বাড়তে চলেছে মুদির দোকানে বিক্রি, জানুন জিও ফেসবুক চুক্তিতে আপনার লাভ

বাড়তে চলেছে মুদির দোকানে বিক্রি, দেখুন জিও ফেসবুক চুক্তিতে আপনার লাভ

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপ, আবার বর্তমানে ভারতের জনপ্রিয় টেলিকম সংস্থার রিলায়েন্স জিও। আর এবার এই দুই সংস্থার গাঁটছাড়া ব্যবসা শুরু। সম্প্রতি ফেসবুক রিলায়েন্স জিওর ৯.৯৯% শেয়ার কিনেছে। তবে এই শেয়ার কেনাবেচায় যেখানে রয়েছে সংস্থাগুলির লাভের কথা, সেখানে আমজনতা কতটা সুফলতা পেতে পারে এই দুই সংস্থার গাঁটছাড়া বন্ধনে। হ্যাঁ, আমজনতার লাভ তো রয়েছেই।

অনলাইন মুদিখানা JioMart এই মুহূর্তে দেশের অন্যতম বৃহত্তম প্রতিষ্ঠান। আর এটি আলাদা মাত্রা পেতে চলেছে জিও সাথে ফেসবুকের চুক্তিতে। বিশেষ করে পাড়ার ছোট ছোট মুদিখানাগুলির জন্য সত্যিই খুশির খবর। কারণ এই সকল ছোট ছোট মুদিখানা ও হকারদের অনলাইন প্লাটফর্মে আনতে কাজ করবে ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপ অনলাইন সংস্থা।

বাড়তে চলেছে মুদির দোকানে বিক্রি, দেখুন জিও ফেসবুক চুক্তিতে আপনার লাভ

কিভাবে কাজ করবে এই দুই সংস্থার চুক্তি?

চুক্তি অনুযায়ী স্থানীয় দোকান, মুদির দোকান ও অন্যান্যরাও জিওমার্টে তাদের নাম নথিভুক্ত করতে পারবে। আর এই অ্যাপে রেজিস্টার হয়ে গেলে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে তারা অর্ডার পাবেন। আর জিওমার্টের মাধ্যমে তা পৌঁছে যাবে গ্রাহকদের বাড়ি বাড়ি।

আরও পড়ুন :- Jio-র হাই স্পীড ইন্টারনেট পরিষেবা মিলবে পশ্চিমবঙ্গের এই জেলায়

এর ফলে ছোট ছোট স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসার পরিধি আরও বাড়াতে পারবেন। আরো বেশি লাভের মুখ দেখতে পারবেন তারা। কারণ এর ফলে নিজেদের পাড়া ছাড়াও বাইরের বহু গ্রাহক নিজেদের আয়ত্তে আনতে পারবেন দোকানদাররা।

জিওমার্টের সাথে চুক্তি করে হোয়াটসঅ্যাপের কি লাভ?

এমনিতেই ভারতে হোয়াটসঅ্যাপের ব্যবহার বিপুল। তা সত্বেও তারা এমন চুক্তি করেছে আরো বেশি করে হোয়াটসঅ্যাপের ব্যবহার বাড়ানোর জন্য। আগামী দিনে যখন এই পদ্ধতিগুলি চলে আসবে তখন আরো হোয়াটসঅ্যাপ ইউজার বাড়বে ভারতে। বর্তমানে বিনোদন বা কাজের ক্ষেত্রে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহৃত হলেও আগামী দিনে ভারতের ব্যবসায়িক ক্ষেত্রেও অন্যতম প্ল্যাটফর্ম হয়ে যাবে এই অ্যাপ।

আরও পড়ুন :- Jio-র ইন্টারনেট স্পিড ৩ গুণ বাড়িয়ে নিন কয়েকটি সেটিং বদল করেই

আর এমন চুক্তির পর রিলায়েন্স জিওর কর্ণধার মুকেশ আম্বানি জানান, “জিওমার্ট ও হোয়াটসঅ্যাপের এই যুগলবন্দী আগামী দিনে দেশে বিপ্লব আনবে। এই যুগলবন্দিতে আগামী দিনে দেশের ৩ কোটি পাড়ার ছোট ছোট ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে আরও সচ্ছলতার মুখ দেখতে পাবেন।”

জিওমার্ট আর হোয়াটসঅ্যাপের জুটিতে ছোট ব্যবসায়ীরাও ডিজিটাল কেনাবেচায় অভ্যস্ত হবেন। লকডাউন বা ভবিষ্যতে এমন সঙ্কটের পরিস্থিতি এলে অনলাইনেই গ্রাহকরা জিনিসপত্রের অর্ডার দিতে পারবেন। ডিজিটাল ব্যবসার এক নতুন দিগন্ত খুলে যাবে দেশে। ছোট ব্যবসায়ীদের রুজি রোজগারে টান পড়বে না। দ্বিতীয়ত, সুবিধা রয়েছে গ্রাহকদেরও। বাড়ি বসেই সহজে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস চলে আসবে হাতে। জিওমার্ট যেহেতু রিল্যায়ান্স জিও-র প্ল্যাটফর্ম, কাজেই অফারও চলতে থাকবে বিভিন্ন সময়ে।

আরও পড়ুন :- কোন নেটওয়ার্ক দিচ্ছে সবথেকে বেশি সুবিধা? দেখে নিন প্ল্যান

এই চুক্তিতে ফেসবুকের আরও কিছু লাভ রয়েছে। যেমন রিলায়েন্স জিওর ৩৮.৮ কোটি গ্রাহকদের মাধ্যমে ফেসবুক আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারবে। পাশাপাশি দেশের ছোট ছোট ব্যবসায়ীরাও ডিজিটাল প্লাটফর্মে আসবেন।