জিএসটি ছাড়: কমে গেল ৩৩টি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম! দেখে নিন কি কি?

788

কয়েকদিন আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন দেশে যে ১২০০ পণ্য জিএসটি-র আওতায় রয়েছে, তার মধ্যে ২৮ শতাংশের স্ল্যাবে থাকবে ০.৫ শতাংশ কিংবা বড়জোর ১ শতাংশ পণ্য। তার মধ্যে বড় গাড়ি বা বিমানের মত বিলাসদ্রব্য যেমন থাকবে, তেমন সিগারেটের মত ক্ষতিকর দ্রব্যও রাখা হবে।

জিএসটি কাউন্সিলের ৩১তম বৈঠকে ৩৩টি পণ্যের উপর থেকে পরিষেবা কর কমালো জিএসটি কাউন্সিল। এই ৩৩টি পণ্যের উপর পরিষেবা কমানো হচ্ছে। নতুন এই সিদ্ধান্ত পয়লা জানুয়ারি থেকেই লাগু হচ্ছে।

  • তীর্থযাত্রীদের বিশেষ বিমানে ইকোনমি ক্লাসে ৫ শতাংশ ও বিজনেস ক্লাসে জিএসটি থাকবে ১২ শতাংশ।
  • কম্পিউটার মনিটরের শুল্ক ২৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১৮ শতাংশে নামানো হয়। এলইডি টিভি ও মনিটরকে একই বিভাগে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। যাতে টিভি ও মনিটর একই সঙ্গে ব্যবহার করা সম্ভব হয়।
  • ১৮ শতাংশ করের মধ্যে পাওয়ার ব্যাংক ও ইউপিএসকেও নিয়ে আসা হল।
  • ভিডিও গেমস, লিথিয়াম ব্যাটারি, ভিডিও গেমস, ছোট স্পোর্টস আইটেম, প্রতিবন্ধীদের সামগ্রীর শুল্ক ২৮ শতাংশের নিচে নামানো হল।
  • অটোমোবাইলের ১৩টি দ্রব্য ও আট রকম সিমেন্ট ইন্ডাস্ট্রির শুল্ক ২৮ শতাংশের নিচে থাকছে।
  • এয়ারকন্ডিশনার ও অন্য ইলেকট্রনিক্স দ্রব্যের শুল্ক ২৮ শতাংশ থাকছে। কারণ এগুলো বিলাসবহুল দ্রব্য।
  • ১০০ টাকার মধ্যে সিনেমার টিকিটের দাম ১৮ শতাংশ থেকে কমে এল ১২ শতাংশে। ১০০ টাকার বেশি দামের টিকিটের দামে শুল্ক কমল ২৮ থেকে ১৮ শতাংশে।
  • থার্ড পার্টি বিমার শুল্ক কমল ১২ শতাংশ।

সিমেন্ট এবং অটো পার্টসের ক্ষেত্রে অবশ্য জিএসটি কমেনি। সিমেন্ট থেকে বর্তমান রোজগারের পরিমাণ ১৩ হাজার কোটি টাকা এবং অটোমোবাইল যন্ত্রাংশ থেকে রোজগার হয়ে থাকে ২০ হাজার কোটি টাকা। তীর্থযাত্রায় যাওয়ার জন্য বিশেষ বিমানের ক্ষেত্রে কোনও বিশেষ কর দিতে হবে না। সৌরচালিত প্ল্যান্ট এবং অন্যান্য অপ্রচলিত শক্তিচালিত দ্রব্যাদির ক্ষেত্রে জিএসটি-র পরিমাণ ৫ শতাংশ কমানো হবে।

১ জুলাই, ২০১৭। জিএসটি ঘোষণা হওয়ার সময় মোট ২২৬টি দ্রব্যে ২৮ শতাংশ শুল্কের তালিকায় ছিল। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশের মানুষকে আশ্বাস দেন, বিলাসবহুল দ্রব্য বাদে এবার জিএসটি সংস্করণে ৯৯ শতাংশ দ্রব্যের শুল্ক ১৮ শতাংশের নিচে নামানো হবে। ১৯২টি দ্রব্যের শুল্ক ২৮ শতাংশের নিচে নামানো হল। সব মিলিয়ে ৩৩টি পণ্যের জিএসটি হ্রাস করা হল। বিলাসবহুল পণ্য হিসেবে ২৮ শতাংশ শুল্ক তালিকায় থেকে গেল ৩৪টি পণ্য।