‘শ্রাবন্তী বড়লোক আমার যেন কোনও টাকাই নেই’, ফের মুখ খুললেন রোশন

Srabanti With Roshan image

টলিউড (Tollywood) অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চ্যাটার্জির (Srabanti Chatterjee) তৃতীয় সংসারও প্রায় ভেঙে যাওয়ার মুখে! তৃতীয় স্বামী রোশন সিং (Roshan Singh) এখন প্রাক্তন। বদলে নাকি নতুন প্রেম খুঁজে নিয়েছেন অভিনেত্রী! যদিও রোশন এখনও শ্রাবন্তীকে ফিরে পাওয়ার আশা রাখেন। স্ত্রীর সঙ্গে আবারও সংসার করার স্বপ্ন দেখেন। যদিও তাতে অবশ্য শ্রাবন্তী ভুলবার পাত্রী নন। তিনি বিচ্ছেদ চেয়ে অনড়। অন্যদিকে রোশনও স্ত্রীকে ফিরে পেতে চেয়ে আদালতে মামলা করে বসে আছেন। সেই মামলা আজও আদালতের বিচারাধীন।

স্ত্রীর জীবনে নতুন পুরুষের আগমনের খবর রোশনের কানেও পৌঁছেছে। তবুও তিনি শ্রাবন্তীর সঙ্গে ‌ সংসারে ফিরতে ইচ্ছুক। শ্রাবন্তী তো তার সঙ্গে থাকতে ইচ্ছুক নন, তাহলে তাদের সম্পর্কের পরিণতি কী হবে? আনন্দবাজার অনলাইনকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে রোশনের বক্তব্য, “জোর করে কাউকে আটকে রাখা যায় না। এখন তো শুনেছি, ওর মন অন্য দিকে। তবে একটা কথা বলি… ওর সঙ্গে বিচ্ছেদ হবে বলে তো বিয়ে করিনি!”

রোশন জানিয়েছেন, বিয়ের পর শ্রাবন্তী কখনোই তার পরিবারের কাছে তারকাসুলভ ইমেজ ধরে রাখতে চাননি। বরং তিনি সকলের সঙ্গে মিলেমিশে থেকেছেন। পরিবারের সকল সদস্যের সঙ্গে তার সম্পর্ক খুব ভাল ছিল। তবে মাঝে তিনি বেশ বুঝতে পারছিলেন যে শ্রাবন্তী আসলে ‘স্পেস’ চাইছেন। শ্রাবন্তীর সেই ইচ্ছাকে সম্মান জানাতে কিছুদিনের জন্য আলাদা থাকতে শুরু করেছিলেন তারা। তবে সেই দূরত্ব যে এতটা বেড়ে যাবে, শ্রাবন্তী নতুন সম্পর্কে জড়িয়ে পড়বেন, এটা রোশন আঁচ করতে পারেননি।

এখন তাদের বিচ্ছেদ নিয়েও চারিদিকে বহু রটনা রটছে। এমনও গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে যে শ্রাবন্তীকে ডিভোর্স দিতে হলেও নাকি বেশ মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করতে পারেন রোশন! এই খবরের সত্যতা সম্পূর্ণ অস্বীকার করলেন শ্রাবন্তীর স্বামী। তার দাবি, সবটাই হলো ‘বাজে কথা’। রোশনের বক্তব্য, “সকলে ভাবে, শ্রাবন্তী বড়লোক আমার যেন কোনও টাকাই নেই। এটা একদম ভুল। আমি বিয়েতে ওকে যা গয়না দিয়েছি, সেই বিষয়ে কি সবাই জানে? জানে না।”

এও শোনা গিয়েছে যে সংসার করতে শ্রাবন্তীর থেকে নাকি ‘উপরি’ও নিতেন রোশন। এই জল্পনাও উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। এমন রটনার পরিপ্রেক্ষিতে রোশনের জবাব, “যে যা পারছে লিখে যাচ্ছে। আসলে রোশনের নামে কী বলবে শ্রাবন্তী? কী দোষ দেবে? সে সব দিতে না পারায় এ সব রটছে। ও তো পারিশ্রমিক সোজাসুজি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে নিতো। আর এক সময় আমি ওর অ্যাকাউন্টের দেখাশোনা করতাম। সে রকম নোংরা মনোবৃত্তি হলে, যা করার আগেই করতাম। আমার এ সব ভাবতেও ঘেন্না করে। আমরা যখন সংসার করেছি বাড়ির সব দায়িত্ব আমার ছিল। আর সেটাই স্বাভাবিক। ও একজন অভিনেত্রী হয়ে তো আর বাজার করতে যাবে না!”

