস্থিত বুদ্ধি বাঁচিয়ে দিয়েছে এক তরতাজা প্রাণকে। এই ঘটনাটি গত একদিন ধরে বিভিন্ন খবরের চ্যানেল এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় দৌলতে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে এক গার্ড রেললাইনে বসে যাত্রীবাহী ট্রেন মেরামতির সময়  ট্রেন গতিশীল হয়ে পড়ছে এবং এই গতিশীল অবস্থাতেও রয়ে গিয়েছেন লাইনে তখন গার্ড যিনি মেরামতির কাজে নেমে ছিলেন।

তিনি আরপিএফ কনস্টেবল স্বরূপ দত্ত যিনি কর্মরত ছিলেন ঘটনাটি গত শুক্রবার সকাল ১১.৩০টার সময় হাওড়া দিঘা সুপারফাস্ট দুরন্ত এক্সপ্রেস  হাওড়া স্টেশন ছাড়ার পর চাঁদমারি ব্রিজের সামনে দাঁড়িয়ে পড়েছিল কারন ট্রেনের চালক এয়ার প্রেসার পাচ্ছিলেন না। তাই ট্রেনের গার্ড নেমে পরীক্ষা করতে শুরু করেন এই ঘটনার পরে বিভিন্ন জায়গা খোঁজার পর দেখা যায় ট্রেনের পিছনের দিকের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় কামরার মাঝে যে হোস পাইপ এয়ার প্রেসার এর জন্য যুক্ত থাকে সেই জায়গায় পাইপ দুটি খুলে গিয়েছে । আর এই জন্যই ট্রেনের চালক স্বাভাবিক এয়ার প্রেসার পাচ্ছিলেন না তখন গার্ড এস এন রায় সেই জায়গায় নেমে এয়ার প্রেসার ঠিক করার জন্য এর পাইপ দুটি লাগানোর চেষ্টা করেন।

গার্ডের এই মেরামতি করার ঘটনাটি ক্যামেরাবন্দি করছিলেন আরপিএফ কর্মীরা। হঠাৎই দেখা যায় ট্রেনটি চলতে শুরু করেছে।আর এই সময় ঘটনাস্থলে ছিলেন স্বরূপ বাবু।তিনি যখন দেখেন ট্রেনটি চলতে শুরু করেছে তখন গার্ডের ওয়াকিটকি নিয়ে চালককে ট্রেন বন্ধ করার জন্য নির্দেশ পাঠান কিন্তু তার কথামতো কাজ হচ্ছে না দেখে তিনি ছুটে যান এবং ট্রেনের মধ্যে থাকা তার সহকর্মীদের ট্রেনের চেন টানতে বলেন। এবং ছুটে যান ড্রাইভারের কামরার দিকে । এমত অবস্থায় কিছুক্ষণ পর দেখা যায় ড্রাইভার ট্রেন থামিয়ে দেন এবং দারুণ এক বরাতজোরে রক্ষা পান কার্ড এস এন রায়। তবে স্বরূপ বাবুর এই সাহসীকৃত কাজের জন্য সকলে এক বাক্যে প্রশংসা করেছেন এবং রেলে তরফ থেকে তাঁকে সম্বর্ধনা দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

দেখুন সেই হাড় হিম করা ভিডিও..

এই ঘটনায় ওই আরপিএফ কনস্টেবলের তৎপরতা রেল কর্তাদেরও প্রশংসা কুড়িয়েছে। তাঁকে পুরস্কৃত করার কথাও ভাবা হচ্ছে বলে খবর। তবে গার্ডের সংকেত না পেয়ে কীভাবে চালক ট্রেন চালিয়ে দিলেন, তা নিয়ে তদন্ত চলছে। অভিযুক্ত চালককে জিজ্ঞাসাবাদও করেছেন তদন্তকারীরা। সব দিক খতিয়ে দেখে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেই জানিয়েছেন রেল কতৃপক্ষ। বিপদের মুহূর্তে স্বরূপ বাবু যে কাজ করেছেন তা সত্যিই সকলের প্রশংসার যোগ্য আর এমন মানুষকে কুর্ণিশ জানাতে পেরে আমরাও গর্বিত।