তিনি আরও বলেছেন, “আমিই জোর করে ওকে ফ্ল্যাট কেনাই। ওর টাকাতেই ফ্ল্যাট কেনা হয়। আমি সাজানোর দায়িত্ব নিয়েছিলাম। এক সঙ্গে সংসার করতাম। দরকার পড়লে ওর কাছ থেকে টাকা চাইতাম। সেটাকে কেউ খারাপ ভাবে দেখছে কেন? আমিও তো খরচা করেছি। ভিখারি তো নই!” রোশন জানাচ্ছেন, শ্রাবন্তীর সঙ্গে তার পরিবারের সদস্যদের যেমন সুসম্পর্ক ছিল, তেমনই শ্রাবন্তীর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও তার সম্পর্ক বেশ ভালই ছিল। বিশেষত শ্রাবন্তীর দিদি-জামাইবাবু সঙ্গে আড্ডা, গল্প, একসঙ্গে বসে সিনেমা দেখা, সবই চলত।

তাহলে হঠাৎ এই ছন্দপতন কেন? আজ এই পর্যায়ে এসে রোশন মনে করেন তার স্ত্রী হঠাৎ করেই তার প্রতি আকর্ষণ হারিয়ে ফেলেছিলেন। তিনি জানিয়েছেন, “যখন শ্রাবন্তীর সঙ্গে প্রেম করতাম, তখন শরীরের প্রচুর যত্ন নিতাম। সংসার শুরু করার পর আমি মোটা হয়ে গিয়েছিলাম। আমি নিজের অস্তিত্ব হারিয়ে ফেলেছিলাম। যে রোশনকে শ্রাবন্তী পছন্দ করেছিল, সেই রোশন আর আমি ছিলাম না। তার জন্য ওর খারাপ লাগছিল হয়ত। তখন আমি পরিবার নিয়েই বেশি ভাবতাম।”

সম্প্রতি শোনা যাচ্ছে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী অভিরূপ নাগ চৌধুরকে ডেট করছেন অভিনেত্রী। বিশেষ বন্ধুর জন্মদিনে তাকে একটি হীরের আংটিও গিফট করেছিলেন তিনি। সেই আংটি নিয়েও জোর জল্পনা চলেছে নেট মহলে। রোশনের বক্তব্য, “আমি আংটি বিষয়ে সব জানি। ক্যামাক স্ট্রিটের কোন দোকান থেকে কে কার জন্য আংটি কিনেছিল, আমার সব জানা। তবে আমি মুখ খুলতে চাই না।” রোশন চান, শ্রাবন্তী যেন তার ছেলের (অভিমুন্য ওরফে ঝিনুক) দিকটা বিবেচনা করেই আগামীদিনের সিদ্ধান্ত নেন।

রোশন চিন্তিত, শ্রাবন্তীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়ে গেলে পাঞ্জাবে নিজের পরিবারকে কি জবাব দেবেন? তারা এখনও শ্রাবন্তী-রোশনের সম্পর্কের ভাঙ্গনের কথা জানেন না। তাই আজও কিছু না জেনেই শ্রাবন্তীর ছবিতে ভালোবাসার প্রতিক্রিয়া দেন তারা। তবে যাই হোক না কেন, এখন আদালতের রায়ের জন্য অপেক্ষা করা ছাড়া আর উপায় নেই। তাই বিচার-ব্যবস্থার দিকেই চেয়ে রয়েছেন রোশন। শ্রাবন্তী যদি নাও ফেরেন, তাহলে নিজের মত করে জীবনযাপন করবেন তিনি।